কাতার বিশ্বকাপে দেখা যাবে জেরার্ড পিকেকে? স্পেনের কোচ লুইস এনরিখে নাকি তেমনটাই চাইছেন। স্পেনের প্রভাবশালী সাংবাদিক জেরার্ড মরেনোর বরাত দিয়ে বেশ কয়েকটি আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম এমন সংবাদ দিয়েছে। 

চার বছর আগে জাতীয় দল থেকে অবসর নিয়েছেন স্পেনের রক্ষণভাগের এই সেনানি। তাকে ফেরাতে অবশ্য বেশ কাঠখড় পোড়াতে হবে। তবে ডেইলি মেইল দাবি করেছে, ডাক পড়লে পিকেও নাকি ফিরতে প্রস্তুত। 

২০১৮ রাশিয়া বিশ্বকাপে বাজে ফলাফলের জেরে স্পেন জাতীয় দল থেকে অবসর নিয়েছিলেন জেরার্ড পিকে। লম্বা সময় জাতীয় দলে নেই তিনি। ২০১৯ সালের ২৫ মার্চ কাতালুনিয়ার হয়ে ভেনেজুয়েলার বিপক্ষে একটি প্রীতি ম্যাচে অংশ নিয়েছিলেন সর্বশেষ।

এনরিখের ঘনিষ্ঠ সূত্রের উদ্ধৃতি দিয়ে জেরার্ড মরেনো দাবি করেছেন, রক্ষণের দুর্বলতা ঢাকতে পিকেকে জাতীয় দলে ফেরাতে চাইছেন কোচ। পিকের ওপর ভীষণ আস্থা এনরিখের। বার্সেলোনার বেশ লম্বা সময় পিকেকে কোচিং করানোর সময়ই দু'জনের মধ্যে দারুণ সম্পর্ক গড়ে ওঠে। 

তবে ২০১০ বিশ্বকাপ জয়ী এই ডিফেন্ডারকে জাতীয় দলে ফিরতে হলে বেশ কিছু চ্যালেঞ্জ নিতে হবে কোচকে। পিকের বয়স এখন ৩৫। গত মৌসুমে বার্সার হয়ে মোটামুটি পারফর্ম করেছেন, গতি অনেকটাই কমে গেছে, বয়সের ছাপটা প্রায়ই চোখে পড়েছে। সঙ্গে চোটও বেশ ভুগিয়েছে। 

কাতার বিশ্বকাপের আর খুব বেশি সময় নেই। ফিরতে হলে দ্রুত এই ডিফেন্ডারকে সিদ্ধান্তে আসতে হবে। লুইস এনরিকের অধীনে স্পেনের রক্ষণভাগ অবশ্য মোটেও দুর্বল নয়। সেন্ট্রাল ডিফেন্সে ভিয়ারিয়ালের পাও তোরেস, ম্যানসিটির আইমেরিক লাপোর্তা, বার্সার এরিক গার্সিয়ার মতো তরুণরা হাল বেশ ভালোই ধরে রেখেছেন।