জয়ার ‘কণ্ঠ’ দেখতে রোগীদের উপদেশ দেবী শেঠির

প্রকাশ: ১০ মে ২০১৯     আপডেট: ১০ মে ২০১৯      

বিনোদন ডেস্ক

জয়া আহসান ও দেবী শেঠি

বাংলাদেশ ও পশ্চিমবঙ্গ দুই জায়গাতেই অভিনয়ের দ্যুতি ছড়াচ্ছেন জয়া আহসান। শুক্রবার কলকাতায় মুক্তি পেলো জয়া অভিনীত ছবি ‘কণ্ঠ’। ছবিটি পরিচালনা করেছেন নন্দিতা রায় ও শিবপ্রসাদ মুখার্জী।

ছবিটির মূল চরিত্রে আছেন অর্জুন, যিনি পেশায় একজন রেডিও জকি। গলায় ক্যানসার ধরা পড়ে তার। ফলে স্বরযন্ত্র কেটে ফেলতে হয়। সুন্দর কণ্ঠ তো নয়ই, গলা দিয়ে বেরোতে থাকে অদ্ভুত স্বর। এতে হতাশায় ডুবে যান তিনি। ঠিক এমন সময়ে এগিয়ে আসেন একজন ‘স্পিচ থেরাপিস্ট’। তিনিই জয়া আহসান।

ছবিটি মুক্তির আগে ট্রেলার প্রকাশের পরই নিউইয়র্কে চিকিৎসাধীন ক্যানসার আক্রান্ত বলিউড অভিনেতা ঋষি কাপুর প্রশংসা করেন। তার মতো করে ছবিটিকে প্রশংসায় ভাসিয়েছেন ভারতের অনেক বিখ্যাতজনও। 

ভারতের কার্ডিয়াক সার্জন দেবী শেঠি। যিনি শুধু ভারত নয়, উপমহাদেশের অন্যতম সেরা ও জনপ্রিয় কার্ডিয়াক সার্জন। অল্প খরচে উন্নত চিকিৎসা দেওয়ার জন্য ভারত সরকার ২০১২ সালে তাকে 'পদ্মভূষণ' পদকে ভূষিত করেন। জয়ার 'কণ্ঠ' দেখতে গিয়েছিলেন তিনিও।

ছবিটি দেখার পর এক বিবৃতিতে দেবী শেঠি বলেন, 'এই ছবি ক্যানসারে আক্রান্ত রোগীকে আশা জোগায়। বিশ্বাস দেয়– তারা সুস্থ হয়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরবে পারবেন। তারাও জীবন উপভোগ করতে পারবেন। ভবিষ্যতের সুন্দর দিনে তাদের অধিকার আছে। আর যেভাবে গল্পটা বলা হলো, এটা এক কথায় অসাধারণ।'

জয়ার অভিনয়ে মুগ্ধ শেঠি বলেন, ‘ছবিটিতে স্পিচ থেরাপিস্ট ছিলেন জয়া। তার অভিনয় বেশ ভালো হয়েছে। মনেই হয়নি তিনি অভিনয় করছেন।

তিনি তার রোগীদের এই সিনেমা দেখতে উপদেশ দেবেন বলেও এ সময় জানান। নিজের হাসপাতাল নারায়ণা হৃদয়ালয়েও ছবিটির বিশেষ কয়েকটি প্রদর্শনীর অনুরোধও করেছেন ডা. শেঠি।

জানা গেছে, ১৯৯৯ সালে টেলিভিশনে কাজ করার সময় বিভূতি চক্রবর্তী নামের এক ব্যক্তির সঙ্গে পরিচয় হয় পরিচালক শিবপ্রসাদের। লোকটি কণ্ঠ ক্যানসারে আক্রান্ত হয়েছিলেন। তিনি ক্যানসারের সঙ্গে লড়াই করে জয়ী হন। সেই বিভূতির কাছেই ক্যানসারের সঙ্গে লড়াইয়ের গল্প শুনেছিলেন শিব। তখনই গল্পটি নিয়ে সিনেমা তৈরির সিদ্ধান্ত নেন। এই ছবির মধ্য দিয়ে ক্যানসার নিয়ে সবার মধ্যে কিছু বার্তা পৌঁছে দিতে চেয়েছেন শিবপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়।

বিষয় : জয়া আহসান কণ্ঠ দেবী শেঠি বিনোদন