পাবনার সাঁথিয়ায় অপহরণ ও চাঁদাবাজি মামলায় উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক হাসিবুল খান সানা ও উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম আহবায়ক সরদার রুবেলসহ ৫ জনকে আটক করেছে পুলিশ। 

সাঁথিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আশিফ মোহাম্মদ সিদ্দিকুল ইসলাম সমকালকে জানান, ছাত্রলীগ নেতা ছানা ও রুবেলের বিরুদ্ধে থানায় আরও মামলা রয়েছে। সোমবার দুপুরে আটক হওয়া আসামিদের আদালতের মাধ্যমে পাবনা জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

জানা যায়, সাথিঁয়া উপজেলার ভদ্রকোলা গ্রামের বিল্লালের ছেলে আদম ব্যবসায়ী হেলাল উদ্দিনকে রোববার সন্ধ্যায় মাজগ্রাম বাজার থেকে উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক হাসিবুল খান সানার নেতৃত্বে অপহরণ করা হয়। 

পরে তাকে সাঁথিয়া উপজেলা সদরে ফ্রেস টু ফ্রেস কার্যালয়ে আটক করে ১৫ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে। হেলাল চাঁদা দিতে অস্বীকৃতি জানালে তাকে মারপিট করা করে ছাত্রলীগ কর্মীরা।

পরে হেলালের স্বজনেরা ৯৯৯ এ ফোন দিলে সাঁথিয়া থানা পুলিশ হেলালকে রাত ৮টার দিকে ফ্রেস টু ফ্রেস কার্যালয় থেকে উদ্ধার করে। 

এসময় উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক হাসিবুল খান সানা (৩২), উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম আহ্বায়ক সরদার রুবেল (৩৫), পৌরসভার কোনাবাড়িয়া গ্রামের নৃপেনের ছেলে সন্দীপ (২৫), ভদ্রকোলা গ্রামের আজগরের ছেলে ইয়াছিন (৩৫) ও একই গ্রামের আবুল কালামের ছেলে মিলনকে (৪৫) আটক করে। 

এ ব্যাপারে হেলাল উদ্দিন বাদী হয়ে পাঁচ জনের নাম উল্লেখ করে অপহরন ও চাঁদাবাজির মামলা করেন। 

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, সাঁথিয়া উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক হাসিবুল খান সানা ইতোপূর্বে এক ঠিকাদারের ম্যানেজারকে মারপিট ও চাঁদাদাবি করে। এ ব্যাপারে থানায় মামলা হয়। 

এছাড়াও ছানা ও রুবেলের বিরুদ্ধে জেলার প্রবীণ সাংবাদিক হাবিবুর রহমান স্বপনকে লাঞ্ছিত করার অভিযোগ রয়েছে।