২৪ বছর আগে চট্টগ্রামের চন্দনপুরায় কলেজ ছাত্রকে গুলি করে হত্যার মামলায় ২ আসামির যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ও একজনকে খালাস দিয়েছেন আদালত। 

রোববার চট্টগ্রাম চতুর্থ অতিরিক্ত মহানগর দায়রা জজ শরীফুল আলম ভূঁঞার আদালত এ রায় দেন। দণ্ডিতরা হলেন- মো. রফিক ও আজিম উদ্দিন আহমেদ রাজা। এছাড়া খালাস পেয়েছেন অনুপ মল্লিক। রায় ঘোষণার পর রফিককে কারাগারে পাঠানো হয়।

চট্টগ্রাম অতিরিক্ত মহানগর পিপি নোমান চৌধুরী বলেন, নগরের চন্দনপুরার কলেজ ছাত্র মাসুদ চৌধুরীকে খুনের ঘটনায় ২ আসামিকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ও ২০ হাজার টাকা করে জরিমানা অনাদায়ে আরও ১ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। আসামি রফিককে কারাগারে পাঠানো হলেও অপর যাবজ্জীবন সাজা পাওয়া আসামি আজিম উদ্দিন পলাতক রয়েছেন। 

পিপি নোমান চৌধুরীকে মামলা পরিচালনায় সহযোগিতা করেন অ্যাডভোকেট আবু ঈসা।

জানা যায়, চট্টগ্রাম নগরের কোতোয়ালী থানার চন্দনপুরা দারুল উলুম মাদরাসার সামনে ১৯৯৮ সালের ১৬ নভেম্বর কলেজ ছাত্র মাসুদ চৌধুরীকে তার বাড়ির সামনে গুলি করে হত্যা করা হয়। এ ঘটনায় অজ্ঞাতনামা খুনিদের আসামি করে কোতোয়ালী থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন মাসুদের চাচা হারুন চৌধুরী। ১৯৯৯ সালের ৩০ অক্টোবর পুলিশ তদন্তে তিনজনকে আসামি অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন। এ ঘটনায় প্রত্যক্ষদর্শী হিসেবে আবদুল হালিম নামে একজন আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দিয়েছিলেন। ২০০১ সালের ১৮ ফেব্রুয়ারি তিন আসামির বিচার শুরু হয়। ২৩ সাক্ষীর মধ্যে ১৩ জন সাক্ষ্য দেন। তারপর রায় ঘোষণা করে আদালত।