ঢাকা বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪

‘লঙ্কা ম্যাচে’ ঝাঁঝ তো থাকবেই

‘লঙ্কা ম্যাচে’ ঝাঁঝ তো থাকবেই

ফিল্ড আম্পায়ার আউট দিলেন থার্ড আম্পায়ার তা নাকচ করে দেন। যা নিয়ে বিতর্ক। ছবি: এএফপি

ক্রীড়া প্রতিবেদক

প্রকাশ: ০৭ মার্চ ২০২৪ | ১৯:২৯ | আপডেট: ০৭ মার্চ ২০২৪ | ১৯:২৯

নাগিন ড্যান্স, টাইমড আউট কিংবা স্লেজিং– বাংলাদেশ আর শ্রীলঙ্কা ম্যাচ মানেই এখন এমন সব দৃশ্য। গতকাল সিলেটেও এর ব্যতিক্রম হয়নি। এই কয়েকটি চেনা দৃশ্য দেখা না গেলেও এক আউটকে কেন্দ্র করে উত্তাপ ছড়িয়ে পড়ে মাঠে। মূলত বাংলাদেশের ইনিংসের চতুর্থ ওভারের প্রথম বলে বিনুরা ফার্নান্দোর শট লেন্থের বল পুল করেছিলেন সৌম্য সরকার। আম্পায়ার গাজী সোহেল আউটের সিদ্ধান্তও দিয়ে দেন। তাঁর মতে, বটম-এজড হয়েছিলেন সৌম্য। তবে রিভিউ করেছিলেন এই বাংলাদেশি ওপেনার। আর রিভিউতে দেখা যায়, আলট্রা-এজে খানিকটা স্পাইক। 

তবে টেলিভিশন আম্পায়ার মাসুদুর রহমান বলেছেন, স্পাইক দেখানোর সময় বল ও ব্যাটের মধ্যে ‘গ্যাপ’ দেখেছেন তিনি। ততক্ষণে আউট ভেবে প্রায় বাউন্ডারির কাছে পৌঁছে যাওয়া সৌম্য ফিরে আসেন আবার। সৌম্যর এমন আসা-যাওয়া এবং আউট নিয়ে দোটানায় সন্তুষ্ট হতে পারেনি শ্রীলঙ্কা দল। আম্পায়ার শরফুদ্দৌলাকে ঘিরে ধরেন লঙ্কানরা। 

এদিকে কোচ ক্রিস সিলভারউড গিয়েছিলেন চতুর্থ আম্পায়ার তানভীর আহমেদের কাছেও। এভাবে খানিকটা সময় ধরে চলে বিতর্ক। আর বিতর্ক থামার পর আবার ব্যাট হাতে স্ট্রাইকে যান সৌম্য। শেষ পর্যন্ত তাঁর ব্যাট থেকে আসে ২২ বলে ২৬ রান। আরেক ওপেনার লিটন দাস করেন ২৪ বলে ৩৬।

তবে সৌম্যর আউট ঘিরে উত্তাপ ছড়ানো ম্যাচটা বের করে নিতে খুব একটা কষ্ট হয়নি বাংলাদেশি ব্যাটারদের। দুই উইকেট পড়ার পর বাকিরা একটু একটু করেও অবদান রাখেন। তাছাড়া লক্ষ্যও খুব একটা বেশি ছিল না। সেটা তাড়া করতে তাই আয়েশি ভঙ্গিতেই খেলে যান স্বাগতিক ব্যাটাররা। এর আগে বাংলাদেশি বোলারদের কেউ একজন আহামরি ভালো না করলেও লঙ্কানদের আটকে ফেলেন ১৬৫ রানে। 

সে ক্ষেত্রে বাংলাদেশ রয়েসয়ে শুরু করলেও ধীরে ধীরে গন্তব্যে পৌঁছাতে ব্যাটিং অভিযানটা একেবারে খারাপ হয়নি। সবকিছুর পর সৌম্য ও লিটনের ৬৮ রানের জুটিটা বাহবা পাওয়ার দাবিদার। ২০১৫ সালে মিরপুরে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে টি২০ অভিষেক হয় লিটনের। এর পর থেকে এখন পর্যন্ত ৭৬ ম্যাচে অংশ নিয়ে ১ হাজার ৭৪৭ রান করেছেন তিনি। যেখানে সর্বোচ্চ ৮৩। গত বছরের মার্চে আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে করেছিলেন তিনি। যেখানে সৌম্যর রান সংখ্যা ১ হাজার ২৭৬। লিটন যে বছর চার-ছক্কার অধ্যায়ে প্রবেশ করেছিলেন, সৌম্যও একই বছর সেখানে নাম লেখান। তবে ম্যাচ খেলেছেন লিটনের চেয়ে বেশি, ৭৭টি।

