পাকিস্তানের এক নারী ক্রিকেটার দেশটির সাবেক ক্রিকেটার এবং ঘরোয়া ক্রিকেটের কোচ নাদিম ইকবালের বিরুদ্ধে যৌন নিপীড়ন ও ভিডিও ধারণ করে হয়রানির অভিযোগ এনেছেন। ওই অভিযোগের প্রেক্ষিতে নাদিমকে বরখাস্ত করেছে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি)। 

ভিডিও বার্তায় অভিযোগ এনে ওই নারী জানিয়েছেন, কয়েক বছর আগে পাকিস্তান নারী দলের জন্য ট্রায়াল দিতে মুলতান গিয়েছিলেন তিনি। সেখান দলে নির্বাচক করা এবং পরবর্তীতে পিসিবি’তে চাকরি দেওয়ার প্রলোভন দেখান নাদিম। বিনিময়ে শারীরিক সম্পর্কের প্রস্তাব দেন। 

ওই নারী ক্রিকেটার দাবি করেছেন, এক পর্যায়ে ওই কোচের সঙ্গে তার সখ্যতা বাড়ে। সুযোগ বুঝে ৮০টি প্রথম শ্রেণির ম্যাচ খেলা নাদিম গোপনে শারীরিক সম্পর্কের ভিডিও ধারণ করে এবং পরবর্তীতে ওই ভিডিও ফাঁস করে দেওয়ার ভয় দেখিয়ে সুযোগ নেয়। তার বন্ধুরাও যৌন নিপীড়নের সঙ্গে সম্পৃক্ত ছিলেন বলে উল্লেখ করেছেন তিনি। 

নাদিমকে বরখাস্ত করে পিসিবির পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, তিনি কোন অপরাধ করেছেন কিনা সেটা হয়তো বোর্ড থেকে খতিয়ে দেখা সম্ভব হবে না। ওটা পুলিশের কাজ। তবে তিনি বোর্ডের সঙ্গে চুক্তির শর্ত ভেঙেছেন কিনা তা অবশ্যই তদন্ত করে দেখা হবে। 

পাকিস্তানের ৫০ বছর বয়সী কোচ নাদিম মুলতানের হয়ে প্রথম শ্রেণির ম্যাচ খেলেছেন। ওয়াকার ইউনূসের সতীর্থ ছিলেন তিনি। তাকে দারুণ প্রতিভাবানও মনে করা হতো। এর আগে ২০১৪ সালে পাকিস্তানের পাঁচ ক্রিকেটার ট্রায়ালে এসে যৌন হেনস্তার শিকার হওয়ার অভিযোগ করেন। 

গত বছর পাকিস্তানের লেগ স্পিনার ইয়াসির শাহ’র বিরুদ্ধে তার এক বন্ধুকে এক কিশোরীর সঙ্গে সম্পর্ক গড়ে তুলতে ও তাকে প্রতারণায় সহায়তার অভিযোগ ওঠে। পাকিস্তানের ওপেনার ইমাম উলের বিরুদ্ধেও বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে বিয়ে না করার অভিযোগ আছে।