রাশিয়া বিশ্বকাপে ঝলক দেখিয়ে শেষ পর্যন্ত নিভে যায় ব্রাজিল। ডাগআউটে ঠান্ডা মাথায় দারুণ কৌশল সাজিয়ে শেষ পর্যন্ত হতাশ হতে হয় তিতেকে। এবার তাঁর সামনে আরেকটি সুযোগ। এটাই ব্রাজিলের কোচ হিসেবে শেষ। এর পর আর সেলেকাওদের ডাগআউটে দেখা যাবে না তাঁকে। তাই এবার নেইমার-জেসুসদের ফর্ম কাজে লাগিয়ে বিশ্বজয়ের স্বপ্ন দেখছেন তিনি।

তিতের পছন্দের ফরমেশন ৪-২-৩-১। ২০১৬ সালে কোচের দায়িত্ব পাওয়ার পর এখন পর্যন্ত তিতের অধীনে ৭৬ ম্যাচে অংশ নেয় ব্রাজিল। যেখানে ৫৮ জয়ের বিপরীতে হার মাত্র পাঁচটি। বোঝাই যাচ্ছে কতটা বর্ণিল তাঁর এই সময়টা। যার মধ্যে বড় অর্জন ২০১৮-১৯ মৌসুমে কোপা আমেরিকা জয়। তবে একটাই অপেক্ষা তাঁর। সোনালি ট্রফিটা হাতে নেওয়া। এবার যদি তার নাগাল পান, তাহলে তিনিও হয়ে যাবেন সেরাদের একজন। এরই মধ্যে ব্রাজিলের বেশি ম্যাচ ও বেশি জয় পাওয়া কোচদের কাতারে চলে এসেছেন তিতে। ব্রাজিলের কোচ হিসেবে সবচেয়ে বেশি ১২৬ ম্যাচে ইনচার্জের দায়িত্ব পালন করেন মারিও জাগালো। যেখানে তাঁর জয় ৯০ ম্যাচে। তালিকায় তিনে এখন তিতে। ব্রাজিলের ডাগআউটে ৮৩ ম্যাচ থাকা দুঙ্গার জয় ৫৭টি।

তিতের ওপর আস্থা আছে ব্রাজিলের সাবেক চ্যাম্পিয়ন খেলোয়াড়দেরও। সর্বশেষ ২০০২ বিশ্বকাপ জেতা দলনেতা কাফুও তাঁর সুনাম করেছেন। একই সঙ্গে সাবেক সফল ফরোয়ার্ড কাকার মুখেও শোনা যায় তিতের প্রশংসা। তাঁরা দুজনই বলছেন এবার তিতে দেখানো পথ ধরেই ব্রাজিল হেক্সা মিশন সফলভাবে সম্পন্ন করবে।