শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটের প্রধান সমন্বয়ক ডা. সামন্ত লাল সেন বলেছেন, ‘আপনারা হাসপাতালে অযথা ভিড় করবেন না। এতে আহতদের লাভের চেয়ে ক্ষতিই বেশি হবে। এতে চিকিৎসকদেরও পড়তে হয় বিড়ম্বনায়। সংকটাপন্ন রোগীদের ঢাকায় নেওয়া হবে এবং ঢাকায় গিয়ে প্রধানমন্ত্রীকে সব বিষয় জানাবো।’

সোমবার দুপুরে চমেক হাসপাতালে গিয়ে সীতাকুণ্ড ট্র্যাজেডিতে দগ্ধ রোগীদের শারীরিক অবস্থা পর্যবেক্ষণ করেন ডা. সামন্ত লাল সেনসহ তিন সদস্যের বিশেষজ্ঞ দল। পরে সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা জানান তিনি। 

ডা. সামন্ত লাল আরও বলেন, ‘ইনফেকশনের কারণে পুড়ে যাওয়া একটি ক্ষত অনেক বড় হয়ে যায়। তাই রোগীর চারপাশে অনেক মানুষের ভিড়ের সৃষ্টি হলে ইনফেকশন ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা বেশি থাকে।’

তিনি বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে বিস্ফোরণে আহত রোগীদের সর্বোচ্চ চিকিৎসা প্রদানের ব্যবস্থা করা হবে। গতকাল অনেককে ঢাকায় নিয়ে যাওয়া হয়েছে। চমেক হাসপাতালে ভর্তি হওয়া রোগীদের মধ্যে তিনজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। তাদেরকেও ঢাকায় নিয়ে যাওয়া হবে। আহতদের কীভাবে সুস্থ করা যায়, ভবিষ্যতে কি করবো এসব পরিকল্পনা ঠিক করবো আমরা। ঢাকায় ভর্তি হওয়া রোগীদের অবস্থাও ভালো না। সব কিছু বিবেচনায় এনে আমাদের পরিকল্পনা করতে হচ্ছে। ঢাকায় গিয়ে প্রধানমন্ত্রীকে সব বিষয় জানাব আমরা।’

এসময় কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক ও প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারী বিপ্লব বড়ুয়া, চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মমিনুর রহমান, যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য নিয়াজ মোর্শেদ এলিট, চমেক হাসপাতালের পরিচালক মো. শামিম আহসানসহ বিভিন্ন বিভাগের চিকিৎকরা উপস্থিত ছিলেন।