রাজধানীর ওয়ারী এলাকার আব্দুল মালেকের ছেলে স্বাধীন আহমদ সাগর। পরিবারের সবার সঙ্গে যাচ্ছিলেন সিলেটে হযরত শাহজালাল (র.)-এর মাজার জিয়ারত করতে। সঙ্গে ছিলেন তার চার ভাই, ছয় বোন, তাদের মা, দুই বোনের স্বামী ও এক ভাগ্নে। 

বৃহস্পতিবার রাতে ঢাকা থেকে লন্ডন পরিবহনের একটি বাসে তারা সিলেটের উদ্দেশে রওনা দেন। কিন্তু তাদের আর মাজার জিয়ারত করা হয়নি। 

শুক্রবার সকালে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের রশিদপুর এলাকায় এনা পরিবহন ও লন্ডন এক্সপ্রেসের দুটি বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত হন স্বাধীন। এ দুর্ঘটনায় গুরুতর আহত তার দুই বোনের অবস্থাও আশঙ্কাজনক।

স্বাধীন ঢাকার একটি কলেজের ইন্টারমিডিয়েটের ছাত্র ছিলেন।

নিহত স্বাধীনের ভাই জাহিদ হোসেন রাজ সমকালকে বলেন, লন্ডন এক্সপ্রেসের বাসটিতে ২৮ জন যাত্রী এবং চালক, তার সহকারী ও সুপারভাইজার ছিলেন। এদের মধ্যে তারা একই পরিবারের ছিলেন ১৫ জন। কিছু বুঝে ওঠার আগেই তাদের বাসের সঙ্গে এনা পরিবহনের বাসটির মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে সবাই ছিটকে বিভিন্ন দিকে গিয়ে পড়েন। এতে ঘটনাস্থলেই তার ভাই মারা যান। তার দুই বোনের অবস্থাও গুরুতর। তারা মাথায় ও নাকে-মুখে গুরুতর আঘাত নিয়ে ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি আছেন।

শুক্রবার সকাল ৭টার দিকে দক্ষিণ সুরমা থানার রশিদপুর এলাকায় এ ঘটনায় আট জন নিহত হয়েছে। এছাড়া দুই বাসের আরও ৩৫ যাত্রী আহত হয়েছেন। তাদের মধ্যে ১৮ জন ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি আছেন।

মন্তব্য করুন