ঢাকা মঙ্গলবার, ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

বন্ধু থিলানকেই হাথুরুর পছন্দ!

বন্ধু থিলানকেই হাথুরুর পছন্দ!

ছবি- সংগৃহীত

ক্রীড়া প্রতিবেদক

প্রকাশ: ১২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ | ১১:৪৩

তামিম ইকবালকে ছাড়া কেন্দ্রীয় চুক্তির অনুমোদন, জাতীয় দলের বিশেষায়িত কোচ নিয়োগ, অধিনায়ক ইস্যুতে একমত হওয়া, জাতীয় দল নির্বাচক প্যানেল ঢেলে সাজানো, বিশ্বকাপ ব্যর্থতার মূল্যায়ন কমিটির রিপোর্ট উপস্থাপন ছাড়াও নিয়মিত অনেক ইস্যু পাস করতে হবে পরিচালকদের। পরিস্থিতি বিবেচনায় আজকের বোর্ড সভায় গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো একাধিক পদে কোচ, সাপোর্ট স্টাফ নিয়োগ; কিন্তু জনপ্রিয় ইস্যু হলো তামিম ইকবালের ব্যাপারে বোর্ডের সিদ্ধান্ত। 

বাঁহাতি এ ওপেনারের আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ছাড়ার সিদ্ধান্ত বোর্ড মেনে নিলে তামিম হয়তো আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেবেন। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ওয়ানডে ম্যাচ খেলিয়ে ৩৫ বছর বয়সী এ ব্যাটারকে মাঠ থেকে বিদায় দেওয়া হবে কিনা, তা বড় প্রশ্ন। কারণ এ সিদ্ধান্ত বিসিবির একার পক্ষে নেওয়া সম্ভব নয়। ক্রিকেটারের মতামত নিয়ে করণীয় ঠিক করবে বোর্ড। তবে গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত হলো জাতীয় দলের কোচিং স্টাফ চূড়ান্ত করা। চন্ডিকা হাথুরুসিংহের বন্ধু থিলান সামারাভিরাকে নিয়োগ দেওয়া হতে পারে ব্যাটিং কোচ হিসেবে। পেস বোলিং কোচ, ট্রেনার, পারফরম্যান্স অ্যানালিস্টও নিয়োগ দেওয়া হতে পারে প্রধান কোচের প্যানেল থেকে।

চন্ডিকা হাথুরুসিংহের কোচিং প্যানেলের বেশ কিছু জায়গায় শূন্যতা তৈরি হয়েছে বিশ্বকাপ-পরবর্তী সময়ে। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে হোম সিরিজের আগেই সেগুলো পূরণ করার উদ্যোগ নিয়েছে বোর্ড। বাছাইয়ের বিশেষ কমিটির সুপারিশ অনুযায়ী আজ চূড়ান্ত করা হবে ব্যাটিং ও পেস বোলিং কোচ। শর্ত থাকায় রস টেলরের সঙ্গে কথাবার্তা শেষ হয়ে গেছে মাঝপথে। স্টুয়ার্ট ল’কেও ব্যাটিং কোচ করা হবে না। এইচপির প্রধান কোচ ডেভিড হেম্পকেও জাতীয় দলে নেওয়ার পক্ষে না। পল নিক্সন, থিলান সামারাভিরার থেকে যে কোনো একজনকে নিয়োগ দেওয়া হতে পারে ব্যাটিং কোচ হিসেবে। 

