পিএসজিকে নিয়ে অসংখ্য প্রশ্ন যেমন আছে। বাজারে আছে অসংখ্য গুঞ্জন। কিলিয়ান  এমবাপ্পেকে কীভাবে প্যারিসে রাখলেন ক্লাব প্রেসিডেন্ট নাসের আল খেলাইফি? নেইমার তার ক্লাবের নতুন প্রজেক্টের অংশ কিনা? জিদানকে কোচ করতে চান কিনা? প্রস্তাবিত ইউরোপিয়ান সুপার লিগের ভবিষ্যতসহ নানা বিষয় নিয়ে স্প্যানিশ সংবাদ মাধ্যম মার্কাকে সাক্ষাৎকার দিয়েছেন তিনি। যার মূল অংশ তুলে ধরা হলো: 

প্রশ্ন: ক্লাবে মাউরিসিও পচেত্তিনোর সময় কী তবে শেষ?

আল খেলাইফি: এটা নিয়ে এখনই কথা বলতে পারছি না, সময় মতোই সিদ্ধান্ত নেব। 

প্রশ্ন: কোচ হওয়ার দৌড়ে কী ক্রিস্টোফার গালটিয়ের এগিয়ে। জিদান কি অপশন ছিলেন? 

আল খেলাইফি: জিদানকে নিয়ে আমি কিছু কথা বলতে চাই। দেখুন, জিদান এমন একজন যাকে খেলোয়াড় হিসেবে আমি পছন্দ করতাম। কোচ হিসেবে পছন্দ করি। তবে তার সঙ্গে ডাইরেক্ট কিংবা ইনডাইরেক্ট কোন কথা হয়নি। তাকে আমি সম্মান করি, তার কাজে আমি মুগ্ধ। সংবাদ মাধ্যমে অনেক কিছু আসে, তবে আমরা কখনও তার সঙ্গে কথা বলিনি। 

রিয়ালের কোচ হিসেবে জিদানের গুঞ্জন উড়িয়ে দিলেন আল খেলােফি। ছবি: ফাইল

প্রশ্ন: এমবাপ্পেকে নিয়ে স্পেনে অনেক সমালোচনা। বিষয়টি নিয়ে আপনি আপনার দিকটা বলুন। তিনি পিএসজি কেন পছন্দ করলেন? 

আল খেলাইফি: ক্লাব হিসেবে রিয়াল মাদ্রিদকে আমি সম্মান করি। অনেক বড় ক্লাব এটি। কিন্তু প্রথম কথা হলো, এমবাপ্পে অর্থের জন্য পিএসজির সঙ্গে চুক্তি নবায়ন করেনি। আমাদের চেয়ে মাদ্রিদের প্রস্তাব আকর্ষণীয় ছিল। রিয়ালের মতো তার হাতে প্রিমিয়ার লিগের ক্লাবেও প্রস্তাব ছিল। কিন্তু সে পিএসজিকে বেছে নিয়েছে এবং তার পরিবার কিংবা তার সঙ্গে অর্থ-কড়ি নিয়ে শেষ মুহূর্তের আগে কোন কথা হয়নি। কিলিয়ান আমাদের নতুন প্রজেক্ট নিয়ে আগ্রহী। সে প্যারিসিয়ান এবং ফ্রেঞ্চ। নিজের দেশ, শহর এবং ক্লাবকে সে প্রতিনিধিত্ব করতে চায়। এমবাপ্পের পক্ষ থেকে অর্থ তেমন বড় বিষয় ছিল না। 

প্রশ্ন: রিয়াল প্রেসিডেন্ট পেরেজ দাবি করেছেন, চুক্তির দশ দিন আগে মত বদলেছেন এমবাপ্পে। আপনি কবে থেকে বুঝতে পেরেছিলেন যে, এমবাপ্পে থাকছেন? 

আল খেলাইফি: পেরেজ দিন নাকি মাসের কথা বলেছেন জানি না। তবে আমি জানতাম ১৮ মাস আগে। গত গ্রীষ্মে তারা ১৭০ ও ১৮০ মিলিয়ন ইউরোর প্রস্তাব করেছিল। আমি ওই প্রস্তাব ফিরিয়ে দিয়েছিলেন এবং সকলে বলেছিল, আমি পাগল। কারণ সামনের মৌসুমে সে ফ্রিতে চলে যাবে। কিন্তু আমি জানতাম, সে থাকবে। কারণ আমি তাকে ও তার পরিবারকে খুব ভালো করে চিনি। কিলিয়ান খুবই সিরিয়াস, পেশাদার, সে জিততে চায়। রিয়ালের হতাশা আমি বুঝি। 

পিএসজির উপদেষ্টা লুইস ক্যাম্পোস। ছবি: ফাইল

প্রশ্ন: ইউরোপিয়ান সুপার লিগের তিন স্বপ্নদ্রষ্টা রিয়াল, বার্সা এবং জুভেন্টাস মনে করছে ওটা এখনও দাঁড়ানোর সম্ভাবনা আছে। আপনার কী মনে হয়? 

