ভারতকে ফুটবল থেকে নিষিদ্ধ করেছে বিশ্ব ফুটবলের নিয়ন্ত্রক সংস্থা ফিফা। ফুটবলীয় কার্যক্রমে তৃতীয় পক্ষের প্রভাব খাটানোর অভিযোগে ভারতীয় ফুটবলের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থা অল ইন্ডিয়া ফুটবল ফেডারেশন (এআইএফএফ) এই শাস্তির কবলে পড়ে। এক বিবৃতিতে বিষয়টি নিশ্চিত করে ফিফা। এর ফলে অনূর্ধ্ব-১৭ মেয়েদের বিশ্বকাপ ফুটবল আয়োজন অনিশ্চয়তার মধ্যে পড়ল।

তবে এমন সিদ্ধান্তকে নিজ দেশের খেলাধুলাকে সুশৃঙ্খল করার সুযোগ হিসেবে দেখছেন ভারতের স্পোর্টিং আইকন ও কিংবদন্তি ফুটবলার বাইচুং ভুটিয়া। তিনি বলেন, 'ভারতীয় ফুটবলকে ফিফার দেয়া নিষেধাজ্ঞা খুবই দুর্ভাগ্যজনক। আমি মনে করি এটি অত্যন্ত কঠোর সিদ্ধান্ত। একইসঙ্গে মনে করি এ ঘটনা আমাদের পদ্ধতি সঠিক করার জন্য দারুণ এক সুযোগও।'

সংবাদ সংস্থা পিটিআইকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে বাইচুং বলেন, 'আমি বলতে চাই যে, এটা আমাদের সিস্টেম ঠিক করে নেওয়ার একটা দারুণ সুযোগও। এটা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ যে, সকল অংশীদার, ফেডারেশন, রাজ্য সংস্থা সিস্টেম ঠিক করে ভারতীয় ফুটবলের উন্নতির জন্য এক সঙ্গে কাজ করুক।'

দেশটির জাতীয়তাবাদী কংগ্রেস পার্টির নেতা ও মহারাষ্ট্রের রাজ্যসভার সদস্য প্রফুল প্যাটেল অল ইন্ডিয়া ফুটবল ফেডারেশনের (এআইএফএফ) সভাপতির পদে ছিলেন। মেয়াদ উত্তীর্ণ হওয়ার পরেও এআইএফএফ-এর সভাপতির পদে থাকায় বিপাকে পড়ে দেশের ফুটবলের সর্বোচ্চ সংস্থা। নিয়ম অনুযায়ী নির্বাচন না হওয়ায় পূর্ববর্তী কমিটি এবং তার সভাপতি প্রফুলকে সরিয়ে দেয় সুপ্রিম কোর্ট এবং নিযুক্ত করে সিওএ।

এটাকে ভালোভাবে দেখেনি ফিফা। ফুটবলের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থা ফিফা কখনও কোনও দেশের ফুটবল সংস্থার উপর রাজনৈতিক বা সরকারি হস্তক্ষেপ বরদাস্ত করে না। একই কারণে ফিফা নিষিদ্ধ করে দিয়েছিল পাকিস্তানকেও।

নিষেধাজ্ঞার ফলে ভারতের জাতীয় ও বয়সভিত্তিক দলগুলো আন্তর্জাতিকভাবে কোনো ম্যাচ খেলতে পারবে না। দেশটির কোনো ঘরোয়া টুর্নামেন্ট এএফসি বা ফিফার স্বীকৃতি পাবে না।