তিন ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজের প্রথমটিতে ভারতকে ১৮৬ রানে গুটিয়ে দিয়েছে বাংলাদেশ। দুর্দান্ত বোলিং করেছেন সাকিব আল হাসান ও এবাদত হোসেন। সাকিব ৩৬ রানে নিয়েছেন পাঁচ উইকেট। ভারতের বিপক্ষে ওয়ানডেতে এই প্রথম পাঁচ উইকেট পেলেন সাকিব। ৪৭ রানে চার উইকেট নিয়েছেন এবাদত হোসেন। ভারতের পক্ষে সর্বোচ্চ ৭৩ রান করেছেন লোকেশ রাহুল।

বাংলাদেশের বিপক্ষে ভারতের এটা দ্বিতীয় সর্বোচ্চ দলীয় সর্বনিম্ন স্কোর। ২০১৫ সালে মিরপুরেই ১০৫ রানে অলআউট হয়েছিল ভারত। বাংলাদেশের বিপক্ষে ওয়ানডেতে সেটা তাদের দলীয় সর্বনিম্ন স্কোর।

মিরপুরে প্রথম ওয়ানডেতে টস জিতে ভারতকে ব্যাটিংয়ে পাঠান লিটন। শুরু থেকেই ভারতকে চেপে ধরে বাংলাদেশের বোলাররা। ধাওয়ানকে (৭) ফিরিয়ে উইকেটের সূচনা করেন মিরাজ। এরপর এরপরে রোহিত-বিরাট মিলে গড়েন ২৫ রানের জুটি। তাদের দুজনকেই ফেরান অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। ৩১ বলে ২৭ রান করেন ভারত অধিনায়ক। এক বল পরেই সাকিবের শিকার বিরাট কোহলি। লিটনের ক্যাচ হয়ে কোহলি ফেরেন মাত্র ৯ রানে। এরপর শ্রেয়াস আইয়ারকে ফেরালেন এবাদত। তার শর্ট বলে পুল খেলতে গিয়ে উইকেটের পেছনে সহজ ক্যাচ দেন শ্রেয়াস। ৩৯ বলে ২৪ রান করেন তিনি। রাহুলের সঙ্গে তার জুটি থেকে আসে ৫৬ বলে ৪৩ রান।

রাহুলের হাফ সেঞ্চুরির পর ভারত তাদের পঞ্চম উইকেট হারায়। সাকিবের শিকার হন ওয়াশিংটন সুন্দর। ৪৩ বলে ১৯ রান করেন তিনি। এরপর এবাদতের বলে সাকিবের ক্যাচ হয়ে ফেরেন শাহবাজ আহমেদ। স্কোরকার্ডে ৩ রান যোগ হতেই শার্দুল ঠাকুরকে ফেরান সাকিব।

ওই ওভারেই দুই বল পর চাহালকে এলবিডব্লিউয়ের ফাঁদে ফেলে ফাইফার পূরণ করেন সাকিব। ১৫৬ রানে ৮ উইকেট হারানো ভারতের শেষ ভরসা হয়ে ছিলেন লোকেশ রাহুল। এবাদতের শর্ট বলের ফাঁদে শেষ পর্যন্ত তিনিও ধরা পড়েন। থার্ড ম্যানে সহজ ক্যাচ নেন এনামুল বিজয়। ৭০ বলে গড়া রাহুলের ৭৩ রানের ইনিংসে ছিল ৫ বাউন্ডারি আর ৪ ছক্কার মার। ভারত থামে ১৮৬ রানে।

চোটের কারণে তামিম ইকবাল ছিটকে পড়ায় এই সিরিজে বাংলাদেশ দলকে নেতৃত্ব দিচ্ছেন লিটন দাস। শুধু তামিম নন, চোটের কারণে আজ খেলতে পারছেন না পেসার তাসকিন আহমেদও। বাংলাদেশ দলের নিয়মিত টিম কম্বিনেশনে তাই বাধ্য হয়েই পরিবর্তন আনতে হচ্ছে। চোটের জন্য ভারত জাসপ্রিত বুমরাহ, রবীন্দ্র জাদেজা, মোহাম্মদ শামিকে পাচ্ছে না ভারত।

বাংলাদেশ একাদশ: লিটন দাস (অধিনায়ক), এনামুল হক বিজয়, নাজমুল হোসেন শান্ত, সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহিম, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, আফিফ হোসেন, মেহেদী হাসান মিরাজ, মুস্তাফিজুর রহমান, হাসান মাহমুদ ও ইবাদত হোসেন।

ভারত একাদশ: রোহিত শর্মা, শিখর ধাওয়ান, বিরাট কোহলি, লোকেশ রাহুল, শ্রেয়াস আইয়ার, ওয়াশিংটন সুন্দর, শাহবাজ আহমেদ, শার্দুল ঠাকুর, দীপক চাহার, মোহাম্মদ সিরাজ ও কুলদীপ সেন।