শীর্ষ সন্ত্রাসীর পরিচয়ে ফোন করে চাঁদা দাবির ঘটনায় বিভিন্ন থানায় সাধারণ ডায়েরির পর এবার সতর্ক থাকার পরামর্শ দিয়ে শাখা কর্মকর্তাদের চিঠি দিয়েছে রূপালী ব্যাংক। সরকারি সংস্থার কর্মকর্তা পরিচয়ে আমানত রাখার আশ্বাসেও পাত্তা না দিতে বলা হয়েছে। রোববার রূপালী ব্যাংকের প্রধান কার্যালয় থেকে সব শাখায় এ সতর্কবার্তা পাঠানো হয়েছে বলে জানা গেছে।

সূত্র জানায়, বেশ কয়েকদিন ধরে রাষ্ট্রীয় মালিকানার রূপালী ব্যাংকের কর্মকর্তাদের সন্ত্রাসী শাহাদাত, আরমানসহ বিভিন্ন পরিচয়ে ফোন করা হচ্ছিল। অন্য অনেক ব্যাংকের কর্মকর্তাদেরও বিচ্ছিন্নভাবে ফোন করা হলেও শুধু ঢাকাতেই রূপালী ব্যাংকের অন্তত ২০টি শাখার বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তাদের ফোন করা হয়েছে। এরই মধ্যে অনেক শাখাপ্রধান কার্যালয়ের অনুমতি নিয়ে পার্শ্ববর্তী থানায় সাধারণ ডায়েরি করেছেন। এ ছাড়া যেসব নম্বর থেকে কর্মকর্তাদের ফোন করা হয়েছে তার একটি তালিকা র‌্যাবকে দিয়ে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়ার অনুরোধ করা হয়েছে। এখন এ বিষয়ে ভীত না হতে এবং টাকা না দেওয়ার বিষয়ে সতর্ক করা হলো।

রূপালী ব্যাংকের এক কর্মকর্তা সমকালকে বলেন, সাধারণভাবে বড় অঙ্কের আমানতের জন্য বিভিন্ন ব্যাংক সরকারি দপ্তরে যোগাযোগ করে থাকে। সন্ত্রাসী পরিচয়ের পাশাপাশি সরকারি সংস্থার ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা পরিচয়েও অনেক ফোন এসেছে। আমানত দেওয়ার জন্য আগাম কিছু অর্থ চাওয়া হয়েছে। তবে বর্তমানে যেহেতু রূপালী ব্যাংকসহ অধিকাংশ ব্যাংকের হাতে প্রচুর নগদ টাকা রয়েছে, সে কারণে এখন এটি পাত্তা পাচ্ছে না। ফলে সন্ত্রাসী পরিচয়েই বেশি ফোন পেয়েছেন কর্মকর্তারা।