বার্লিনে অনুষ্ঠিত ম্যারাথনে অংশ নিয়েছেন ব্রাজিলের সর্বজয়ী ফুটবলার রিকার্ডো কাকা। ভাই রদ্রিগোর সঙ্গে তিন বছর ম্যারাথনের জন্য প্রস্তুতি নিয়েছেন। ওই ম্যারাথনের আগে স্প্যানিশ সংবাদ মাধ্যম মার্কাকে একটি সাক্ষাৎকার দিয়েছেন তিনি।  যেখানে কাতার বিশ্বকাপ, নেইমার-মেসি-ভিনিসিয়াস প্রসঙ্গ উঠে এসেছে। কাতারে ইউরোপের দলের সম্ভাবনা নিয়ে কথা উঠেছে। সাক্ষাৎকারের মূল অংশ তুলে ধরা হলো:

প্রশ্ন: প্রথমে যে প্রশ্নটি করতেই হবে। ম্যারাথনে কেন অংশ নিচ্ছেন?

কাকা: আমি কোচিং করাতে পছন্দ করতাম। পেশাদার ফুটবল ছাড়ার পর ওটা নিয়েই ছিলাম। কিন্তু আমার কোন লক্ষ্যই দীর্ঘ হয় না। ব্রাজিলিয়ানদের মধ্যে বিষয়টি নিয়ে বলাবলি হচ্ছিল। সেজন্য আমি দৌড়ানোর সিদ্ধান্ত নেই।

প্রশ্ন: অভিষেক হচ্ছে। পরের ম্যারাথনে কি থাকবেন?

কাকা: জানি না। আপাতত এটা শেষ করতে চাই। কারণ গত দুই মাসের পরিশ্রম ছিল খুবই কঠিন।

প্রশ্ন: চ্যাম্পিয়ন্স লিগ এবং ম্যারাথনের মধ্যে পার্থক্য কী?

কাকা: চাপ ভিন্ন, অনুভূতিও ভিন্ন। পেশাদার ফুটবল খেললে অনেকে দেখবে, চাপ থাকবে। কিন্তু এখানে আমি কেমন অনুভব করছি ওটাই আসল। আমি যদি তিন ঘণ্টা ৪০ মিনিটে শেষ করতে পারি সেটা ভালো হবে। এর চেয়ে আস্তে বা জোরে দৌড়ালে সেটাও ভালো।

প্রশ্ন: রিয়াল মাদ্রিদ মৌসুমে নয় ম্যাচেই জিতেছে। দলের কোনটা আপনার চোখে বেশি  পড়েছে? 

কাকা: সত্যিই দারুণ। আমি শুধু দলের খেলোয়াড়দের না, কোচ হিসেবে কার্লো আনচেলত্তির কাজও খেয়াল করি। তার কাজ সত্যিই প্রশংসনীয়।

প্রশ্ন: কাসেমিরো রিয়াল ছাড়লেন, চুয়ামেনি আসলেন...

কাকা: তরুণ এই খেলোয়াড়টাকে আমার বেশ পছন্দ। সে খুবই তরুণ কিন্তু ব্যক্তিত্ব আছে। কাসেমিরোর জায়গা পূরণ হবে কিনা তা নিয়ে একটু সংশয় আছে। কারণ চুয়ামেনি কিংবা কামাভিঙ্গা অনভিজ্ঞ। কিন্তু রিয়ালের হয়ে খেলার চাপ তারা সামলে নিয়েছে।

প্রশ্ন: করিম বেনজেমা এবার ব্যালন ডি’অর জিতছেন, এটা নিয়ে তর্ক আছে?

কাকা: আমি মনে করি, সে পরিষ্কার ফেবারিট। তবে আপনি কখনই শতভাগ দিয়ে বলতে পারবেন না। করিম এখন পরিপূর্ণ খেলোয়াড় এবং ব্যালন ডি’অরের দাবিদার।

প্রশ্ন: নেইমার কি এখনও ব্রাজিলের সবচেয়ে বড় তারকা নাকি ভিনিসিয়াস ওই জায়গা ধরে নিয়েছে?

