দুই-একটা দল ছাড়া ইউরোপের শীর্ষ পর্যায়ের ক্লাবগুলোর নতুন মৌসুমের দল গোছানো শেষ। বড় বড় বেশ কিছু তারকা দলবদল করেছেন। কিলিয়ান এমবাপ্পে, উসমান ডেম্বেলের মতো ফুটবলার জল ঘোলা করে পূর্বের ক্লাবে থেকে গেছেন। ফুটবলার কেনা-বেচার বাজার ভাঙার আগেও বড় কিছু তারকা ক্লাব বদলাতে পারেন। 

এখনও বাজারে ঘুরছে ম্যানইউ: নতুন প্রজেক্ট দাঁড় করানোর পরিকল্পনা ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের। তারা কোচ নিয়োগ দিয়েছে এরিক টেন হ্যাগকে। কিন্তু দল গোছানো শেষ হয়নি তার। মিডফিল্ডে বার্সার ফ্রেঙ্কি ডি জংকে চান কোচ। রাইট উইঙ্গে চান আয়াক্সের অ্যান্তোনিওকে। কিন্তু কাউকে পাবেন কিনা নিশ্চিত নয়। ওদিকে রোনালদো ক্লাব ছাড়তে চান। দরজা বন্ধ হওয়ার আগে যা কিছু ঘটতে পারে। 

বার্সার কেনা-বেচা এখনও বাকি: চারটি বড় সাইনিং করে ফেলেছে বার্সেলোনা। রাফিনহা, লেভানডস্কিকে কিনেছে ক্লাবটি। ফ্রিতে এনেছে ক্রিস্টেনসেন এবং ফ্রাঙ্ক কেসিকে। এখনও চার তারকায় চোখ কাতালান ক্লাবটির। রক্ষণে জুলেন কুন্দে, সিজারে আজপিকুয়েটা এবং মার্কোস আলোনসোর ব্যাপারে খোঁজ রাখছেন জাভি। মিডফিল্ডে কোচের পছন্দ ম্যানসিটির বেনার্ড সিলভাকে। 

ওদিকে বার্সার আর্থিক অবস্থা ভালো নয়। সেজন্য শুধু কিনলে হবে না। কিছু খেলোয়াড় হটাতে হবে তাদের। স্ট্রাইকার মেস্পিস ডিপাই, মার্টিন ব্রাথওয়েট, মিডফিল্ডার রিকি পুচ, মিরালিম পিয়ানিচ, ডিফেন্ডার স্যামুয়েল উমতিতি, অস্কার মিনগুয়েজা আছেন ওই বিক্রির তালিকায়। 

চেলসির ভাঙা দল গড়ার চ্যালেঞ্জ: চেলসি বেশ কিছু নির্ভরযোগ্য ফুটবলার হারিয়েছে। ডিফন্ডার রুডিগার, ক্রিস্টেনসেট গেছেন। স্ট্রাইকার লুকাকু নেই। ক্লাব ছাড়তে পারেন স্ট্রাইকার টিমো ওয়ার্নার। ওই জায়গা পূরণে চেলসি জুলেন কুন্দে, নেইমার জুনিয়র এবং ভিক্টর ওসিমানকে বাজার ভাঙার আগে দলে ভেড়াতে পারে।