ভারত-পাকিস্তানের দ্বিপাক্ষিক সিরিজ বন্ধ। দুই দলের দেখা হয় কেবল আইসিসি, এসিসির ইভেন্টে। সময়ের সেরা দুই ব্যাটার বাবর আযম ও বিরাট কোহলির তাই সচরাচর মুখোমুখি হওয়া হয় না। সময়ের সেরা বোলার বুমরাহ এবং শাহিন আফ্রিদির জন্যও কথাটা প্রযোজ্য।

অথচ সংবাদ মাধ্যম দাবি করেছে, আগামী বছর একই দলে খেলতে পারেন বাবর ও বিরাট। না, আইপিএলে পাকিস্তানের ক্রিকেটারদের খেলার সুযোগ দেওয়া হচ্ছে না।

কথা-বার্তা চলছে আগামী বছর থেকে পুনরায় আফ্রো-এশিয়া কাপ টুর্নামেন্ট চালু করার। যে আসর ২০০৫  ও ২০০৭ সালে মাঠে গড়িয়েছে। এরপর রাজনৈতিক এবং সম্প্রচার স্বত্ব জটিলতার কারণে সামনে এগোয়নি। 

টি-২০ ফরম্যাটে আগামী বছরের জুনে এশিয়ান একাদশ এবং আফ্রিকান একাদশের মধ্যে এই টুর্নামেন্ট আয়োজনের কথা ভাবা হচ্ছে। টুর্নামেন্ট প্রস্তাব করা হয়েছে টি-২০ ফরম্যাটে। তবে এখনও আফ্রো-এশিয়া কাপের সম্ভাবনা আলোচনার পর্যায়ে সীমাবদ্ধ আছে। 

এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিলের (এসিসি) হেড অব মার্কেটিং এন্ড ইভেন্ট ম্যানেজমেন্টের প্রধান প্রভাকরণ থানরাজ বলেছেন, ‘বোর্ডগুলো থেকে এখনও আমরা কোন নিশ্চয়তা পাইনি। সাদা কাগজ নিয়ে এখনও দৌড়-ঝাপ করছি। তবে দ্রুতই বোর্ডগুলোর কাছে প্রস্তাব জমা দেওয়া হবে। আমাদের পরিকল্পনা ভারত-পাকিস্তানের সেরা ক্রিকেটারদের এক ছাতার নিচে আনা।’ 

এসিসির এক্সিকিউটিভ কমিটির প্রধান দামোদার বলেছেন, ‘দুই দেশের ক্রিকেটাররা একসঙ্গে খেলছেন, তাদের মধ্যে সম্পর্কের সেতু তৈরি হচ্ছে, এমন একটা ম্যাচ দেখতে মুখিয়ে থাকবো। আমি খুব করে চাইবো এই টুর্নামেন্ট হোক। আশা করছি, রাজনীতি এর থেকে দূরে থাকবে। ভারত-পাকিস্তানের ক্রিকেটার একদলে খেলছে, এটা দেখা হবে দারুণ ব্যাপার।’