ঢাকা রবিবার, ২৬ মে ২০২৪

‘শর্ত দিয়ে খেলবে, কথাটা খারাপ দেখায়’, তামিম প্রসঙ্গে সুজন

‘শর্ত দিয়ে খেলবে, কথাটা খারাপ দেখায়’, তামিম প্রসঙ্গে সুজন

ছবি- সংগৃহীত

ক্রীড়া প্রতিবেদক

প্রকাশ: ১১ মার্চ ২০২৪ | ১৮:১৭ | আপডেট: ১১ মার্চ ২০২৪ | ১৯:৩১

তামিম ইকবাল আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফিরবেন কি, ফিরবেন না- তা নিয়ে অনেকদিন ধরেই জল্পনাকল্পনা চলছে। বিপিএলে শেষে এর একটা সমাধান মিলবে বলা ধারণা করা হচ্ছিল। বিপিএল ফাইনালের পর সংবাদ সম্মেলনে এসে তামিম জানিয়েছিলেন, ‘আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফিরতে হলে অনেক কিছু ঠিক হতে হবে।’ এরপর বোর্ড সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন জানিয়েছিলেন, তামিমের সঙ্গে বসে এ ব্যাপারে কথা বলবে বিসিবি। 

এর মধ্যে বোর্ডের কর্মকর্তাদের সঙ্গে তিনবার বৈঠকে বসে তামিম একই কথা বারবার বলেছেন। কী সেই কথা, তা বিসিবিই জানাবে। দেশের একটি বেসরকারি টিভিতে দেওয়া সাক্ষাৎকারে জাতীয় দলে ফেরা, অবসর ছাড়াও নানা বিষয়ে কথা বলেছেন তামিম। এক প্রশ্নের জবাবে সাবেক এই অধিনায়ক বলেন, ‘জিনিসটা এমনভাবে (দেখানো) হচ্ছে, যেন আমি ঝুলিয়ে রেখেছি। আসলে এটা ঠিক না। আমার সাথে বিসিবির অলরেডি তিনবার বসা হয়ে গেছে। পাপন ভাইয়ের সাথে বসেছি, তদন্ত কমিটির সাথেও বসা হয়েছে। তো নিশ্চয়ই কোনো একটা বিষয়ে বসা হয়েছে। আমি আমার জায়গা থেকে প্রথম থেকেই পরিস্কার (ক্লিয়ার) ছিলাম। এখানে নতুন করে আমার পক্ষ থেকে তাদের কাছে কোনো কিছু বলার নাই। এখন উনারা আবার বসতে চাচ্ছে।’

তামিম জাতীয় দলে ফিরবেন কি না, সেটাই এখন বড় প্রশ্ন দেশের ক্রিকেটে। উত্তরটা তামিম এর আগেও দিয়েছেন, আবারও বললেন, ‘একটা জিনিস ভুল। আমি বলেছিলাম যে, আমাকে ফেরাতে হলে অনেক কিছু ঠিক করতে হবে। অনেক কিছু পরিবর্তন করতে হবে এবং ঠিক করতে হবে, এর মধ্যে পার্থক্য আছে। আমাকে ফেরাতে হলে সব নিয়ম পরিবর্তন করতে হবে, এটা আমি কখনো বলব না।’

তামিমের ফেরা নিয়ে সর্বক্ষেত্রে যেই চর্চা হচ্ছে, তা নিয়ে বিরক্ত বিসিবি পরিচালক ও ক্রিকেট অপারেশন্সের ভাইস চেয়ারম্যান খালেদ মাহমুদ সুজন। তিনি সরাসরি তামিম ইকবালের ইস্যু নিয়ে সমালোচনা করেছেন। তার মতে, ‘জাতীয় দল সবার আগে প্রাধান্য পাবে। এখানে শর্ত দিয়ে ফেরা শোনাটাই খারাপ লাগে।’

