ক্রিকেটকে স্থানীয় পর্যায়ে ছড়িয়ে দিতে চলতি বছরের ১৯ জুলাই সাতটি আঞ্চলিক ক্রীড়া সংস্থার নাম ঘোষণা করে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। আঞ্চলিক ক্রীড়া সংস্থার কার্যক্রম বাস্তবায়নের জন্য বিসিবি গঠনতন্ত্রে সংস্কার আনার প্রস্তাব জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের কাছে পেশ করা হয়।

সোমবার জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ বিসিবির গঠনতন্ত্র সংস্কারের বিষয়টি অনুমোদন করেছে। এর মধ্যে দিয়ে ঢাকা, চট্টগ্রাম, সিলেট, রাজশাহী, খুলনা, বরিশাল এবং রংপুরে ক্রীড়া সংস্থা আনুষ্ঠানিকভাবে চালু করার পথ খুলে গেল।

বিসিবির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা নিজামউদ্দিন চৌধুরী সংবাদ মাধ্যমকে বলেন, ‘বিসিবির গঠনতন্ত্রে কোন সংস্কার আনতে হলে বার্ষিক সাধারণ সভায় তা প্রস্তাব আকারে উপস্থাপন করা হয়। এরপর বোর্ড সভায় অনুমোদন করে জাতীয় ক্রীড়া পরিষদে পাঠানো হয়। যেটা অনুমোদন পেয়েছে। এখন থেকে এটা বিসিবির গঠনতন্ত্র-২০২২ বলে বিবেচিত হবে।’ 

বিসিবির এই কর্মকর্তা জানান, এখন বোর্ড আঞ্চলিক ক্রীড়া সংস্থা গঠনের কাজ শুরু করবে। কমিটি গঠন করে দেবে। ওই কমিটি বিসিবির নিয়ম মেনে কাজ করবে। দরকার পড়লে বিসিবি আঞ্চলিক ক্রীড়া সংস্থার আইনে পরিবর্তনও আনতে পারবে। খসড়া যে নীতিমালা করা হয়েছে তাকে ক্রীড়া সংস্থা গঠনে বাধা নেই বলেও উল্লেখ করেন তিনি। 

এর আগে সাতটি আঞ্চলিক ক্রীড়া সংস্থা গঠনের ঘোষণা দিয়ে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন বলেছিলেন, আঞ্চলিক ক্রীড়া সংস্থা গঠনে আর বাধা নেই। আগে সবকিছু ঢাকা থেকে পরিচালনা করতে হতো। সত্যি বলতে জেলা পর্যায়ে বোর্ডের তেমন নিয়ন্ত্রণ ছিল না। ক্রীড়া সংস্থা গঠিত হয়ে গেলে ওই সব ক্ষেত্রে আরও ভালো কাজ করা যাবে।