রাজনৈতিক এবং অথনৈতিকভাবে বিপর্যন্ত্ম শ্রীলংকান অ্যাথলেটরা ওঠছেণ পদকের মঞ্চে। আর বাংলাদেশের অ্যাথলেটরা মূল লড়াইয়ের আগেই ছিটকে যাচ্ছেন। বার্মিংহাম কমনওয়েলথ গেমসে জিমন্যাস্টিকস, সাঁতার, ভারোত্তোলন, বক্সিংয়ে বাংলাদেশের ক্রীড়াবিদরা দেখিয়েছেন ব্যর্থতার চূড়ান্ত্ম প্রদশীর্ন। তাদের সঙ্গে যোগ হয়েছে ট্র্যাক এন্ড ফিল্ডের ইভেন্ট অ্যাথলেটিক্সও। যাকে ঘিরে প্রত্যাশা ছিল লন্ডন প্রবাসী ইমরানুর ১০০ মিটার স্প্রিন্টে হিট থেকেই নেন বিদায়।

বৃহস্পতিবার আলেক্সজান্ডার স্টেডিয়ামে ২০০ মিটার দৌড়ে পূর্বসরীদের মতো হিটেই শেষ হয়েছে রাকিবুল হাসানের প্রথম আন্ত্মর্জাতিক মিট। করোনা ধাক্কা সামলে ট্র্যাকে নামা রাকিবুল ২২.৪৬ সেকেন্ড দৌড় শেষ করে নিজের হিটে আটজনের মধ্যে হয়েছেন সপ্তম। ২০.৩০ সেকেন্ড সময় নিয়ে তার হিট থেকে পরের রাউন্ডে ওঠেছেন ইংল্যান্ডের ঝারনেল হিউজেস। সবমিলিয়ে ৫৭ জনের মধ্যে বাংলাদেশের এ অ্যাথলেটের অবস্থান ৪৯তম।

গতকালকের দিনটি ভুলে যেতে চাইবেন উম্মে হাফসা রম্নমকী। মেয়েদের হাইজাম্পে ঠিকমতো লাফাতে পারেননি তিনি। প্রথম তিনবারই লাফাতে ব্যর্থ হওয়া রম্নমকীর অবস্থান বাছাইপর্বে ১৮ জনের মধ্যে সবার শেষে। তিনি ১.৬৬ মিটার উচ্চতায় লাফিয়েছেন।

কমনওয়েলথ গেমসে বাংলাদেশের যা একটু প্রাপ্তি টেবিল টেনিস থেকে। আজ কুস্ত্মির মাধ্যমে শেষ হচ্ছে বাংলাদেশ দলের ভ্রমন বিলাস।