স্বীকার না করলেও মিরপুরে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে দ্বিতীয় ওয়ানডে ম্যাচের উইকেট বুঝতে কিছুটা ভুল হয়েছে বাংলাদেশ দলের। ব্যাটিং উইকেটে স্পিনারদের সামলে ফেলে বড় রান হবে এটাই ভাবনায় আনেননি তামিম ইকবাল। সেজন্য টস জিতে নিয়েছিলেন বোলিং। চট্টগ্রামের উইকেট আরও ‘আনপ্রেডিক্টেবল’। 

ভারত চট্টগ্রামে সিরিজের শেষ ওয়ানডে ম্যাচে ৪০৯ রান করেছিল। ইশান কিশান ডাবল সেঞ্চুরি করেছিলেন, বিরাট কোহলি পেয়েছিলেন সেঞ্চুরি। একই রকম উইকেট হলে জেসন রয়, জস বাটলাররা ছেড়ে কথা বলবেন না। অধিনায়ক তামিম ইকবাল এবং হেড কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহের মাথায় তাই উইকেট নিয়ে বাড়তি চিন্তা। 

দু’জন দাঁড়িয়ে উইকেট বোঝার চেষ্টা করছিলেন। বাড়তি সাজেশন্স পেতে সেন্ট্রাল উইকেটে দাঁড়িয়ে জোর গলায় তামিম ডাক দিলেন সাকিবকে। হাঁক ছেড়ে, ‘সাকিব, এই সাকিব।’ ডাক শুনে জোরের ওপর হেঁটে এলেন সাকিব। উইকেট নিয়ে দু’জন কথা-বার্তা বললেন। পাশে দাঁড়িয়ে ছিলেন কোচ হাথুরু। কী কথা হলো, কী সিদ্ধান্তে তারা পৌঁছালেন তা জানা যায়নি।

ছবি: এএফপি

 তবে স্পিন বোলিং কোচ রঙ্গনা হেরাথ উইকেট নিয়ে কিছু ধারণা দেওয়ার চেষ্টা করেছেন। তার মতে, ঢাকার উইকেটের চেয়ে চট্টগ্রামের উইকেটে কিছু পার্থক্য থাকবে। তবে ভারতের বিপক্ষে যেমন নিঁখাদ ব্যাটিং উইকেট ছিল তেমনটা হবে না। 

দলের প্রতিনিধি হয়ে রোববার সংবাদ সম্মেলনে এসে হেরাথ বলেছেন, ‘এটা ভিন্ন উইকেট (ভারতের বিপক্ষে যে উইকেটে খেলা হয়েছিল তার চেয়ে)। আমার মনে হয় না, এবারও একই রকম কিছু হবে। দল হিসেবে আমরা সেরাটা দেওয়ার চেষ্টা করছি। মিরপুরের চেয়ে এখানকার উইকেট ভিন্ন। কিছুটা বেশি শুকনো। পেসার এবং স্পিনারদের জন্য চ্যালেঞ্জিং হবে।’