সেন্ট লুসিয়া থেকে উত্তাল আটলান্টিক পাড়ি দিয়ে ডমিনিকায় এসেছিলেন বাংলাদেশ দলের ক্রিকেটার-স্টাফরা। টেস্টে দলের পারফরম্যান্স যেমন ভয়ঙ্কর ছিল ওই সমুদ্রযাত্রাও ছিল ভয়াবহ। 

বাংলাদেশ দলের অ্যাওয়ে ট্যুরকে ‘শিক্ষা সফর’ বলে কটাক্ষ করলেও ওই সমুদ্রযাত্রা আর সফরে সীমাবন্ধ ছিল না। পাঁচ ঘণ্টার যাত্রায় অসুস্থ হয়ে গিয়েছিলেন ক্রিকেটাররা। একাধিক ক্রিকেটার বমি করেছিলেন, কেউ কেউ লবিতে শুয়ে পড়েছিলেন। 

ওই যাত্রার পরদিনই মাঠে নেমে পড়তে হয় রাসেল ডমিঙ্গোর শিষ্যদের। তবে বৃষ্টিতে থেমে থেমে বাংলাদেশের ১৩ ওভার ব্যাটিংয়ের বেশি গড়ায়নি। ম্যাচ পরিত্যক্ত হয়। পরের ম্যাচে ওয়েস্ট ইন্ডিজ দাপুটে ব্যাটিং করে ১৯৩ রান তুলে বাংলাদেশকে ৩৫ রানে হারিয়েছে। 

এবার ভয়াবহ যাত্রা, বড় হারের ধাক্কা সামলে ওঠার একটু ফুসরত পাচ্ছেন ক্রিকেটাররা। সোমবার সিরিজের শেষ টি-২০ ও তিন ম্যাচের ওয়ানডে খেলার জন্য গায়ানা যাত্রা করেছেন ক্রিকেটাররা। বিমানে করেই নেওয়া হচ্ছে তাদের। বিসিবি এক ভিডিও বার্তায় নিশ্চিত করেছে বিষয়টি।  

সিরিজের শেষ টি-২০ ম্যাচ মাঠে গড়াবে ৭ জুলাই বাংলাদেশ সময় রাত সাড়ে ১১টায়। হারের ধাক্কা সামলানোর ও প্রস্তুত হওয়ার জন্য তাই মাহমুদুল্লাহরা সময় পাবেন। এরপর গায়ানায় ১০, ১৩ ও ১৬ জুলাই তিন ম্যাচের ওয়ানডে খেলবে বাংলাদেশ-ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ওই সিরিজটি ওয়ানডে সুপার লিগের অংশ নয়।