আজ মেলবোর্ন ক্রিকেট গ্রাউন্ডে ফাইনালের মাধ্যমে পর্দা নামতে যাচ্ছে টি২০ বিশ্বকাপের অষ্টম আসরের। এই অস্ট্রেলিয়া বিশ্বকাপের টুর্নামেন্ট সেরা কে হতে যাচ্ছেন- তা নিয়ে দর্শকদের জল্পনা-কল্পনার শেষ নেই। তবে ফাইনালের আগেই সম্ভাব্য টুর্নামেন্ট সেরার একটি সংক্ষিপ্ত তালিকা প্রকাশ করেছে ক্রিকেটের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থা আইসিসি। আইসিসি প্রকাশিত এই তালিকায় মনোনয়ন পেয়েছেন ৯ ক্রিকেটার।

এ তালিকায় সর্বোচ্চ তিনজন ক্রিকেটার ইংল্যান্ডের। তাঁরা হলেন- দুই ওপেনার জস বাটলার ও অ্যালেক্স হেলস এবং পেস বোলিং অলরাউন্ডার স্যাম কারেন। অপর ফাইনালিস্ট পাকিস্তান থেকে মনোনয়ন পেয়েছেন পেসার শাহিন আফ্রিদি ও স্পিনিং অলরাউন্ডার শাদাব খান। সেমিফাইনাল থেকে ছিটকে যাওয়া ভারতীয় দলের দুই ব্যাটার বিরাট কোহলি ও সূর্যকুমার যাদবও রয়েছেন আইসিসির এই সংক্ষিপ্ত তালিকায়। বল ও ব্যাটে দুর্দান্ত পারফরম্যান্স করে জিম্বাবুয়ের সিকান্দার রাজাও আছেন টুর্নামেন্ট সেরার দৌড়ে। এই তালিকার আরেকজন হলেন শ্রীলঙ্কার ওয়ানিন্দু হাসারাঙ্গা।

দলকে ফাইনালে তুলতে না পারলেও পুরো টুর্নামেন্টজুড়ে ব্যাট হাতে বিরাট কোহলি ছিলেন দুর্দান্ত। ৬ ম্যাচে ৯৮.৬৬ গড়ে কোহলির রান ২৯৬। ১৩৬.৪০ স্ট্রাইক রেটে এই ভারতীয় ব্যাটসম্যান ফিফটি করেছেন ৪টি। যার মধ্যে রয়েছে চিরপ্রতিদ্বন্দ্ব্বী পাকিস্তানের বিপক্ষে ৮২ রানের স্মরণীয় ম্যাচ উইনিং ইনিংস। আরেক ভারতীয় ব্যাটসম্যান সূর্যকুমার যাদব টুর্নামেন্টেরই অন্যতম ইমপ্যাক্টফুল ক্রিকেটার। ১৮৯.৬৮ স্ট্রাইক রেটে তিন ফিফটিতে ৬ ম্যাচে তাঁর রান সংখ্যা ২৩৯।

ছোট দলের বড় তারকা জিম্বাবুয়ের সিকান্দার রাজা। ব্যাট হাতে ২১৯ রানের পাশাপাশি বল হাতে ১০ উইকেট নিয়েছেন তিনি। তাঁর অলরাউন্ড নৈপুণ্যেই ফাইনালিস্ট পাকিস্তানকে হারিয়েছিল জিম্বাবুয়ে। এদিকে শ্রীলঙ্কার টুর্নামেন্ট থেকে বিদায় হয়ে গেলেও টুর্নামেন্টের সর্বোচ্চ উইকেট শিকারি হিসেবে এখনও টুর্নামেন্ট সেরার দৌড়ে টিকে আছেন ওয়ানিন্দু হাসারাঙ্গা। প্রথম রাউন্ড ও সুপার টোয়েলভ মিলিয়ে ৮ ম্যাচে তাঁর শিকার ১৫ উইকেট।

পুরো টুর্নামেন্টেই ইংল্যান্ডের বোলিংকে টেনেছেন স্যাম কারেন। ৫ ম্যাচে ৭.২৮ ইকোনমিতে কারেনের শিকার ১০ উইকেট। দলের মতোই ব্যাট হাতে নিজেও দারুণ সফল ইংলিশ অধিনায়ক জস বাটলার। ৫ ম্যাচে ১৪৩.১৬ স্ট্রাইক রেটে দুই ফিফটিতে ১৯৯ রান রান করেছেন এই ডানহাতি ব্যাটার। বাটলারের ওপেনিং পার্টনার অ্যালেক্স হেলসও আছেন দারুণ ছন্দে। ১৪৮.৫৯ স্ট্রাইক রেটে দুই ফিফটিতে তাঁর ব্যাট থেকে এসেছে ২১১ রান। ভারতের বিপক্ষে অপরাজিত ৪৭ বলে ৮৬ রানের দুর্দান্ত এক ইনিংস খেলে ইংল্যান্ডকে ফাইনালে তোলেন এই হার্ডহিটার ব্যাটার।

পাকিস্তানকে ফাইনালে তুলতে ব্যাট ও বল হাতে দারুণ অলরাউন্ড নৈপুণ্য দেখিয়েছেন শাদাব খান। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে বাঁচা-মরার লড়াইয়ে ২২ বলে ৫২ রানের বিস্টেম্ফারক ইনিংস খেলেছিলেন এই ডানহাতি ব্যাটার। বল হাতেও পুরো টুর্নামেন্টে শাদাব ছিলেন অপ্রতিরোধ্য। ৬.৫৯ ইকোনমিতে তাঁর শিকার ১০ উইকেট। আরেক পাকিস্তানি স্পিড-স্টার শাহিন আফ্রিদির শুরুটা ভালো না হলেও টুর্নামেন্ট এগোতেই নিজের চেনা ছন্দে ফিরেছেন এই পেসার। ৬.১৭ ইকোনমিতে ৬ ম্যাচে তাঁর শিকার ১০ উইকেট।

ফাইনালে ইংল্যান্ড ও পাকিস্তানের এই পাঁচ তারকা ক্রিকেটারের ওপর সবার থাকবে বাড়তি নজর। মেলবোর্নে আজ তাঁদের মধ্যে যে দারুণ কিছু করে দলকে চ্যাম্পিয়ন করতে পারবেন, সম্ভবত তিনিই টুর্নামেন্ট সেরা হবেন। এ ছাড়া আইসিসির অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে গিয়ে ভোট দেওয়ার মাধ্যমে এই ৯ ক্রিকেটার থেকে নিজের পছন্দের টুর্নামেন্ট সেরা বেছে নিতে পারবেন দর্শকরাও।