টি-২০ বিশ্বকাপের শেষ প্রস্তুতি সেরে নিচ্ছে বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়া ও বিশ্বকাপের অন্যতম ফেবারিট ইংল্যান্ড। পার্থে তিন ম্যাচের টি-২০ সিরিজের প্রথমটিতে অজিদের ৮ রানে হারিয়েছে ইংল্যান্ড। তবে এই ম্যাচ দিয়ে অস্ট্রেলিয়া এবং ইংল্যান্ড বুঝিয়ে দিয়েছে আসন্ন টি-২০ বিশ্বকাপ হতে যাচ্ছে রানের খেলা।

ঘরের মাঠে টস জিতে বোলিং করার সিদ্ধান্ত নেন অজি অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চ। ব্যাট করতে নেমে দুর্দান্ত শুরু করেন ইংলিশ ওপেনার জস বাটলার এবং অ্যালেক্স হেলস। তারা ওপেনিং জুটিতে ১১.২ ওভারে ১৩২ রান যোগ করেন। ওই ভিত্তির ওপর দাঁড়িয়ে ইংল্যান্ড ৬ উইকেটে তোলে ২০৮ রান।

নেতৃত্ব পাওয়া বাটলার খেলেন ৩২ বলে ৬৮ রানের বিধ্বংসী ইনিংস। আটটি চার ও চারটি ছক্কা দেখান তিনি। রান তোলেন ২১২.৫০ স্ট্রাইক রেটে। হেলসের ব্যাট থেকে ৫১ বলে আসে ৮৪ রান। তিনি ১২টি চারের সঙ্গে তিনটি ছক্কার শট তোলেন। বিশ্বকাপে ওপেনিংয়ে ভরসা হতে প্রস্তুত জানিয়ে দেন ব্যাট হাতে।

দুর্দান্ত ওই শুরুর পরে অবশ্য ইংল্যান্ডের পরের ব্যাটাররা রান পাননি। তিনে নেমে বেন স্টোকস ৯ বলে ৯ রান করেন। চারে নেমে সামারাহ ব্রুকস ১০ বলে ১২ রান যোগ করেন। মঈন আলী ৭ বলে করেন ১০ রান। স্যাম কারেন ও ডেভিড মালান রান পাননি। ক্রিস ওকস ৫ বলে ১৩ রান যোগ করেন।

জবাব দিতে নেমে ওপেনার ডেভিড ওয়ার্নার দুর্দান্ত শুরু করেন। তিনি ১৭তম ওভারের শেষ বলে আউট হন ৪৪ বলে আটটি চার ও দুই ছক্কায় ৭৩ রানের ইনিংস খেলে। কিন্তু অন্যদের থেকে তিনি যোগ্য সঙ্গ পাননি। ওপেনিং করা ক্যামেরুন গ্রিন ফিরে যান ১ রান করে। তিনে নেমে মিশেল মার্শ ২৬ বলে ৩৬ রান করেন। চারে নেমে অধিনায়ক ফিঞ্চ ১২ করে ফিরে যান।

পাঁচে নেমে মার্কোস স্টইনিস ১৫ বলে তিন ছক্কা ও দুই চারে ৩৫ রানের ইনিংস খেলেন। তার ওই ঝড়ে জয়ের আশা দেখছিল অস্ট্রেলিয়া। কিন্তু টিম ডেভিড, ড্যানিয়েল স্যামস ব্যর্থ হওয়ায় ফিনিশার রোলে খেলা ম্যাথু ওয়েড ১৫ বলে এক চার ও এক ছক্কায় ২১ রান করেও দলকে জেতাতে পারেননি। ৯ উইকেটে অজিরা তুলতে পারে ২০০ রান।

ইংলিশ ব্যাটারদের সামনে কেন রিচার্ডসন, গ্রিন কিংবা স্যামস ভালো করতে পারেননি। তবে বৈচিত্রপূর্ণ মিডিয়াম পেসার নাথান এলিস ৪ ওভারে ২০ রান দিয়ে তুলে নেন ৩ উইকেট। ইংল্যান্ডের হয়ে মার্ক উড ৪ ওভারে ৩৪ রান দিয়ে নেন ৩ উইকেট। এছাড়া রিচি টপলে ও স্যাম কারেন দুটি করে উইকেট তুলে নেন।