মৌসুমের শুরুতেই নর্থ লন্ডন ডার্বি। স্টামফোর্ড ব্রিজে মুখোমুখি চেলসি এবং টটেনহ্যাম। ওই ম্যাচে দারুণ কামব্যাক দেখিয়ে ২-২ গোলের সমতা নিয়ে মাঠ ছাড়ে কন্তে ও টুখেলের দল। 

ম্যাচ শেষে করমর্দন করতে গিয়ে দু’জনের হাতাহাতি শুরু হয়। টুখেল স্পার্স বস কন্তের হাত চেপে ধরেন। দুই পক্ষ তেড়ে আসে। দু’জনকেই লাল কার্ড দেখান রেফারি। অথচ ম্যাচ শেষে টুখেল ও কন্তে দাবি করেছেন, ওই মল্লযুদ্ধ খারাপ কিছু নয়। বরং দু’জনই উপভোগ করেছেন। 

সংবাদ সম্মেলনে টুখেল বলেন, ‘প্রতিদ্বন্দ্বীতা ভীষণ উপভোগ করেছি। আমার বিশ্বাস, তিনিও উপভোগ করেছেন। আসলে এতে খারাপ কিছু নেই। সত্যিকার অর্থে বিষয়টি নিয়ে খারাপ লাগছে না। আমরা দলের জন্য লড়েছি, এমন প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ ম্যাচে এমনটা হতেই পারে।’

টটেনহাম বস কন্তে বলেন, 'আমারও মনে হয়, এমনটা হয়েই থাকে। আমরা বিষয়টি উপভোগ করেছি। তবে পরেরবার আরও সতর্ক থাকতে হবে। করমর্দন করব না, সমস্যা মেটানোর চেষ্টা করবো আগে।’ 

করমর্দন উপভোগ্য বলে চালিয়ে দিলেও কন্তে ডাগআউটে তার জায়গায় টুখেলের উদযাপন করতে চলে আসা ঠিক মনে হয়নি, ‘তিনি আমাদের বেঞ্চে চলে এসেছিলেন। এমনটা না ঘটলেই আমি খুশি হবো।' পরে কন্তে ইনস্টাগ্রাম লেখেন, 'ভাগ্য ভালো যে আমি দেখতে পাইনি। নাহলে ল্যাং খেতেন।’