সাফ শিরোপাজয়ী নারী ফুটবলাররা দেশে ফিরবে আজ বুধবার। ইতিহাস গড়া এই দলকে বরণ করে নিতে মুখিয়ে আছে পুরো দেশের ফুটবল অনুরাগীরা। আজ দুপুর ১টা ৫০ মিনিটে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের পৌঁছাবেন সাবিনা-কৃষ্ণারা। সাফ বিজয়ী বাঘীনিদের বরণ করে নিতে প্রস্তুত করা হয়েছে ছাদ খোলা বাস।

এদিকে ঢাকার বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আসা সমর্থকদের ঢল নেমেছে বিমানবন্দর এলাকায়। সবাই এসেছেন সাফজয়ী নারী চ্যাম্পিয়নদের বরণ করে নিতে। বিমানবন্দরে বাংলাদেশ ফুটবল দলের জার্সি গেয়ে ঢাকার ওয়ারী থেকে এসেছেন ৫৪ বছর বয়সী হাজী আবদুল করিম। সাবিনাদের অভ্যর্থনা জানাতে তর সইছে না তার। 

সমকালের সঙ্গে আলাপকালে নারীদের এই সাফল্যে নিজের উচ্ছ্বাসের কথা জানিয়েছেন আবদুল করিম। তিনি জানান, মেয়েরা যখন সব ম্যাচ জিতে সেমিফাইনাল-ফাইনাল পর্যন্ত গেছে। তখনই বুঝেছি, এবার আমরা সাফ চ্যাম্পিয়ন হবে। মেয়েরা খুব পরিশ্রম করেছে। অনেক ভালো খেলেছে, ভালো খেলেই আজ ১৬ কোটি মানুষের মুখে হাসি ফুটিয়েছে। আমি খুব খুশি।'

সমাজে মেয়েদের খেলাকে ভালোভাবে গ্রহণ করে না। আবদুল করিমের মতে, নারীদের এই সাফল্য এই অবস্থার উন্নতি হবে। তিনি বলেন, 'এখন পরিবর্তন হবে। এখানে রাঙ্গামাটির মেয়ে আছে, টাঙ্গাইলের আছে, ময়মনসিংহের আছে। কয়েকটা জেলার মেয়ে আছে। এদের দেখেই আরো মেয়ে এগিয়ে আসবে। অন্য মেয়েরাও বলবে, সাবিনা খাতুনরা পারলে আমরা কেনো পারবো না।'

আগে থেকেই ফুটবলের পাঁড়ভক্ত ৫৪ বছর বয়সী আবদুল করিম। ছোটবেলা থেকেই নিয়মিত খেলা দেখতেন বাংলাদেশের। তিনি জানান, 'যখন কাজী সালাউদ্দিন খেলতেন, তখন থেকেই আমি মাঠে গিয়ে খেলা দেখতাম। মেয়েদের ফুটবলটাও শুরু থেকে ফলো করি। এদের মধ্যে ভালো লাগে সাবিনার খেলা।'

যে কোনও প্রান্তে বাংলাদেশ ক্রিকেট টিমের সমর্থনে যাকে বাঘের সাজেই দেখা যায়। সেই শোয়েব আলী এবার সাবিনাদের জন্যও হাজির হতে দেখা গেলো বিমানবন্দরে। আনন্দ-উচ্ছ্বাস প্রকাশ করে বলেছেন, 'এই আনন্দ এখন দ্বিগুন। মেয়েরা দারুণ পারফরম্যান্স দেখিয়েছে, তাই ছুটে চলে আসছি। ওদের জন্য বিসিবি এগিয়ে আসছে। অন্যদেরও এগিয়ে আসা উচিত।'

সাফ চ্যাম্পিয়নদের বরণ করে নিতে প্রস্তুত বিমানবন্দরও। চ্যাম্পিয়নদের দেশে ফেরার মূহুর্ত ধারণ করতে মুখিয়ে আছেন সংবাদকর্মীরাও। অতীতে এত গণমাধ্যম দেখা যায়নি বিমানবন্দর এলাকায়।

বিমানবন্দরে বরণের পর নারী ফুটবলারদের ছাদখোলা বাসে করে থেকেরাজধানীর বিভিন্ন পথ ঘুরে নিয়ে যাওয়া হবে বাফুফে ভবনে। বাফুফে ভবনে সভাপতির সঙ্গে ফটোসেশন, বৈঠক আর মধ্যাহ্ন ভোজে শেষ হবে দিনের আনুষ্ঠানিকতা।

মঙ্গলবার ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী ক্রীড়াপ্রেমী সবাইকে সাবিনাদের যাত্রা পথে থেকে তাদের অভ্যর্থনা জানানোর জন্য অনুরোধ জানিয়েছেন। সাফজয়ী মেয়েদের বিমানবন্দর থেকে কাকলি হয়ে, মহাখালি ফ্লাইওভার দিয়ে শহীদ জাহাঙ্গীর গেট যাবে। সেখান থেকে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সামনে দিয়ে বিজয় সরণী, তেজগাঁও, মৌচাক ফ্লাইওভার দিয়ে কাকরাইল যাবে। এরপর ফকিরেরপুল, আরামবাগ, শাপলা চত্বর দিয়ে পৌঁছাবে মতিঝিলের বাফুফে ভববে। 

নেপালকে ৩-১ গোলে হারিয়ে প্রথমবার সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ জেতা মেয়েদের নিয়ে যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয় থেকে 'থিম সং'ও তৈরি হয়েছে। এমনটাই জানিয়েছেন বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের (বাফুফে) সাধারণ সম্পাদক আবু নাঈম সোহাগ।