ভারত-পাকিস্তানের ক্রিকেট লড়াই পুরনো। পূর্বে দুই দলের ক্রিকেটারদের মধ্যে দা-কুমড়ো সম্পর্কের ঘটনা ছিল। শহীদ আফ্রিদির সঙ্গে বনিবনা হতো না গৌতম গম্ভীরের। হরভজন সিংয়ের সঙ্গে দ্বন্দ্ব বেধেছে শোয়েব আখতারের। 

তবে বাবর আজম-বিরাট কোহলি, রোহিত শর্মা-শাহিন আফ্রিদিদের সম্পর্ক বেশ বন্ধুত্বপূর্ণ। মাঠে দুই দল জয়ের জন্য যুদ্ধ করে। তবে একে অপরের প্রতি পারস্পারিক সম্মান আছে। পাকিস্তানের বিপক্ষে এশিয়া কাপের সুপার ফোরে ৫ উইকেটে হারের পর এমনটাই বলেছেন বিরাট কোহলি। 

তিনি বলেন, ‘বাবর আজমসহ পাকিস্তানের অন্য ক্রিকেটারদের সঙ্গে আমাদের সম্পর্ক খুবই ভালো। তাদের সঙ্গে আমাদের সম্পর্ক বন্ধুত্বপূর্ণ। গত বছরের বিশ্বকাপেও দেখেছি। তাদের সঙ্গে আমাদের লড়াইটা খুবই প্রতিদ্বন্দ্বীতাপূর্ণ। কিন্তু একে-অপরের প্রতি পারস্পারিক সম্মান আছে।’ 

সাবেক ভারতীয় অধিনায়ক বিরাট কোহলি পাকিস্তান ব্যাটার বাবর আজমের প্রশংসাও করেছেন। কোহলির মতে, বাবর ভালো ছেলে। তার সঙ্গে খুবই ভালো আলাপ-আলোচনা হয় তার। বয়সে বাবর ছোট হওয়ায় হয়তো ওই পর্যায়ের আত্মীক সম্পর্ক নেই। তবে সম্মানবোধ আছে। বাবর শিখতে খুবই আগ্রহী বলেও মন্তব্য করেছেন কোহলি। 

তিনি বলেন, ‘সে খুবই প্রতিভাবান এবং শিখতে উন্মুখ। ২০১৯ বিশ্বকাপের পরে তার সঙ্গে আমার কথা হয়েছিল। আমি তিন ফরম্যাটে তার পারফরম্যান্স দেখে মোটেও বিস্মিত না। তার সঙ্গে দেখা হলে সবসময়ই ভালো লাগে।’ 

নিজের ব্যাটিং এবং ফর্মে ফেরা নিয়েও কথা বলেছেন সাবেক ভারতীয় অধিনায়ক বিরাট। জানান যে, শারীরিক বিশ্রামের চেয়ে তার মানসিক বিশ্রাম দরকার ছিল বেশি। এক মাস ব্যাট ধরবেন না, এটা তিনি ভাবতেই পারেননি। কিন্তু প্রয়োজনের তাগিদে সেটা করেছেন। এছাড়া টেস্ট নেতৃত্ব ছাড়ার পরে এমএস ধোনি ছাড়া কেউ তাকে ফোন করেনি বলেও মন্তব্য করেছেন বিরাট।