বিসিবির একজন কর্মকর্তার কাছ থেকে জানা গেছে, পুরোনো সঙ্গী থিলান সামারাভিরাকে চান হাথুরুসিংহে। অস্ট্রেলিয়াপ্রবাসী এ শ্রীলঙ্কান কাজ ভালো না করলেও আজ্ঞাবহ। হাথুরুসিংহে যা বলবেন, তাতেই সম্মতি দেবেন তিনি। বন্ধুর কাছ থেকে সবুজ সংকেত পেয়েই দীর্ঘদিন পর ব্যাটিং কোচ হতে আগ্রহ দেখিয়েছেন সামারাভিরা। তবে প্রধান কোচের জন্য বাধা হয়ে দাঁড়াতে পারে বাছাই কমিটির সুপারিশ। পেস বোলিং কোচ চূড়ান্ত করা নিয়ে কিছুটা ধোঁয়াশা আছে। এইচপি থেকে আবেদন করা কোরি কলিমোরের সুযোগ কম। অস্ট্রেলিয়ার কাউকে নিয়োগ দেওয়ার সম্ভাবনা বেশি। ট্রেনার পদে নিয়োগ পেতে লম্বা সিরিয়াল ছিল। দেশি-বিদেশি মিলিয়ে ২০টি আবেদন পড়েছিল, যেখানে জাতীয় দলের সাবেক ট্রেনার নিকোলাস লিও ছিলেন। যদিও লিকে হাথুরুসিংহের পছন্দ না। অস্ট্রেলিয়ার একজনকে নিতে চান তিনি। পারফরম্যান্স অ্যানালিস্ট নিয়োগের ক্ষেত্রেও প্রধান কোচের পছন্দকে গুরুত্ব দেওয়া হবে।

বিসিবির বিদেশি কোচিং স্টাফ নিয়োগ নিয়ে বড় ধরনের কারসাজি চলছে। বোর্ডের একজন কর্মকর্তা নাম গোপন রাখার শর্তে জানান, এইচপি ও জাতীয় দলে কোচিং স্টাফ নিয়োগ দেওয়া হচ্ছে চন্ডিকা হাথুরুসিংহের চাওয়ামতো। বিসিবির হেড অব প্রোগ্রাম ডেভিড মুর বাস্তবায়ন করছেন হাথুরুসিংহের সিদ্ধান্তকে। কারণ তারা দু’জন পুরোনো সহকর্মী। হাথুরুসিংহের পরামর্শেই মুরকে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। ডেভিড হেম্পও মুরের সাবেক সহকর্মী। নিজেদের সিন্ডিকেটের কোচ নিয়োগ দেওয়া গেলে আর্থিকভাবে লাভবান হওয়ার সুযোগ থাকে বলে মনে করেন বিসিবি কর্মকর্তাদের কেউ কেউ। 

একজন কর্মকর্তা বলেন, ‘সামারাভিরাকে ব্যাটিং কোচ করা হবে নিক পোথাসকে ফিল্ডিং কোচের ভূমিকায় রেখে। এ কারণে ভালো কাজ করলেও শেন ম্যাকডারমটকে রাখা হয়নি। এই পদের জন্য নিয়োগ বিজ্ঞপ্তিও ছিল না। ফিজিও বায়েজিদুল ইসলামকে সরাতে চেয়েছিলেন কোচ। এই জায়গায় বায়েজিদ থাকলেও ট্রেনার পদে নতুন নিয়োগ আসছে। আর যাদের নেওয়া হবে তারা সবাই ডেভিড মুর ও হাথুরুসিংহে প্যানেল থেকে আসা।’ 

সে যাই হোক, কোচিং স্টাফ ছাড়াও জাতীয় নির্বাচক প্যানেলও পুনর্গঠন করা হচ্ছে। যেখানে নেতৃত্বে থাকছেন হাবিবুল বাশার সুমন। তাঁর সঙ্গে থাকছেন আব্দুর রাজ্জাক ও হান্নান সরকার। আজকের সভায় কেন্দ্রীয় চুক্তিতে থাকা ক্রিকেটারদের অনুমোদন দেওয়া হবে। ২২ জন ক্রিকেটার পাচ্ছেন কেন্দ্রীয় চুক্তি। স্পিনার নাঈম হাসান, ওপেনার জাকির হাসান, মাহমুদুল হাসান জয় টেস্টের চুক্তিতে যুক্ত হচ্ছেন। এবাদত হোসেনকে বিশেষ বিবেচনায় চুক্তিতে রাখা হয়েছে। নেতৃত্ব নিয়েও গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত হতে পারে। সাকিব আল হাসানকে টি২০ নেতৃত্বে রেখে টেস্ট ও ওয়ানডের দায়িত্ব তুলে দেওয়া হতে পারে নাজমুল হোসেন শান্তর কাঁধে।

আরও পড়ুন

×