আজ মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে পারটেক্সের বিপক্ষে প্রিমিয়ার লিগে আবাহনীর ম্যাচের পর সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেছেন সুজন, ‘দেখুন, তামিমের অভিজ্ঞতা নিয়ে, পারফরম্যান্স নিয়ে কারও তো কোনো কথা নেই। মিডিয়ায় আমিও শুনি। তামিমের সঙ্গে আমার কথা হচ্ছে অনেকদিন ধরে। এবারের বিপিএলে তামিমের সঙ্গে আমার শুধু হাত মেলানো হয়েছে খেলা শেষে। ওইভাবে বসে কথা হয়নি। আমি বলতে পারব না ও কি চাচ্ছে না চাচ্ছে। যেহেতু ও স্পেসিফিকালি প্রেসিডেন্ট স্যারের সঙ্গেই বসতে চাচ্ছে, এখানে আমার কথা না বলাই ভালো।’ 

পরে যোগ করেন, ‘কথা বলুক, কেন খেলতে চাচ্ছে না, কি হলে খেলবে, এটা ওকে প্রেসিডেন্ট স্যারকে ক্লিয়ার করাইটাই ভালো। এটার মধ্যে আমাদের থার্ড পারসন না যাওয়াটাই ভালো। আমরা সবাই চাই তামিম ফিরে আসুক। খেলতে চাইলে অবশ্যই খেলবে। কিন্তু শর্ত দিয়ে খেলবে, এই কথাটা শুনতে যেন কেমন দেখায়, বিইং এ ক্রিকেটার। আমি জাতীয় দলের হয়ে খেলব, দেশ, জাতীয় দল – এসব অনেক আগে, অনেক ঊর্ধ্বে। এখানে আসলে শর্ত থাকবে কী থাকবে না, এই কথাটা শুনতেই খারাপ দেখায়।’

সুজন আরও বলেন, ‘তামিম এত বছর বাংলাদেশ দলকে সার্ভিস দিয়েছে, ওকে আমাদের প্রয়োজন। টিম, সিলেক্টররা আছেন, তারা যদি মনে করেন তামিমকে আমাদের প্রয়োজন… অবশ্যই তামিমকে আমাদের প্রয়োজন। দরকার হলে খেলবে। কিন্তু সেটা কোন কিছুর বিনিময়ে বা কোন শর্তে, সেটা কতোটা যৌক্তিক, আমি নিজেও বলতে পারব না।’

তামিমের সঙ্গে বোর্ডের আলোচনায় বসতে কেন এত সময় লাগছে, সে প্রশ্নও তুলেছেন মাহমুদ, ‘আমি অ্যাকচুয়েলি কোন কমেন্টই করতে চাই না এই বিষয়টা নিয়ে। অবশ্যই তামিম বাংলাদেশ ক্রিকেটের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ একজন খেলোয়াড়। সেটা বোর্ডই সিদ্ধান্ত নেবে। ও যেহেতু বলেছে বোর্ডের সঙ্গে বসবে। পাপন ভাই যেহেতু কথা বলতে চেয়েছেন। পাপন ভাই সিরাজ ভাই ও জালাল ভাইকে সেই দায়িত্বটা নিয়েছেন। কোনটা ঠিক সময়ে বলবে, কখন বলবে, কখন তাদের সময় হয় বসার, এতদিন সময় লাগছে কেন… কারণ সবাই তো আমরা বাংলাদেশেই থাকি। সেই সময়টাই বা কেন হচ্ছে না সেটা আমি জানি না। তবে আমি মনে করি যত তাড়াতাড়ি বসে একটা সুরাহা করা যাবে…এটা এমন একটা ব্যাপার যে প্রতিদিন টক অব দ্য টাউন হয়ে যাচ্ছে। আমি মনে করি বাংলাদেশ ক্রিকেট এসব কিছুর ঊর্ধ্বে।’

আরও পড়ুন

×