ঢাকা মঙ্গলবার, ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

‘কয়েকদিন আগের ‘লর্ড’ শান্ত, এখন বাংলাদেশের ক্যাপ্টেন’

‘কয়েকদিন আগের ‘লর্ড’ শান্ত, এখন বাংলাদেশের ক্যাপ্টেন’

নাজমুল হোসেন শান্ত

ক্রীড়া প্রতিবেদক

প্রকাশ: ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ | ১৪:৪১ | আপডেট: ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ | ১৮:২৩

অভিষেকের পর থেকে দীর্ঘদিন ফর্মহীন অবস্থায় ছিলেন নাজমুল হোসেন শান্ত। এতে কম সমালোচনা সহ্য করতে হয়নি জাতীয় দলের এই ব্যাটারকে। ফর্মহীনতার কারণে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ‘লর্ড’ উপাধিও পেয়েছিলেন শান্ত। সব সমালোচনা সামলে সেই শান্তই এখন বাংলাদেশের তিন ফরম্যাটের ক্যাপ্টেন। তাই খালেদ মাহমুদ সুজনের আহ্বান, সমালোচনা হোক সুস্থভাবে, অসুস্থ ট্রলের শিকার যেন কাউকে না বানানো হয়।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের ট্রলকে ইঙ্গিত করে সুজন বলেন, ‘আমরা যদি আমাদের সোশ্যাল মিডিয়া দেখে সিলেক্টর তৈরি করি, সিলেক্টর-প্লেয়ারদের গালি দেই! আজকে লর্ড শান্ত টিম বাংলাদেশের ক্যাপ্টেন। কয়েকদিন আগেই শান্ত লর্ড ছিল। এসব কথা সোশ্যাল মিডিয়া থেকেই ছড়ায়।’

সুজনের চাওয়া, সমালোচনা হোক গঠনমূলক। শান্তর সাথে নতুন অধ্যায় শুরু করা প্রধান নির্বাচক গাজী আশরাফ হোসেন লিপুর ক্ষেত্রেও সুজনের একই কথা প্রযোজ্য, ‘আপনাদের দায়িত্বও খুব জরুরী। সমালোচনা থাকবেই। শান্ত ভালো খেলবে না, সমালোচনা হবে। লিপু ভাই ভালো কাজ করবে না, সমালোচনা হবে। কিন্তু ভালো কাজের পুরষ্কারের কথাও বলতে হবে। কারণ নান্নু ভাই-সুমনরা যখন ছিল তখনও বাংলাদেশ অনেক সাকসেস পেয়েছে। এটাতে কিন্তু উনাদেরও যে অবদান ছিল সেটা ভুলে গেলে চলবে না আমাদের।’

লিপুকে প্রধান নির্বাচক হতে দেখে অবাক হলেও শান্তর অধিনায়কত্ব পাওয়া নিয়ে অবাক হননি সুজন। তিনি বলেন, ‘শান্ত তিন ফরম্যাটেই খেলছে। তাই এটা আমার জন্য সারপ্রাইজিং ছিল না। সাকিব না করলে শান্তই বেস্ট চয়েজ। আমি সবসময় বলি, শান্ত মাঠের ছেলে। হয়তো আমরা দুই অধিনায়ক দিতে পারতাম। লাল বলে একজন, সাদা বলে আরেকজন। তবে শান্ত যেহেতু তিন ফরম্যাট খেলছে, ওর মধ্যে নেতৃত্বগুণও আছে। আমি শান্তকে শুভকামনা জানাই। ওকে এই বছরটা পুরোটা দিয়েছে, আমি দোয়া করি ও যেন ওর পারফরম্যান্স দিয়ে লম্বা সময় অধিনায়ক থাকে।’

আরও পড়ুন

×