ঢাকা সোমবার, ২০ মে ২০২৪

শ্রীলঙ্কায় কোয়ারেন্টাইন শিথিলের শর্তে

সফর শুধু জাতীয় দলের

সফর শুধু জাতীয় দলের

--

প্রকাশ: ১৩ সেপ্টেম্বর ২০২০ | ১২:০০ | আপডেট: ১৩ সেপ্টেম্বর ২০২০ | ২১:২৮

একের পর এক শর্ত জুড়ে সিরিজ বাতিলের পাঁয়তারা করছে শ্রীলঙ্কা। ১৪ দিনের বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টাইন ও খেলোয়াড়ের সংখ্যা কমানোর শর্ত জুড়ে শনিবার রাতে বিসিবির মেইলে 'বায়োসিকিউর বাবল' পাঠিয়েছে তারা। বিসিবি নিরুপায় হয়ে যাতে সফর বাতিল করে, তেমনই কূটকৌশলে এগোচ্ছে শ্রীলঙ্কান ক্রিকেট বোর্ড (এসএলসি)। তবে হাল ছাড়ছে না বিসিবি। কিছু জিনিস ছাড় দিয়ে হলেও লঙ্কা সফরে যেতে রাজি তারা। গতকাল মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে এক সভায় সিদ্ধান্ত হয় টাইগার টেস্ট স্কোয়াডের সাত দিনের কোয়ারেন্টাইনের প্রস্তাব এসএলসি মেনে নিলে এইচপির সফর স্থগিত করবে বিসিবি। আর এসএলসি 'বায়োসিকিউর বাবল' অনুযায়ী ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইনে অনড় থাকলে শেষ পর্যন্ত ভেস্তে যেতে পারে টাইগারদের লঙ্কা সফর।

বিসিবির নতুন প্রস্তাব

বায়োসিকিউর বাবল হাতে পাওয়ায় পরবর্তী করণীয় ঠিক করতে গতকাল মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে জরুরি সভা করে আলোচনা এগিয়ে নেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় বিসিবি। ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের চেয়ারম্যান আকরাম খান, এইচপি চেয়ারম্যান নাঈমুর রহমান দুর্জয়, গেম ডেভেলপমেন্ট চেয়ারম্যান খালেদ মাহমুদ সুজন, সিইও নিজামউদ্দিন চৌধুরী ও প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নুর উপস্থিতিতে সভায় সিদ্ধান্ত হয়, শ্রীলঙ্কা রাজি থাকলে এইচপির সফর স্থগিত করে ৩০ থেকে ৩৫ জনের বহর নিয়ে খেলতে যাবে জাতীয় দল। তবে ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইনের অষ্টম দিন থেকে অনুশীলনের সুযোগ দিতে হবে টাইগারদের। 

বায়োসিকিউর বাবলের শর্ত

শ্রীলঙ্কান স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় কর্তৃক প্রস্তুতকৃত বায়োসিকিউর বাবলে ১৪ দিনের বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টাইনের শর্ত জুড়ে দেওয়া হয়েছে। কোয়ারেন্টাইনের দিনগুলোতে হোটেল থেকে বের হতে পারবেন না স্কোয়াডের কোনো সদস্য। কোয়ারেন্টাইনকালীন কভিড টেস্টের বাধ্যবাধকতাও রাখা হয়েছে বায়ো বাবলে। উল্লেখযোগ্য দিক হলো, ৩০ জনকে নিয়ে ছোট করতে বলা হয়েছে ক্রিকেটারদের বহর। খেলোয়াড় কমানোর ওপর জোর দিয়েছে এসএলসি।

এসএলসির আগের অবস্থান

এসএলসির সঙ্গে আলোচনা করে সফর এগিয়ে নিচ্ছিল বিসিবি। প্রথম দিকের আলোচনা ছিল তৃতীয় দিন থেকে অনুশীলন করতে পারবে বিসিবি। সেক্ষেত্রে দু'বার কভিড টেস্ট দিতে হতো। বিমানবন্দর পৌঁছানোর পর আর হোটেলবাসের দ্বিতীয় দিন। পরে শ্রীলঙ্কা থেকেই ছয় দিন কোয়ারেন্টাইনে থাকার শর্ত দেওয়া হয়। দেশটিতে পৌঁছানোর পর থেকে ছয় দিনে তিনবার কভিড টেস্ট করতে হতো। তাতেও রাজি ছিল বিসিবি। কিন্তু বায়োসিকিউর বাবল প্রস্তুতের কাজ শুরু হলে একসঙ্গে দুটি দলের ব্যবস্থাপনা ব্যয়বহুল হওয়ায় কঠিন শর্ত জুড়ে দিতে থাকে এসএলসি।

 বিসিবির চাওয়া ছিল

কন্ডিশনিং ক্যাম্পের স্বার্থে জাতীয় দলের সঙ্গে এইচপি স্কোয়াড নিয়ে যেতে চেয়েছিল বিসিবি। জাতীয় দলের পাশাপাশি এইচপি দলের সিরিজ ছিল স্বাগতিক এইচপির সঙ্গে। দুটি চার দিনের ও তিনটি একদিনের ম্যাচ খেলার কথা ছিল তাদের। সেক্ষেত্রে ৬৫ জনের বহর নিয়ে যেত হতো বাংলাদেশকে। এসএলসি শুরু থেকে তাতে রাজি থাকলেও বায়োসিকিউর বাবলের মাধ্যমে নতুন কৌশল নিয়েছে। খেলোয়াড় কমানোর শর্ত জুড়ে দিয়ে এইচপির সফর স্থগিত করতে বাধ্য করছে তারা।

 আকরাম খানের ব্যাখ্যা

শ্রীলঙ্কার গাইডলাইন আমরা পেয়েছি। ওরা ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইনের কথা বলেছে। বিসিবি থেকে কাল মেইল করা হবে কোয়ারেন্টাইন সাত দিন করার জন্য। ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইন হলেও অষ্টম দিন থেকে অনুশীলন করতে দিলে সমস্যা হবে না। মঙ্গলবার হয়তো আমরা আপডেট জানাতে পারব।

 সিইও নিজামউদ্দিন চৌধুরীর বক্তব্য

এসএলসি তাদের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের গাইডলাইন (বায়োসিকিউর বাবল) পাঠিয়েছে। এ ব্যাপারে এখনও বেশি কিছু বলা ঠিক হবে না। আলোচনা এগিয়ে নিতে আরও দু-একদিন লাগবে।

 এসএলসি সিইও নীরব

বায়োসিকিউর বাবল ও বাংলাদেশ দলের সফর সম্পর্কে জানতে এসএলসির সিইও অ্যাশলে ডি সিলভার হোয়াটসঅ্যাপ নম্বরে ফোন করা হলে কেটে দেন তিনি। হোয়াটসঅ্যাপে মেসেজ দেওয়া হলে প্রতিক্রিয়া জানাতে রাজি হননি। তবে এসএলসি জানায়, দেনদরবার করে বিসিবিকে কিছু সুবিধা আদায় করে নিতে হবে।

শেষ পর্যন্ত সফরটি হলে কিছু জটিলতা থেকেই যাবে। ঢাকা থেকে চার্টার্ড প্লেনে যাওয়া ক্রিকেটার ও কোচিং স্টাফের সদস্যদের হয়তো সাত দিন পর অনুশীলনের অনুমতি দেবে। কিন্তু নিউজিল্যান্ডের ড্যানিয়েল ভেট্টরি ও ক্রেইগ ম্যাকমিলানকে ১৪ দিনই বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টাইন করতে হতে পারে।

আরও পড়ুন

×