প্রাকৃতিক দুর্যোগ দেখা না দিলে বুধবারের সংবাদ সম্মেলনটি হতো সিলেটে। কিন্তু বন্যার কারণে সিলেটের পরিবর্তে ঢাকায় হচ্ছে বাংলাদেশ ও মালয়েশিয়ার মধ্যকার দুটি প্রীতি ফুটবল ম্যাচ। কমলাপুর বীরশ্রেষ্ঠ সিপাহি মোস্তফা কামাল স্টেডিয়ামে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৬টায় মালয়েশিয়ার মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ নারী দল। 

ঘরের মাঠে এই প্রথম কোনো দ্বিপক্ষীয় সিরিজ খেলছেন সাবিনা খাতুনরা। তবে ম্যাচের আগের দিন বাফুফে ভবনে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে বানভাসি মানুষের কথা উঠে এসেছে। তাই তো দুটি প্রীতি ম্যাচ থেকে টিকিট বিক্রি করে যে অর্থ আয় হবে, তার পুরোটাই সিলেটের বন্যার্তদের দিয়ে দেবে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন।

বয়সভিত্তিক প্রতিযোগিতায় সারাবছরই খেলে থাকে বাংলাদেশের মেয়েরা। কিন্তু জাতীয় দলের খেলা হয় টুর্নামেন্ট সামনে এলে। এবারই প্রথম ঘরের মাঠে দ্বিপক্ষীয় কোনো সিরিজ খেলতে নামছেন সাবিনা খাতুনরা। যাঁরা আছেন, তাঁদের বেশিরভাগই বয়সভিত্তিক বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় খেলে থাকেন। তাঁদের সঙ্গে অভিজ্ঞ কয়েকজনের সংমিশ্রণে গড়া বাংলাদেশ দল মালয়েশিয়ান মেয়েদের হারানোর স্বপ্নও দেখছে। 

হোক না প্রীতি ম্যাচ; এ দুটি ম্যাচে জিতলে র‌্যাঙ্কিংয়েও যে উন্নতির ধারায় ফিরবে গোলাম রব্বানী ছোটনের দল। বর্তমানে র‌্যাঙ্কিংয়ে মালয়েশিয়ার (৮৫) চেয়ে ৬১ ধাপ পেছনে বাংলাদেশ (১৪৬)। তাই জয়ের সঙ্গে ফোকাসটা র‌্যাঙ্কিংয়েরও। 

বুধবার এমনটাই জানিয়েছেন নারী দলের অধিনায়ক সাবিনা খাতুন, 'র‌্যাঙ্কিং আসলে কিছু কিছু সময় ম্যাটার করে আবার কিছু কিছু সময় আমাদের মনে হয় মাঠের পারফরম্যান্সটাই অনেক বড় বিষয়। আমাদের আসলে ফোকাসটা র‌্যাঙ্কিংয়ে। কারণ, র‌্যাঙ্কিংয়ে উন্নতি করার ভালো সুযোগ এটি। দুটি ম্যাচ খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আমাদের ফুল ফোকাস থাকবে দেশের মানুষকে ভালো ফুটবল উপহার দেওয়া। আমাদের একটা ভালো র‌্যাঙ্কিংয়ে ফিরে আসা।' 

ম্যাচের জন্য বাংলাদেশ সবদিক থেকে প্রস্তুত বলে জানিয়েছেন প্রধান কোচ গোলাম রব্বানী ছোটন। এবার মেয়েদের মনস্তাত্ত্বিক দিক নিয়ে বেশি কাজ হয়েছে বলে জানান বাংলাদেশ কোচ, 'বয়সভিত্তিক খেলোয়াড়সহ মোট ৩৮ ফুটবলার নিয়ে আমরা প্রস্তুতি শুরু করি। আমাদের আসলে বেশি জোর দেওয়া হয়েছে মানসিকতার দিকে। উজবেকিস্তানে জর্ডান ও ইরানের সঙ্গে আমরা প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ ম্যাচ খেলেছিলাম এবং কিছু ছোট ভুলের জন্য আমাদের ব্যবধানটা বেড়ে যায়। সেটা নিয়ে কাজ হয়েছে। আমরা এখন খুব ভালো অবস্থায় আছি।'

২০২১ সালে পাঁচটি আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলেছে বাংলাদেশ। সে হিসেবে মালয়েশিয়ার মেয়েরা খুব বেশি ম্যাচ খেলেনি। র‌্যাঙ্কিংয়ে এগিয়ে থাকলেও বাংলাদেশকে সমীহ করছেন দলটির অধিনায়ক স্টেফি, 'বাংলাদেশ ভালো একটা দল। তারা ভারতকে হারিয়েছে। আমরা জানি ম্যাচটা অনেক কঠিন হবে।'