এক দশকের বেশি সময় ধরে ফ্রান্স জাতীয় দলের নেতৃত্ব হুগো লরিসের কাঁধে। লরিসের অধীনে ২০১৪, ২০১৮ ও ২০২২- তিনটি বিশ্বকাপে মাঠে নেমেছে লেজ ব্লুজরা। লরিসের নেতৃত্বেই টানা দ্বিতীয়বারের মতো চ্যাম্পিয়ন হওয়ার মিশনে রোববার আর্জেন্টিনার বিপক্ষে ফাইনাল খেলতে নামছে ফ্রান্স। এই ম্যাচকে ঘিরে দারুণ এক ইতিহাস হাতছানি দিচ্ছে লরিসকে। ফুটবল ইতিহাসের প্রথম অধিনায়ক হিসেবে দুটি বিশ্বকাপ শিরোপা উঁচিয়ে ধরার সুযোগ ফ্রান্স অধিনায়কের সামনে। ম্যারাডোনা-দুঙ্গার মতো কিংবদন্তি ফুটবলাররা যা পারেননি, তা-ই কি করে দেখাতে পারবেন লরিস? লুসাইলের ফাইনালে নিজেকে নিয়ে যেতে পারবেন অনন্য এক উচ্চতায়?

লরিসের আগে অধিনায়ক হিসেবে দুটি বিশ্বকাপ জয়ের সুযোগ এসেছিল আর্জেন্টাইন কিংবদন্তি দিয়েগো ম্যারাডোনা ও ব্রাজিলের কার্লোস দুঙ্গার সামনে। ম্যারাডোনার নেতৃত্বে আর্জেন্টিনা ১৯৮৬-এর বিশ্বকাপ জিতলেও ১৯৯০-এর ফাইনালে জার্মানির কাছে ১-০ গোলে হারে। দুঙ্গার গল্পটাও একই রকম। এই ব্রাজিলিয়ান মিডফিল্ডারের নেতৃত্বে ১৯৯৪ বিশ্বকাপের শিরোপা ব্রাজিল জিতলেও ১৯৯৮-এর ফাইনালে দুঙ্গার ব্রাজিলকে ৩-০ গোলে হারিয়ে শিরোপা জেতে ফ্রান্স।

টানা দুই ফাইনালে অধিনায়কদের ব্যর্থতার গল্পটা বদলানোর চ্যালেঞ্জ থাকছে লরিসের সামনে। তবে নকআউট পর্বে অধিনায়কের দুর্দান্ত পারফরম্যান্স আশা দেখাচ্ছে ফ্রান্সকে। গ্রুপ পর্বে খেলা প্রতি ম্যাচেই গোল হজম করছিলেন লরিস। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে কোয়ার্টার ফাইনাল ম্যাচের আগে ইংলিশ সংবাদমাধ্যমগুলো তো এই টটেনহাম গোলরক্ষককে বিদ্রুপ করে বলেছিল, ফ্রান্সের সবচেয়ে বড় দুর্বলতা লরিসই। মুখে কিছু না বললেও নিজের জবাবটা মাঠেই দিয়েছিলেন লরিস।

হ্যারি কেইন, ফোডেন, বেলিংহামদের একের পর এক আক্রমণ এসে আটকে গিয়েছিল ফরাসি গোলরক্ষকের গল্গাভসে। একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি তিনি ঘটিয়েছেন মরক্কোর বিপক্ষে সেমিফাইনাল ম্যাচেও। কাউন্টার অ্যাটাক থেকে বেশ কিছু ভয়ংকর আক্রমণ করেছিল মরক্কানরা। কিন্তু ৩৫ বছর বয়সী অভিজ্ঞ লরিসকে পরাস্ত করা যায়নি। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচেই ফ্রান্সের জার্সিতে সবচেয়ে বেশি (১৪৩) ম্যাচ খেলার রেকর্ড নিজের করে নিয়েছেন লরিস।

রোববারের ফাইনালে মাঠে নামলেই ফাইনালে জার্মানির ম্যানুয়েল নয়্যারকে ছাড়িয়ে গোলরক্ষক হিসেবে বিশ্বকাপে সবচেয়ে বেশি ১৯ ম্যাচ খেলার রেকর্ড গড়বেন লরিস। এত প্রাপ্তির বিশ্বকাপে নিশ্চয়ই সব শেষ সোনালি ট্রফিটা জিতে নিজেকে ইতিহাসের পাতায় অমর করে রাখতে চাইবেন লরিস।