র‌্যাঙ্কিংয়ে কী যায় আসে! বাংলাদেশ থেকে ৬১ ধাপ এগিয়ে মালয়েশিয়ার মেয়েরা। প্রথম ম্যাচে নামার আগে খানিকটা চিন্তা ছিল সাবিনাদের মাথায়। কিন্তু প্রচণ্ড জেদ আর জয় করার ইচ্ছাশক্তিতে ঠিকই মালয়েশিয়াকে করল ৬-০ গোলে বিধ্বস্ত। 

রোববার দ্বিতীয় ম্যাচে মুখোমুখি হবে দুই দল। মাঠে নামার আগে সানজিদা দিয়ে রাখলেন হুংকার, 'নিজেদের প্রতি বিশ্বাস ছিল আমরা পারবই। দ্বিতীয় ম্যাচে লক্ষ্য থাকবে আরও ভালো পারফরম্যান্স করার।'

শুধু হাফ ডজন নয়, আরও ভালোভাবে জিততে চায় বাংলাদেশ। তেমনটা হলে আরও একটি গোল উৎসব করার সুযোগ পাবেন মেয়েরা। প্রথম ম্যাচে জোড়া গোল করেছিলেন আঁখি খাতুন; একটি করে গোল সাবিনা খাতুন, সিরাত জাহান স্বপ্টম্না, মনিকা চাকমা ও কৃষ্ণা রানী সরকারের। আজ দ্বিতীয় ম্যাচেও তাঁদের দিকে তাকিয়ে থাকবে বাংলাদেশ দল।

মালয়েশিয়া নারী দলের অনুশীলন। ছবি: বাফুফে

দুটি ম্যাচই হওয়ার কথা ছিল সিলেটে। কিন্তু বন্যার কারণে সিলেটের পরিবর্তে ঢাকায় হচ্ছে ম্যাচগুলো। কমলাপুর বীরশ্রেষ্ঠ সিপাহী মোস্তফা কামাল স্টেডিয়ামে রোববার সন্ধ্যা ৬টায় শুরু হবে আজকের ম্যাচটি। প্রীতি ম্যাচ হলেও র‌্যাঙ্কিংয়ে এগিয়ে যাওয়ার সুযোগ রয়েছে বাংলাদেশের সামনে। প্রথম ম্যাচ জেতায় কাজটা অনেকখানি হয়ে গেছে। 

এখন দ্বিতীয় ম্যাচটা জয় দিয়ে রাঙাতে পারলে র‌্যাঙ্কিংয়ে লম্বা লাফই দিতে পারবে গোলাম রব্বানী ছোটনের দল। আরেকটি দিক থেকে এই দুই ম্যাচ একটু বেশিই গুরুত্বপূর্ণ। 

ঘরের মাঠে এই প্রথম কোনো দ্বিপক্ষীয় সিরিজ খেলছেন মেয়েরা। বছরের সিংহভাগ সময়ই বয়সভিত্তিক প্রতিযোগিতা ব্যস্ত থাকেন তারা। তা ছাড়া দুই প্রীতি ম্যাচ থেকে টিকিট বিক্রি করে যে অর্থ আয় হবে, তার পুরোটাই সিলেটের বন্যার্তদের দিয়ে দেবে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন।