ঘানার বিপক্ষে গ্রুপ পর্বে নিজেদের প্রথম ম্যাচে চাপে ছিল পর্তুগাল। প্রথমার্ধে গোল করতে পারেনি। দ্বিতীয়ার্ধে গোল মুখ খোলেন ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। ঘানাও গোল শোধ করে ম্যাচ জমিয়ে তোলে। শেষ পর্যন্ত ৩-২ গোলের জয় তুলে নেয় পর্তুগিজরা। 

ওই ম্যাচে দলের পক্ষে ৬৫ মিনিটে প্রথম গোলটি করেন ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। পেনাল্টি থেকে ওই গোল করেই রেকর্ড বইয়ে নাম লেখান আন্তর্জাতিক ও ক্লাব ফুটবলে সবচেয়ে বেশি গোল করা এই তারকা। 

ইতিহাসের প্রথম ফুটবলার হিসেবে সিআরসেভেন টানা পাঁচটি বিশ্বকাপে গোল করার কীর্তি গড়েছেন। চারটি করে বিশ্বকাপে গোল করা লিওনেল মেসি, পেলে, মিরোস্লাভ ক্লোসা ও ইউউই সিলারকে ছাড়িয়ে গেছেন। 

ম্যাচ শেষে রোনালদো বলেছেন, ‘টানা পাঁচটি বিশ্বকাপে গোল করতে পারা অনেক গর্বের বিষয়। আমার পঞ্চম বিশ্বকাপে এটি অসাধারণ একটি মুহূর্ত। ম্যাচটা আমরা জিতেছি। এটা দলের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। কারণ বিশ্বকাপের মতো আসরে জয় দিয়ে শুরু করা খুব জরুরি।’ 

বিশ্বকাপে এসেও পর্তুগিজ যুবরাজকে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের সঙ্গে চুক্তি বাতিলের বিষয়ে কথা বলতে হয়েছে। তার মতে, ম্যানইউ এখন ক্লোজ চ্যাপ্টার, ‘আমরা বিশ্বকাপে এসেছি, জয় পেয়েছি এবং সবকিছু ঠিকঠাক যাচ্ছে। বাকি কিছুই এখানে গুরুত্বপূর্ণ নয়। বিশ্বকাপই আমাদের কাছে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ।’