অর্থের ঝনঝনানি আইপিএলে আগেও ছিল। তবে গত দু'দিন বিভিন্ন স্বত্ব বিক্রি নিয়ে যা হলো, তাতে পুরো ক্রীড়া বিশ্বকে নাড়িয়ে দিয়েছে ভারতের এই ফ্র্যাঞ্চাইজি ক্রিকেট লিগ। আয়-রোজগারে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগকেও টেক্কা দিয়েছে তারা। আইপিএলের সামনে আছে কেবল আমেরিকান রাগবি লিগ এনএফএল।

২০২৩ থেকে ২০২৭ সাল পর্যন্ত আইপিএলের সম্প্রচার স্বত্ব বিক্রির নিলামটি কয়েকটি প্যাকেজে ভাগ করেছে ভারতীয় বোর্ড। প্যাকেজ 'এ' তে রয়েছে ভারতীয় উপমহাদেশে টিভি স্বত্ব। ২৩৫৭৫ কোটি রুপিতে প্যাকেজ 'এ' কিনে টিভি স্বত্ব নিজেদের দখলে রেখেছে ডিজনি স্টার। প্যাকেজ 'বি' তে রয়েছে উপমহাদেশে ডিজিটাল সম্প্রচার স্বত্ব। ২০৫০০ কোটি রুপিতে ডিজিটাল সম্প্রচার স্বত্ব কিনেছে ভায়াকম ১৮। প্রথম দুটি প্যাকেজই সবার আগ্রহের কেন্দ্রবিন্দুতে ছিল, যা বিক্রি হয়েছে মোট ৪৩০৭৫ কোটি রুপিতে। প্যাকেজ 'সি' তে রয়েছে বিশেষ কিছু ম্যাচে উপমহাদেশে ডিজিটাল স্বত্ব। এটাও ৩২৫৭.৫২ কোটি রুপিতে কিনেছে ভায়াকম ১৮। প্যাকেজ 'ডি' হলো বাকি বিশ্বের জন্য বিশেষ ম্যাচের ডিজিটাল স্বত্ব। এটাও ১০৫৮ কোটি রুপিতে কিনেছে ভায়াকম ১৮। অর্থাৎ, আইপিএল মিডিয়া স্বত্ব মোট ৪৮৩৯০.৫২ কোটি রুপিতে বিক্রি হলো।

প্যাকেজ 'এ' তে টেলিভিশনে ম্যাচ পিছু মূল্য দাঁড়াচ্ছে ৫৭.৫ কোটি রুপি। আর ডিজিটাল মাধ্যমে ম্যাচ পিছু মূল্য ৪৮ কোটি রুপি। প্রথম দুই প্যাকেজ মিলিয়ে আইপিএলের প্রতিটি ম্যাচ সম্প্রচারের মূল্য ১০৫.৫ কোটি রুপি। পুরো বিশ্বের ক্রীড়ায় এটা দ্বিতীয় সর্বোচ্চ। শীর্ষে রয়েছে আমেরিকান রাগবি লিগ এনএফএল। তাদের প্রতিটি ম্যাচের সম্প্রচার মূল্য ১৩২ কোটি রুপি। ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের প্রতি ম্যাচের সম্প্রচার মূল্য ৮৯ কোটি রুপি। মেজর লিগ বেসবলের প্রতি ম্যাচের সম্প্রচার মূল্যও ৮৯ কোটি রুপি। এনবিএ বা আমেরিকান বাস্কেটবল লিগের প্রতি ম্যাচের মূল্য ১৬ কোটি রুপি।

আইপিএল যেখানে বিশ্বের বড় বড় ক্রীড়া ইভেন্টের সঙ্গে পাল্লা দিচ্ছে, সেখানে ফ্র্যাঞ্চাইজি ক্রিকেট লিগগুলো যে তাদের চেয়ে অনেক পিছিয়ে থাকবে, সেটা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। সম্প্রচার আয়ে তাদের ধারেকাছেও নেই কোনো ক্রিকেট লিগ। এ তালিকায় তাদের চেয়ে যোজন যোজন পিছিয়ে দ্বিতীয় স্থানে থাকা পিএসএলের প্রতি ম্যাচের মূল্য ২ কোটি ৭৫ লাখ রুপি। বিপিএলের প্রতি ম্যাচের সম্প্রচার মূল্য ৮০ লাখ টাকা। বিপিএল অবশ্য ডিজিটাল স্বত্ব বিক্রিতে অনেক পিছিয়ে। অথচ নতুন বিশ্ব ব্যবস্থায় ডিজিটাল মার্কেটই সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। 'ওটিটি' প্ল্যাটফর্মই আগামী দিনে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠবে। ঠিক এই বাজারটাই ধরতে এবার নেমেছেন ভারতীয় ধনকুবের তথা এশিয়ার সেরা ধনী মুকেশ আম্বানি। প্রথম ধাপ হিসেবে আইপিএলের ডিজিটাল স্বত্ব কিনেছে তার সংস্থা ভায়াকম ১৮।