অন্য ম্যাচের মতো ওপেনার তামিম ইকবাল ভালো শুরু পেয়েছিলেন। কিন্তু উইকেট ছেড়ে ছক্কা মারতে গিয়ে ফিফটির আগে ক্যাচ দিয়েছেন তিনি। নাজমুল শান্ত এবং এনামুল হক শুরু পেয়ে ব্যর্থ হয়েছেন। ফিফটি বড় করতে পারেননি লিটন দাস। 

বাংলাদেশ ব্যাটিং কোচ জেমি সিডন্সের মতে, ধৈর্য হারিয়েছে ব্যাটাররা। শুরু পেয়েও এগিয়ে নিতে পারেনি। বল ছাড়তে পারেনি ঠিক মতো। শেষ পর্যন্ত টেলেন্ডারদের দৃঢ়তায় দল ২৩৪ রান পেলেও অভিজ্ঞ কোচের কাছে, উইকেট বিবেচনায় ওটা কোন রানই মনে হচ্ছে না। ওয়েস্ট ইন্ডিজের ১৬ ওভারে কোন উইকেট না হারিয়ে ৬৭ রান করা তারই প্রমাণ। 

প্রথম দিন ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে সিডন্স বলেছেন, ‘আমি মনে করি, আমাদের আরও ধৈর্য্য ধরে খেলতে হতো, আরও বেশি বল ছাড়তে হতো। অনুশীলনে গত এক সপ্তাহ ধরে বল ছাড়ার অনুশীলনই করেছি। ওরা ভালো বোলিং করেছে। তবে আমরা ব্যাটিং ভালো করিনি। এই উইকেটে ২৩০ রান খুবই কম।’ 

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে টেস্ট সিরিজে সাকিব বলেছিলেন, বাংলাদেশ দল অধিকাংশ সময় ফিল্ডিংই করে। সিডন্সও তেমনই বললেন, টেস্টে যেহেতু অনেক সময় পরে ব্যাট করার সুযোগ মেলে, তিনি তাই সুযোগ পেলে দীর্ঘ সময় ব্যাটিংয়ের পরামর্শ দিয়েছেন। তামিম-লিটন সেট হলেও দলকে রান এনে দিতে পারেননি বলেও উল্লেখ করেন ব্যাটিং কোচ। 

সিডন্স বলেন, ‘সম্ভবত আম্পায়ারের কিছু সিদ্ধান্ত আমাদের বিপক্ষে গেছে। তবে আমরা এখন অনেক পিছিয়ে আছি। প্রথম টেস্টে অনেক সুইং ছিল। কিন্তু এখানে তেমনটা ছিল না। শুরুতে ব্যাট করলে চাপ থাকে। সেটা আমরা সামলেও উঠেছিলাম। আমাদের রানটা ৪০০ হওয়া উচিত ছিল।’