কাকা: নেইমারই কাতার বিশ্বকাপে ব্রাজিলের নেতা থাকবে। তবে ভালো ব্যাপার হলো তার দলে ভিনির মতো খেলোয়াড় আছে। ২০১৮ বিশ্বকাপে নেইমার ছিল একা। কিন্তু এবার দলে ভিনি, রাফিনহা, রিচার্লিসন, অ্যান্তোনি আছে। যারা প্রতিশ্রুতিশীল তরুণ নয় ভালো খেলোয়াড়ও।

উদাহরণ হিসেবে ভিনির কথা ধরুণ। সে রিয়াল মাদ্রিদের তারকা। গত চ্যাম্পিয়ন্স লিগ ফাইনালে গোল করেছে। যা নেইমারের ওপর থেকে চাপ কমিয়ে দিয়েছে।

প্রশ্ন: রদ্রিগো গত মৌসুমে খুবই উন্নতি করেছে। তাকে নিয়ে কী বলবেন?

কাকা: সে অসাধারণ। ব্রাজিলে এটা আলোচনার বিয়ষ যে, সে বিশ্বকাপে দলে থাকবে কিনা। আমি নিশ্চিত সে দলে থাকবে। আমি ২০ বছর বয়সে বিশ্বকাপ দলে ছিলাম। রিয়ালে রদ্রিগো এরই মধ্যে একজন তারকা। এই অভিজ্ঞতা তার পেশাদার উন্নতির জন্য ভালো।

প্রশ্ন: ব্রাজিলের ২০০২ বিশ্বকাপ জয়ের পর দক্ষিণ আমেরিকার দেশ বিশ্বকাপ জেতেনি। এবার কী ব্রাজিল কিংবা আর্জেন্টিনা ওই ধারা ভাঙতে পারবে?

কাকা: তেমনটাই আমি আশা করি, কিন্তু ইউরোপের ফুটবল অনেক ভালো। উয়েফা নেশনস লিগ দক্ষিণ আমেরিকার দলগুলোর জন্য একটি বাধা। কারণ আমরা ইউরোপের শীর্ষ পর্যায়ের দলগুলোর সঙ্গে খেলার সুযোগ পাচ্ছি না।

এতে করে,আমরা কম প্রতিযোগিতাপূর্ণ হয়ে যাচ্ছি। দেখুন, ব্রাজিল নিজেদের মধ্যে প্রায় সব ম্যাচেই জয় পাচ্ছে। যা দল হিসেবে বেড়ে উঠতে বাধা হয়ে দাঁড়াচ্ছে। তবে এটাও সত্য যে, ব্রাজিল এবং আর্জেন্টিনার কাতার বিশ্বকাপ জেতার ভালো সম্ভবনা আছে। আমি এই আর্জেন্টিনা দলের বেশ ভক্ত। তারা বেশ পরিণত এবং ভালো কোচের অধীনে খেলছে।

প্রশ্ন: ব্রাজিল, আর্জেন্টিনার বাইরে কাতারে কোন দলের ভালো সম্ভাবনা দেখেন?

কাকা: সবার আগে ফ্রান্সের নাম বলবো। তাদের দুর্দান্ত সব ফুটবলার। বর্তমান চ্যাম্পিয়ন। এর বাইরে স্পেন এবং জার্মানির ভালো সুযোগ আছে। পর্তুগালের দিকে চোখ রাখতে হবে, তাদেরও ভালো খেলোয়াড় আছে। রোনালদো বিশ্বকাপের আগে কী অবস্থানে থাকে সেটাও দেখার বিষয়। এর বাইরে বেলজিয়াম, যদিও ভালো দল হওয়া স্বত্ত্বেও শেষ পর্যন্ত তারা ব্যর্থ হয়।

প্রশ্ন: স্পেন কোচ লুইস এনরিকেকে কেমন দেখছেন, দলটির এমন কোন খেলোয়াড় আছে যাকে আপনার বেশ পছন্দ?

কাকা: স্পেন ভালো কিছু ফুটবলার নিয়ে দারুণ একটা দল, যদিও তাদের অধিকাংশই তরুণ। এনরিকেকে আমার খুবই সৃজনশীল কোচ মনে হয়। গাভিকে আমার ভালো লাগে। এর বাইরে পেদ্রির সামনে ভালো ভবিষ্যত দেখি। আলভারো মোরাতাকে ভালো লাগে, আমি তাকে পেশাদার হতে দেখেছি।