বার্মিংহাম; বিশ্বের প্রথম ম্যানুফ্যাকচারিং শহর। এখানকার শিল্পকারখানায় উৎপাদিত নামিদামি ব্র্যান্ডের পণ্যের বেশ কদর ইউরোপসহ গোটা বিশ্বে। সেই শিল্পনগরীতে এবার ক্রীড়াঙ্গনের মিলনমেলা- কমনওয়েলথ গেমস। যেখানে পা দিতেই চোখে পড়বে রং-বেরঙের ব্যানার, ফেস্টুন। যার একটিতে লেখা- 'ওয়েলকাম টু কমনওয়েলথ গেমস'। সবমিলিয়ে বার্মিংহাম যেন ১২ দিনের জন্য সেজেছে ক্রীড়ার সাজে।

চোখজুড়ানো ছোট্ট লেকের পাশেই মূল কেন্দ্রস্থল। অর্থাৎ মেইন প্রেস হ্যাব। যেখানে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের সংবাদকর্মীরা গেমসের নানা খবর তুলে ধরতে জড়ো হয়েছেন। অলিম্পিকের পর বিশ্বের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ক্রীড়া আসর ২২তম কমনওয়েলথ গেমস আয়োজনের জন্য এক কথায় প্রস্তুত ইংল্যান্ড। ১২ দিনের এ মহাযজ্ঞের শুরুতে পুরো বিশ্বকে তাক লাগিয়ে দিতে চায় আয়োজকরা। অতীতকে ছাপিয়ে জমকালো উদ্বোধন অনুষ্ঠানের চ্যালেঞ্জ নিয়েছে ইংলিশরা। অনুষ্ঠানে নাচে গানে মুগ্ধতা ছড়ানোর সঙ্গে বার্মিংহামের কৃষ্টি ও সংস্কৃতি তুলে ধরতে প্রতিনিয়ত ঘাম ঝরাচ্ছে আয়োজকরা।

বৃহস্পতিবার যে স্টেডিয়ামে হবে আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন, সেই আলেকজেন্ডারে চলছে শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতি। যেখানে মহড়ায় ব্যস্ত শিল্পী এবং কলাকুশলীরা। 'জাঁকজমক এবং প্রাণবন্ত' স্লোগানে ১২ দিনের এই মহাযজ্ঞের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করবেন ইংল্যান্ডের যুবরাজ প্রিন্স চার্লস। এক বছর ধরে বিশ্বব্যাপী ঘোরা কমনওয়েলথ গেমসের কুইন্স ব্যাটনটি আজ তুলে দেওয়া হবে তাঁর হাতে। নানা আনুষ্ঠানিকতার সঙ্গে গেমস আয়োজক কমিটির পরিচালক ইকবাল খানের উপস্থাপনায় বার্মিংহামের ঐতিহ্যবাহী ব্যান্ড 'ডুরান ডুরান' সংগীত পরিবেশন করবে। প্রায় ৩০ হাজার দর্শকের উপস্থিতিতে উদ্বোধন অনুষ্ঠান শুরু হবে বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ সময় রাত ১২টায়। সাড়ে তিন ঘণ্টার এ আয়োজনে আর কী কী থাকছে, তা গোপন রেখেছেন আয়োজকরা। এমন আয়োজনে ৭২টি দেশের সঙ্গে মার্চপাস্টে বাংলাদেশের পতাকা বহন করবেন ভারোত্তোলক মাবিয়া আক্তার সীমান্ত। অবশ্য পতাকা বহনের জন্য বক্সার সুর কৃষ্ণ চাকমার নামও দিয়েছে বাংলাদেশ অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশন (বিওএ)। যদি শেষ মুহূর্তে মাবিয়া কোনো কারণে মার্চপাস্টে অংশ নিতে না পারেন, তাহলেই কিনা সুর কৃষ্ণের হাতে থাকবে লাল-সবুজের পতাকা।

বড় আয়োজনে বরাবরই সফল ইংল্যান্ড। ২০১২ সালে লন্ডনে হয়েছিল অলিম্পিক গেমস। কমনওয়েলথের ২২তম আসরের মধ্যে এবার নিয়ে তৃতীয়বার রানীর দেশে হচ্ছে ক্রীড়াঙ্গনের মিলনমেলা। ২০০২ সালে ম্যানচেস্টারের পূর্বে প্রথমটি তারা আয়োজন করেছিল ১৯৩৪ সালে লন্ডনে। রাজধানীর বাইরের এ প্রতিযোগিতা আয়োজনে বড় চ্যালেঞ্জ ছিল করোনাভাইরাস এবং অবকাঠামো। এক সময় করোনার কারণে আর্থিকভাবে বিপর্যস্ত হয়ে পড়া যুক্তরাজ্যের জীবনযাত্রা প্রায় স্বাভাবিক। বার্মিংহামের প্রথম বড় কোনো ক্রীড়া আসরে নতুন সংযোজন নারী ক্রিকেট। মালয়েশিয়ায় কমনওয়েলথ গেমস বাছাইয়ের ফাইনালে শ্রীলঙ্কার কাছে পরাজয়ে প্রথমের সঙ্গে যুক্ত হতে পারেনি বাংলাদেশ নারী দল। উদ্বোধন বাদ দিলে ১২ দিনের গেমসের আসল লড়াই হবে ১১ দিন। যেখানে ২৮০টি স্বর্ণের জন্য লড়বেন ৭২টি দেশের ৫ হাজার ৫০৪ ক্রীড়াবিদ। ১৯৩০ সালে শুরু হওয়া কমনওয়েলথ গেমসে আধিপত্য অস্ট্রেলিয়ার। এবার ঘরের মাঠে প্রতিযোগিতা বলে অস্ট্রেলিয়ানদের পেছনে ফেলার আশা ইংল্যান্ডের। স্বর্ণ, রৌপ্য এবং ব্রোঞ্জ পদক নিয়ে যেখানে ভাবছে অন্যরা, বাংলাদেশের ক্রীড়াবিদদের ভাবনায় অতীতের চেয়ে ভালো করা। অ্যাথলেটিকস, বক্সিং, জিমন্যাস্টিকস, সুইমিং, ভারোত্তোলন, রেসলিং এবং টেবিল টেনিস ইভেন্টে অংশ নেবেন লাল-সবুজের ক্রীড়াবিদরা। বার্মিংহাম শহরে পর্যাপ্ত অবকাঠামো না থাকায় শুটিং ইভেন্ট নেই এবারের আসরে; যা বাংলাদেশের জন্য হতাশাজনক। কারণ, অতীতে বাংলাদেশের পদকগুলো এই শুটিং থেকেই এসেছিল।

বিষয় : কমনওয়েলথ গেমসের উদ্বোধন আজ

মন্তব্য করুন