ঢাকা মঙ্গলবার, ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

গাইডলাইন

জিমেইলে খুঁটিনাটি

জিমেইলে খুঁটিনাটি

অযাচিত ই-মেইলের ভিড়ে প্রয়োজনীয় ই-মেইল খুঁজে পাওয়া দুরূহ। ফলে বহুবিধ সমস্যার মুখোমুখি হতে হয়। টিপস বুঝে চললে দ্রুতই সব পুরোনো ই-মেইল চিহ্নিত করা সম্ভব

জিয়াউল কবির

প্রকাশ: ২২ জানুয়ারি ২০২৪ | ০০:০৬

জিমেইলে জমে হাজারো ই-মেইল আর অ্যাটাচমেন্ট। অপ্রয়োজনীয় ই-মেইলে ভরে যায় ইনবক্স, যা স্টোরেজের বড় অংশ দখলে নেয়। ফলে স্মার্টফোনে জরুরি অ্যাপ বা ফাইল সেভ করতে সমস্যায় পড়তে হয়। জমে থাকা ই-মেইলের অধিকাংশ পুরোনো ফাইল। সেগুলো কীভাবে বেছে বেছে ডিলিট করবেন, তা জানা জরুরি।
জিমেইলে জমেছে অগণিত ই-মেইল। যার মধ্যে অধিকাংশই বহু মাস বা বছর পুরোনো। ই-মেইল জমে থাকার ফলে দ্রুত স্টোরেজ শেষ হয়ে যায়। প্রতি জিমেইল অ্যাকাউন্ট ১৫জিবি স্টোরেজই ফ্রি দিয়ে থাকে গুগল, যা শেষ হয়ে গেলেই ঘটে বিপত্তি।
অযাচিত ও অপ্রয়োজনীয় ই-মেইলের ভিড়ে প্রয়োজনীয় ই-মেইল খুঁজে পাওয়া দুরূহ। ফলে বহুবিধ সমস্যার মুখোমুখি হতে হয়। টিপস বুঝে চললে দ্রুতই সব পুরোনো ই-মেইল চিহ্নিত করা সম্ভব। আর স্টোরেজও ফাঁকা হবে নিমেষেই।
কীভাবে খুঁজবেন পুরোনো ই-মেইল
প্রথম জিমেইল ওপেন করে সার্চবারে গিয়ে (Older than) লিখে সার্চ করতে হবে। সার্চ অপশন দৃশ্যমান হলে সেখানে ক্লিক করে টাইম ফ্রেম নির্বাচন করার সুযোগ থাকবে। সার্চ বারে ফাইলের সাইজ নির্বাচন করা যাবে। সহজে বড় অ্যাটাচমেন্ট থাকা ফাইল বেছে নেওয়ার সুযোগ থাকবে।
ই-মেইল ট্র্যাশ
ডিলিট করতে চাওয়া ই-মেইলের পাশে টিক মার্ক বক্সে থাকবে, সেখানে ক্লিক করতে হবে। স্ক্রিনে ট্র্যাশ আইকন দৃশ্যমান হবে। তা ক্লিক করে নিতে হবে। বাঁ দিকে সাইডবারে ট্র্যাশ লেবেল থাকবে। ওখানে ‘এম্পটি ট্র্যাশ নাউ’ অপশনে ট্যাপ করতে হবে। ফলে চিহ্নিত সব ই-মেইল স্থায়ীভাবে ডিলিট হয়ে যাবে।
সার্চ অপশনে গিয়ে has:attachment বা filename:pc সার্চ করলে যেসব ই-মেইলের সঙ্গে অ্যাটাচমেন্ট আছে, শুধু সেসব ই-মেইল নির্বাচিত হবে। ওখানে নির্দিষ্ট ই-মেইল খুলে বড় আকারের অ্যাটাচমেন্ট থাকা ফাইল নির্বাচন করা সম্ভব।
যদি সেটা দরকারি হয়, তাহলে ডাউনলোড করে ফোনে বা কম্পিউটারে সেভ করে নিতে পারেন। অ্যাটাচমেন্ট রিমুভ করার জন্য ই-মেইলে রিমুভ অপশন মিলবে।
ড্রাইভ স্টোরেজ
গুগল ড্রাইভ স্টোরেজ বেশ জরুরি, যা খালি রাখতে আকারে বড় সব ফাইল ডিলিট করা দরকার। অটোমেটিক ডিলিট বা আর্কাইভ ওল্ড ই-মেইল ফিল্টার সেবা নেওয়া যেতে পারে। প্রয়োজনে ‘ডিলিট আফটার রিডিং’ ফিচার চালু রাখা যায়। পড়ার পর যা নিজে থেকেই মুছে যাবে। থার্ড পার্টি অ্যাপ আছে, যা ই-মেইল বক্স গোছাতে বা স্টোরেজ ফাঁকা রাখতে সহায়ক।

আরও পড়ুন

×