পেলের ফুটবল খেলা দেখার জন্য স্টেডিয়ামের গ্যালারিতে ঘণ্টার পর ঘণ্টা সময় অপেক্ষা করতে হয়েছিল দর্শকের। পৃথিবীর মায়া ছেড়ে যাওয়ার পরে তাকে শেষ শ্রদ্ধা জানাতেও জন্যও সান্তোস এফসির বাইরে ছিল এমন দীর্ঘ অপেক্ষা। প্রিয় ফুটবলারকে শেষবার একজনর দেখার আশায় রাতে তীব্র শীত উপেক্ষা করে অপেক্ষায় ছিলেন ব্রাজিলিয়ানরা।

পেলেকে শ্রদ্ধায় শেষবিদায় জানাতে ব্রাজিলে যাওয়ার কথা ছিল তারকা ফুটবলার নেইমারের। কিন্তু ব্রাজিলে যাননি তিনি। যদিও ফরাসি সংবাদমাধ্যম 'লেকিপ' জানিয়েছিল, পেলের শেষকৃত্যে যোগ দিতে সাও পাওলো যেতে ক্লাব থেকে ছুটি নিয়েছেন নেইমার।

টিএনটি ব্রাজিলের এক প্রতিবেদনে দাবি করা হয়েছে, পিএসজি থেকে ছাড়পত্র না পাওয়ায় যেতে পারেননি তারকা এ ফুটবলার। জানুয়ারির ঠাসা শিডিউলে প্যারিস জায়ান্টদের পরের ম্যাচেই খেলার কথা রয়েছে নেইমারের। আর তাই এ মুহূর্তে দেশে ফিরলে ক্লাব ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে বিধায় ছুটি দেয়া হয়নি তাকে।

তবে নেইমার উপস্থিত না হলেও তার পক্ষে শেষকৃত্যে অংশ নিয়েছেন তার বাবা নেইমার সিনিয়র। পেলের বাবা গ্লোবোকে জানিয়েছেন, কিংবদন্তির মৃত্যুতে মন খারাপ নেইমারের। তিনি বলেন, 'নেইমার আসতে পারেনি। তবে তার মন খুব খারাপ। সে আমাকে এখানে তার পক্ষ থেকে উপস্থিত থাকতে বলেছে। কাউকে হারানো কত কষ্টের সেটা আমরা বুঝি। আমরা শুধু একজন খেলোয়াড়কেই হারাইনি, একজন মানুষকেও হারিয়েছি।'

এদিকে ফুটবল কিংবদন্তির শেষ বিদায়ে নেইমারের না থাকা নিয়ে সমালোচনাও থেমে নেই। ব্রাজিলের এক সাংবাদিক বলেন, নেইমার যদি নিজে থেকে আগ্রহ দেখাত, তাহলে নিশ্চয়ই ছেড়ে দিতো পিএসজি। বিভিন্ন পার্টিতে যাওয়ার জন্য তো ক্লাবের ওপর জোর খাটায় সে। অথচ পেলেকে শ্রদ্ধা জানাতে আসতে পারল না?

শেষকৃত্যে না এলেও পেলের মৃত্যুর পর সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে শ্রদ্ধা জানিয়েছিলেন নেইমার। কিংবদন্তির মৃত্যুতে নেইমার লিখেছেন, পেলের আগে ১০ শুধুই একটা সংখ্যা ছিল। কোথাও একটা এমন লেখা পড়েছিলাম। এই বাক্যটা সুন্দর তবে অপূর্ণ। আমি বলব, পেলের আগে ফুটবল শুধুই একটা খেলা ছিল। সবকিছু পাল্টে দিয়েছিলেন পেলে। ফুটবলকে শিল্প বানিয়ে দিয়েছিলেন তিনি।