ফুটবলকে অনেক কিছু দিয়েছেন জিনেদিন জিদান। ফুটবল জাদুয় একটা প্রজন্মকে মোহিত করেছেন তিনি। ওই জাদু দেখিয়ে ফ্রান্সকে বিশ্বকাপ, ইউরো জিতিয়েছেন। রিয়াল মাদ্রিদের হয়ে লিগ, চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জিতেছেন। 

এরপর কোচ হয়ে রিয়াল মাদ্রিদের ডাগ আউটে দাঁড়িয়েও ফুটবলকে দু’হাত ভরে দিয়েছেন জিজু। লস ব্লাঙ্কোসদের টানা তিনবার চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জেতানোর অনন্য কীর্তি গড়েছেন তিনি। টালমাটাল সময়ে দ্বিতীয় মেয়াদে রিয়ালের দায়িত্ব নিয়ে ইউরোপ সেরা হতে না পারলেও লিগ সেরা হয়েছেন। 

অথচ তার মতো একজন কোচ এখন বেকার। বলা যায় ‘বেকারত্ব বিলাস’। বড় বড় চাকরির প্রস্তাব তিনি ফিরিয়ে দিয়েছেন কোন আক্ষেপ ছাড়াই। ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড তাকে কোচ হওয়ার প্রস্তাব দিয়েছে। জিজু না করে দিয়েছেন। পিএসজি’র প্রজেক্ট নাকি তার মনে ধরেনি। অথচ জিজু বলছেন, এখনও ফুটবলকে দেওয়ার বাকি অনেক। 

কোচিংয়ে ফেরা নিয়ে এক সাক্ষাৎকার ফ্রান্সম্যান বলেন, ‘হ্যা, আমি বিশ্বাস করি এখনও অনেক কিছু দেওয়ার আছে। অনেক না থাকলেও অন্তত কিছু তো দেখানোর বাকি আছে। আমি এই পথ ধরে (কোচিং) আরও হাঁটতে চাই। নিজের মধ্যে ওই আগুন, ফুটবলের প্রতি ওই আবেগ আমার আছে। ’ 

জিদানকে সর্বশেষ পিএসজির কোচ হওয়ার অনুরোধ করেছেন ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল মাক্র্যোঁ। তখনও নাকি মন গলেনি তার। তবে সংবাদ মাধ্যম দাবি করেছে, নতুন কোচের ব্যাপারে পিএসজি যখন কথা-বার্তা প্রায় পাকা করে ফেলেছে তখন নাকি জিজুর মত কিছুটা বদলেছে। 

এছাড়া কাতার বিশ্বকাপের পর ফ্রান্সের কোচ হওয়ারও নাকি স্বপ্ন দেখছেন তিনি। কে জানে হয়তো মনে মনে জুভেন্টাসের প্রস্তাবের অপেক্ষায়ও আছে। ক্লাব ক্যারিয়ারে পাঁচ বছর ওল্ড লেডিদের হয়ে খেলেছেন তিনি। তিনি যতটা রিয়ালের ততটাই তো জুভেন্টাসের। আগামী মৌসুমে ম্যাক্সিমিলিয়ানো আলেগ্রি ব্যর্থ হলে হয়তো জিজুর ডাকই পড়বে।