ইকুয়েডরের কাতার বিশ্বকাপ যাত্রা ঠেকাতে উঠেপড়ে লেগেছিল চিলি। ফুটবলের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থা- ফিফার কাছে পরপর দুবার অভিযোগ করেও নিরাশ হয়েছে দেশটি। চিলির অভিযোগ আমলে নেয়নি ফিফা। তাই বিশ্বকাপ খেলতে বাধা নেই ইকুয়েডরের। দ্বিতীয় বারের মতো ইকুয়েডরের বিরুদ্দে চিলির করা আবেদন খারিজ করে দিয়েছে ফিফা। এক বিবৃতিতে চিলির আপিলের প্রেক্ষিতে নিজেদের সিদ্ধান্ত জানায় ফিফা।

চিলি অভিযোগ তুলেছিল, কাস্তিলো কলম্বিয়ান নাগরিক হয়েও জালিয়াতির মাধ্যমে ইকুয়েডরের হয়ে বিশ্বকাপ বাছাই পর্ব খেলেছেন। ফিফার আইনে বলা আছে, অযোগ্য খেলোয়াড় মাঠে নামালে শাস্তি হিসেবে পয়েন্ট কেটে নেয়া হবে। সেই হিসেবে বিশ্বকাপ বাছাইয়ে কাস্তিলোর খেলা ৮টি ম্যাচেই প্রতিপক্ষের কাছে পয়েন্ট খোয়াতে হতো ইকুয়েডরকে। এতে বিশ্বকাপ থেকেই ছিটকে যেতো তারা। 

অন্যদিকে, কপাল খুলে যেতো চিলির। কিন্তু দ্বিতীয়বারের মতো কাস্তিলোকে 'যোগ্য’' হিসেবে ঘোষণা করলো ফিফা। তবে চিলি হাল ছাড়ছে না, খেলাধুলা বিষয়ক আদালত কোর্ট অব আরবিট্রেশন ফর স্পোর্টস (সিএএস)-এ যাচ্ছে তারা।

দক্ষিণ আমেরিকা অঞ্চলের বাছাই পর্বে চতুর্থ হয়ে কাতার বিশ্বকাপে জায়গা করে নেয় ইকুয়েডর। 'এ' গ্রুপে স্বাগতিক কাতার, নেদারল্যান্ডস ও সেনেগালের সঙ্গে খেলবে তারা। আসরের উদ্বোধনী দিনে স্বাগতিকদের মুখোমুখি হবে তারা।