তুরিনের প্যাকটিস গ্রাউন্ডে কাতার বিশ্বকাপের জন্য নির্ধারিত জার্সি পরে শুক্রবার ফটোসেশন করেছেন ব্রাজিলের ফুটবলাররা। ফটোসেশনের জন্য দুটি বেঞ্চ পাতা হয়। প্রথম সারিতে বসবেন খেলোয়াড়রা। দ্বিতীয় সারিতে থাকবেন কোচিং স্টাফ এবং শেষ সারিতে লম্বা খেলোয়াড়রা দাঁড়াবেন।

রিচার্লিসন এসে দেখলেন ফ্রেড বসে আছেন বেঞ্চের মাঝখান বরাবর। যেখানে অধিনায়কের পাশে বসবেন নেইমার ঠিক ওই জায়গায়। ফ্রেডের জায়গা ছিল রাফিনহা ও অ্যালেক্স টেলেসের মাঝখানে। টটেনহ্যামে খেলা স্ট্রাইকার এসে কোন কথা না বলে ফ্রেডকে জায়গা থেকে তুলে দেন। 

ফ্রেড প্রথমে বুঝে উঠতে পারেননি। তিনি আপত্তি করেন। কিন্তু রিচার্লি শোনার পাত্র নন। তিনি তুলেই দিলেন ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে খেলা মিডফিল্ডারকে। নতুন জায়গায় তাকে বসিয়েও দেন। 

ওই ঘটনা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বেশ সাড়া ফেলেছে। কেউ কেউ বলছেন, রিচার্লির আচরণ ঠিক ছিল না। আবার কেউ কেউ মন্তব্য করেছেন, ব্রাজিলিয়ান স্ট্রাইকার হচ্ছেন নেইমারের বডি গার্ড। আর্জেন্টিনার ভক্তরা যেমন বলেন, মেসির বডি গার্ড রদ্রিগো ডি পল। তেমনি নেইমারেরও আছে বডি গার্ড। 

ম্যাচে অবশ্য তা বরাবরই দেখা যায়। আগ্রাসী মুডে থাকেন রিচার্লিসন। যে কারণে কোচ তাকে জেসুসের চেয়ে পছন্দ করেন। নেইমারকে প্রতিপক্ষের কেউ ফাউল করলেই তিনি তেড়ে যান। রীতিমতো হাতাহাতি শুরু করেন। বিশ্বকাপের আগে ব্রাজিলের প্রীতি ম্যাচ ছিল তিউনিসিয়ার বিপক্ষে। তিউনিসরা ওই ম্যাচে নেইমারকে অনেক ফাউল করেন। প্রতিবাদ করে হলুদ কার্ড দেখেছিলেন রিচার্লি।