শেষটা হয় আরও সুন্দর ও গোছানো। শান্ত আর হৃদয় দুর্দান্ত ব্যাটিং করেন। শান্ত তো শট রানের পাশাপাশি বাউন্ডারিও হাঁকিয়েছেন নিয়মিত। তাঁর সঙ্গে হৃদয়ও তোলেন ছোটখাটো ঝড়। তাতে এই জুটি থকে বাংলাদেশ পায় অপরাজিত ৮৭ রান। শান্ত তুলে নেন তাঁর ক্যারিয়ারের চতুর্থ ফিফটি। ২০১৯ সাল থেকে টি২০ খেলা এই ব্যাটার এখন পর্যন্ত ৩০ ম্যাচে করেছেন ৬৭৫ রান। যেখানে সেরা ইনিংস ৭১। আর স্ট্রাইক রেট ১১৩.০৬। আর হৃদয়ের অপরাজিত ৩২ রানের ইনিংসটি সাজানো ছিল ২৫ বলে দুই চার এক ছক্কায়।

ম্যাচের পর পুরস্কার মঞ্চের লাইভ টেলিকাস্টেও অবশ্য সেই নট আউটটি নিয়ে লঙ্কান অধিনায়ক আসালাঙ্কা কিছু বলেননি। কিন্তু বিশ্বকাপে সেদিন দিল্লিতে টাইমড আউট নিয়ে রাগ-ক্ষোভ উগড়ে দিয়েছিলেন লঙ্কানরা ক্যামেরার সামনেই। এমনকি ম্যাচের পর বাংলাদেশি ক্রিকেটারদের সঙ্গে হাতও মেলাননি ম্যাথুজরা। সেদিন সংবাদ সম্মলনে এসে ক্রিকেটের স্পিরিট নিয়ে কথা বলেছিলেন ম্যাথুজ। এতটাই ক্ষুব্ধ ছিলেন যে ভবিষ্যতে বাংলাদেশের সঙ্গে ম্যাচ খেলার সম্ভাবনা নিয়েও প্রশ্ন তুলেছিলেন। সেদিনের সেই ঝাঁজ গতকালও ছিল তাঁর মধ্যে। তবে এদিন খুব বেশি বাড়াবাড়ি করেননি। 

ফিল্ড আম্পায়ার গাজী সোহেলকে এসে কিছু বলার পর এগিয়ে আসেন আরেক আম্পায়ার সৈকত। তিনি হয়তো বোঝানোর চেষ্টা করেছিলেন বল আর ব্যাটের স্পর্শে তরঙ্গটি হয়নি। আসলে বাংলাদেশের সঙ্গে ম্যাচ থাকলে এমনিতেই একটা স্নায়ুর লড়াই চলে দু’দলের মধ্যে। ২০১৮ সালের নিদহাস ট্রফিতে লঙ্কাকে যে ম্যাচে হারিয়ে মুশফিকরা ফাইনালে উঠেছিল, সেই ম্যাচেও আম্পায়ারের একটি সিদ্বান্তের প্রতিবাদ করতে গিয়ে সাকিব আল হাসান মাঠ থেকে সবাইকে উঠে আসার নির্দেশ দিয়েছিলেন। লঙ্কান মিডিয়ায় বাংলাদেশ ড্রেসিংরুমে কাচ ভাঙার ছবিও প্রকাশ করেছিল। থিসারা পেরেরার সঙ্গে নুরুল হাসান সোহানের তর্কে জড়ানোর ছবিও ভাইরাল হয়েছিল। 
অবশ্য সিলেটে আসা লঙ্কা দলের সেই ঝাঁজ অবশ্য নেই। সিরিজ শুরুর আগেই লঙ্কান কোচ সাদা পতাকা তুলে শান্তির বার্তা দিয়েছিলেন। সংবাদ সম্মেলনে ঘোষণা দিয়েছিলেন– অতীতে যা কিছু হয়ে গেছে, তা হয়ে গেছে। তারা এবার এসেছেন নতুন লক্ষ্য নিয়ে। গতকাল লঙ্কান অধিনায়ক আসালাঙ্কাও তেমনই বললেন। ‘আমরা আসলে ভালো বোলিং করতে পারিনি। শান্ত, হৃদয় আর লিটন দারুণ ব্যাটিং করেছে। জয়ের কৃতিত্ব তাদের। আমরা চেষ্টা করব পরের ম্যাচে এই ভুলগুলো শুধরে সিরিজ জিততে।’

আরও পড়ুন

×