বাজেট ঘোষণার পর টানা তৃতীয় দিনে শেয়ার লেনদেনে অস্থিরতা চলছে। মঙ্গলবার দিনের লেনদেনের শুরু থেকে একমাত্র বীমা ছাড়া অন্য সব খাতের অধিকাংশ শেয়ার দর হারিয়ে কেনাবেচা হচ্ছে।

লেনদেন শুরুর প্রথম দুই ঘণ্টা শেষে দুপুর ১২টায় প্রধান শেয়ারবাজার ডিএসইতে ১৩২ শেয়ারের দরবৃদ্ধির বিপরীতে ২০৫ শেয়ারকে দর হারিয়ে কেনাবেচা হতে দেখা গেছে। এ সময় দর অপরিবর্তিত ছিল ২৮ শেয়ারের।

বেশিরভাগ শেয়ার দর হারিয়ে কেনাবেচা হলেও প্রধান সূচক ডিএসইএক্স প্রায় ৬ পয়েন্ট বেড়ে ৫৯৮১ পয়েন্টে অবস্থান করছিল। এ সময়ে সূচকের বৃদ্ধিতে সবচেয়ে বেশি অবদান রেখেছে বেক্সিমকো এবং বীমা খাতের শেয়ারের দরবৃদ্ধি।

খাতওয়ারি লেনদেন পর্যালোচনায় দেখা গেছে, একমাত্র বীমা খাতের শেয়ারই লেনদেনের শুরু থেকে দর বেড়ে কেনাবেচা হচ্ছে। দুপুর ১২টায় খাতটির ৫০ শেয়ারের মধ্যে ৪৩টিকে দর বেড়ে কেনাবেচা হতে দেখা গেছে। গড়ে দর বেড়েছে ৩.৬২ শতাংশ।

একই সময়ে ব্যাংক খাতের ৩১ কোম্পানির মধ্যে ২০টি দর হারিয়ে কেনাবেচা হচ্ছিল, দর বেড়ে কেনাবেচা হচ্ছিল আটটি। গড়ে দর কমেছে ০.৫২ শতাংশ। প্রকৌশল খাতের ৪২ কোম্পানির মধ্যে ৩১টি দর হারিয়ে কেনাবেচা হচ্ছিল, দর বেড়ে কেনাবেচা হচ্ছিল ১০টি।

ওষুধ ও রসায়ন খাতের ৩১ কোম্পানির মধ্যে ২৩টি দর হারিয়ে কেনাবেচা হচ্ছিল, দর বেড়ে কেনাবেচা হচ্ছিল তিনটি। বস্ত্রখাতের ৫৬ কোম্পানির মধ্যে ২৭টি দর হারিয়ে কেনাবেচা হচ্ছিল, দর বেড়ে কেনাবেচা হচ্ছিল ২৩টি।

জ্বালানি ও বিদ্যুৎখাতের ২২ কোম্পানির মধ্যে ১৮টি দর হারিয়ে কেনাবেচা হচ্ছিল, দর বেড়ে কেনাবেচা হচ্ছিল তিনটি। সিমেন্ট খাতের সাত কোম্পানির মধ্যে ছয়টি দর হারিয়ে কেনাবেচা হচ্ছিল, দর বেড়ে কেনাবেচা হচ্ছিল একটি।

দুপুর ১২টা পর্যন্ত ডিএসইতে ৯১৪ কোটি ৭২ লাখ টাকার শেয়ার কেনাবেচা হয়েছে।

এ সময় পর্যন্ত একক খাত হিসেবে বীমায় সর্বাধিক ২৫১ কোটি টাকার শেয়ার কেনাবেচা হয়, যা মোট লেনদেনের ২৮ শতাংশ। সোমবার ডিএসইর মোট লেনদেনে এ খাতের অংশ ছিল ২০.৫৫ শতাংশ। অর্থাৎ মঙ্গলবার এ খাতে লেনদেন বাড়ছে।

একক কোম্পানি হিসেবে বেক্সিমকো বরাবরের মতো লেনদেনে শীর্ষে। দুপুর ১২টা পর্যন্ত ডিএসইতে এ কোম্পানির ৮৪ কোটি ১৪ লাখ টাকার শেয়ার কেনাবেচা হয়। সোমবারের তুলনায় এক টাকা ৮০ পয়সা বেড়ে এ সময় শেয়ারটি ৯২ টাকা ৮০ পয়সায় কেনাবেচা হতে দেখা গেছে।

এ সময় ৯ থেকে ১০ শতাংশ দর বেড়ে দরবৃদ্ধির শীর্ষে অবস্থান করছিল ন্যাশনাল হাউজিং অ্যান্ড ফাইন্যান্স, ঢাকা ইন্স্যুরেন্স, ন্যাশনাল ফিড ফিলস, রিং শাইন টেক্সটাইল, সাফকো স্পিনিং এবং কপারটেক ইন্ডাস্ট্রিজ।

বিপরীতে ৫ শতাংশের ওপর দর হারিয়ে দরপতনের শীর্ষে ছিল ইমাম বাটন এবং ইসলামিক ইন্স্যুরেন্স।

মন্তব্য করুন