ভালবাসা দিবসে প্রকাশ করা হয়েছে অভিনেত্রী শ্রীলেখা মিত্রের প্রথম পরিচালক 'বিটার হাফ' ছবির পোস্টার। কেন ছবির নাম বিটার হাফ- এ বিষয়ে শ্রীলেখা বলেন, ঢাকঢোল পিটিয়ে যে ভালবাসা দেখানো হয়, অনেক সময়ই পর্দার আড়ালে তার অন্য রূপটা ধরা পড়ে। বেটার-হাফ কখন হয়ে যায় 'বিটার হাফ', ভালবাসার সততা কিভাবে মারা যায়, সেটাই তুলে ধরার চেষ্টা করা হয়েছে ছবিতে। 

সোশ্যাল মিডিয়ায় নিজের ওয়ালে বিটার-হাফ ছবির পোস্টার শেয়ার করে শ্রীলেখা জানিয়েছেন, ক্যামেরার সামনে অভিনয় করলেও তিনি বরাবরই ক্যামেরার পিছনের মানুষদের  শ্রদ্ধা করে এসেছেন। তাদের কাছ থেকে অনেক কাজ শিখেছেন। ক্যামেরার পেছনের অভিজ্ঞতাগুলোই কাজে লাগিয়েছেন তিনি। তার কথায়, 'খবরদারি, বাজে ব্যবহার নয়, অভিনেতা, অভিনেত্রীদের সহমর্মিতা ও ভালবাসা দিয়ে কাজ করানো উচিত। কাজে ভুল হলে ছোটদের আদর করে বকা উচিত।' 

'বিটার-হাফ' ছবিতে ভরত কল, চান্দ্রি মুখোপাধ্যায় ছাড়াও গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে অভিনয় করেছেন শ্রীলেখা নিজেও। গুণী এ অভিনেত্রী জানান, অভিনয় করতে গিয়ে বেশ অসুবিধায় পড়েছিলেন। কারণ পরিচালনার পাশাপাশি তাকে নজর রাখতে হয়েছে প্রোডাকশনের অনান্য কাজেও। অল্প বাজেট হওয়ায় ছোট্ট টিম নিয়ে পরিবারের মতো কাজ করেছেন। তাই বড় বোনের মতো সব বিষয়ের খেয়াল রাখতে গিয়ে অভিনয়ে মন দিতে একটু অসুবিধা হয়েছিল। তাই নিজের অভিনয় নিয়ে মনের মধ্যে খুঁতখুঁতে ভাবটা রয়ে গেছে।

সংবাদ প্রতিদিন জানায়, সাইকোলজিক্যাল থ্রিলার এ ছবির গল্প লিখেছেন শ্রীলেখা নিজেই। আর ইন্দ্ররূপ ভট্টাচার্য চিত্রনাট্যে রূপ দিয়েছেন। 'বিটার হাফ' ছবির ডাবিং এখনও শেষ হয়নি। চলছে পোস্ট প্রোডাকশনের কাজ। ওটিটি প্ল্যাটফর্মে ছবিটি মুক্তির আগে তা বিভিন্ন ফেস্টিভ্যালে পাঠানোর কথাও ভাবছেন পরিচালক শ্রীলেখা।  তিনি জানান, ভাল-খারাপ যেমনই হোক, দর্শকদের কাছ থেকে সত্যটা শোনার আশা রাখছেন।

মন্তব্য করুন