আল খেলাইফি: আমার কাছে ওটা একটা মৃত প্রজেক্ট। রিয়াল যোগ্য দল হিসেবে চ্যাম্পিয়নস লিগ জিতেছে। মজার ব্যাপার হলো, তারা চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জিততে চায় কিন্তু খেলতে চায় না। এই লিগ নিয়ে খুশি না হলে খেলারও দরকার নেই। এটা বিশ্বের সেরা লিগ ফুটবলের প্রতিযোগিতা। আমি বুঝি না, স্পেনের ভক্তরাও কেন এর বিরুদ্ধে। তবে আমার কাছে সুপার লিগের আর কোন ভিত্তি নেই। 

প্রশ্ন: ফ্রান্স এবং ইউরোপের কোর্টে হাভিয়ের তেবাস (লা লিগা প্রেসিডেন্ট) মামলা করার হুমকি দিয়েছেন, আপনি কি একটু শঙ্কিত? 

আল খেলাইফি: তেবাস কে? এই নামের কাউকে আমি চিনি না। আমাদের স্টাইল অন্য ক্লাব, অন্য লিগ, অন্য ফেডারেশন নিয়ে নাক গলানো নয়। তবে অন্যরা আমাদের শিক্ষা দেবে এটা মেনে নেব না। অন্যরা কী বলে, তাতে আমার যায়-আসে না। অনেক বছর ধরেই আমরা একটা ফুটবল প্রজেক্ট তৈরি করতে চাচ্ছি। কে কী বললো, মিডিয়ায় কী আসলো এসব নিয়ে ভাবার সময় আমাদের নেই। 

প্রশ্ন: এমবাপ্পের নতুন চুক্তি কী ইউরোপিয়ান ফুটবলের ফেয়ার প্লে মেনে হয়েছে? 

আল খেলাইফি: প্রতি বছর, প্রতি দলবদলের মৌসুমে ওই একই কথা শুনতে হয়। তিনি (তেবাস) বলেন, আমি অন্যদের সম্মান করি না, ফেয়ার প্লে রক্ষা করি না। কিন্তু কাকে কিনবো, কাকে কিনবো না সেটা আমরা তার চেয়ে ভালো বুঝি। মেসির ক্ষেত্রেও একই কথা শুনতে হয়েছে এবং আমরা তাকে প্যারিসে এনে দেখিয়েছি। তার নিজের লিগে মন দেওয় উচিত কারণ লা লিগা ধুঁকছে। 

পিএসজি প্রেসিডেন্ট আল খেলাইফি। ছবি: ফাইল

প্রশ্ন: উপদেষ্টা হিসেবে লুইস ক্যাম্পোস আসায় কী এমবাপ্পে প্যারিসে থেকে গেছেন? 

আল খেলাইফি: ওহ, আরো একটি বিষয় পরিষ্কার করতে চাই, এমবাপ্পে কখনই ক্লাবের স্পোর্টিং সিদ্ধান্তে হস্তক্ষেপ করে না। কোচ কিংবা খেলোয়াড় কোন কিছু নিয়েই না। হ্যা, সে জিততে চায় এবং প্রজেক্ট নিয়ে মতামত প্রকাশ করে। সে কেবল খেলতে চায়, জিততে চায় এবং পরিকল্পনার অংশ হতে চায়। 

প্রশ্ন: ক্লাবে ক্যাম্পোসের অবদান কী হবে? 

আল খেলাইফি: তার কাজের ধরন অন্যদের থেকে আলাদা। তরুণ, মেধাবি, জিততে চান এবং পিএসজি ব্যাজের জন্য সবকিছু করতে পারেন। আমরা এখন শক্তিশালী হতে চাই, দল হয়ে খেলতে চাই। এটাই মূল উদ্দেশ্য। 

প্রশ্ন: নেইমার কি ভবিষ্যত প্রজেক্টের অংশ? 

আল খেলাইফি: এই সব বিষয় নিয়ে তো মিডিয়ার সামনে কথা বলতে পারবো না। নতুন প্রজেক্টে কেউ আসবে কেউ যাবে। এগুলো ক্লাবের অভ্যন্তরীণ আলোচনার বিষয়। 

গুঞ্জন আছে নেইমার পিএসজি নতুন প্রজেক্টের অংশ নন। ছবি: ফাইল 

প্রশ্ন: স্পেনে সবসময় পিএসজিকে স্টেট (রাষ্ট্রীয়) ক্লাব বলে সম্বোধন করা হয়, এটা কী আপনাকে বিরক্ত করে? 

আল খেলাইফি: স্পেনে আমাদের চেয়ে কিছু ক্লাব বেশি স্টেট সুবিধা পায়। শহরের মাঝখানে (মাদ্রিদ) দুর্দান্ত এক স্টেডিয়াম করে বসে আছে অথচ কোন অর্থ তার দরুণ সরকারকে দেওয়া হয় না। আমরা স্টেডিয়ামের জন্য, ট্রেনিং গ্রাউন্ডের জন্য অর্থ দেই। সবকিছুর জন্যই সরকারকে কর দেওয়া হয়।  

প্রশ্ন: পিএসজির ভবিষ্যত স্পোর্টিং প্রজেক্ট কেমন হবে? 

আল খেলাইফি: আমরা বিশ্বের সেরা স্পোর্টিং সিটি গড়ে তুলতে চাই। নতুন এমবাপ্পেদের খুঁজে বের করতে চাই, ফ্রান্স এবং প্যারিস অঞ্চলের সেরা প্রতিভাবানদের সুযোগ করে দিতে চাই। এটাই আমাদের লক্ষ্য।