ফোনে আগের যে কোনো সময়ের তুলনায় ভিডিও দেখার পরিমাণ বেড়েছে। আর ভিডিও দেখার জন্য ইউটিউব তো আছেই। তরুণ প্রজন্মের কাছে শর্ট ভিডিও প্ল্যাটফর্ম টিকটকও এখন দারুণ জনপ্রিয়। বেশি ডাটা খরচে অ্যান্ড্রয়েড ফোনে ওয়াইফাই সংযোগ থাকলে ভালো। তবে টেলিকম কোম্পানির ডাটা কিনে ব্যবহার করতে গেলে অনেকেরই শুরু হয় হা-হুতাশ! সাত দিনের পরিকল্পনা করে যে ডাটা কেনা হয়েছিল; ফেসবুক পোস্ট কিংবা ইউটিউব ও টিকটকের ভিডিও দেখতে না দেখতেই দুই দিনে তা শেষ। চাইলে অ্যান্ড্রয়েড ফোনে পর্যবেক্ষণ ও নিয়ন্ত্রণ করা যায়।

ডাটা লিমিট চালু
অ্যান্ড্রয়েড ফোনে ডাটা পর্যবেক্ষণ ও কী পরিমাণ ডাটা খরচ করতে চান তা নির্ধারণে সেটিংস অপশনে যেতে হবে। এবার কানেকশন অথবা নেটওয়ার্ক অ্যান্ড ইন্টারনেট অপশনে গিয়ে ডাটা ইউজেস অপশনে ক্লিক করতে হবে। এর পর বিলিং সাইকেল অ্যান্ড ডাটা ওয়ার্নিংয়ে যেতে হবে। এবার ডাটা ওয়ার্নিং সুইচ টগোল করুন। এখানে কী পরিমাণ ডাটা ব্যবহারের পর আপনাকে সতর্কবার্তা দেখাবে, তা নির্বাচন করে দিন। এর পর সেট ডাটা লিমিট টগোল করুন। এখান থেকে নির্দিষ্ট পরিমাণ ডাটা ব্যবহারের পর ডাটা ব্যবহারই স্বয়ংক্রিয়ভাবে বন্ধ করে দেওয়া যায়।

ডাটা সেভার মোড
ফোনে স্বয়ংক্রিয়ভাবে ডাটা খরচ কমাতে অ্যান্ড্রয়েড ৮ সংস্করণ কিংবা এর পরের সংস্করণগুলোর স্মার্টফোনে ডাটা সেভার মোড অপশন পাওয়া যাবে। ডাটা সেভার মোড অন করে রাখলে যখন আপনি ওয়াইফাই ব্যবহার করবেন না, তখন এ মোড স্বয়ংক্রিয়ভাবে সচল হবে। অপশনটি সক্রিয় করতে হলে ফোনের সেটিংসে গিয়ে কানেকশনে যেতে হবে। এর পর ডাটা ইউজ অপশনে ট্যাপ করে ডাটা সেভার অপশন ট্যাপ করতে হবে। এর পর মেন্যুর ভেতরের সুইচ টগোল করতে হবে।
অ্যান্ড্রয়েড ফোনের চলমান বিলিং সাইকেল থেকেও ডাটার পরিমাণ পর্যবেক্ষণ ও নিয়ন্ত্রণ করা যায়। এখানে গ্রাফ আকারে ডাটার ব্যবহার দেখায়। এটি চালু করতে ফোনের সেটিংস অপশন থেকে কানেকশনে গিয়ে ডাটা ইউজ নির্বাচন করতে হবে। এবার মোবাইল ডাটা ইউজ ট্যাপ করতে হবে।

স্বয়ংক্রিয় আপডেট বন্ধ করুন
স্মার্টফোনের ডাটা খরচ কমাতে অ্যাপে মোবাইল ডাটার মাধ্যমে স্বয়ংক্রিয় আপডেট বন্ধ রাখুন। কেবল ওয়াইফাইয়ের মাধ্যমে অ্যাপ আপডেট করার অপশনটি চালু রাখলে যখন আপনার ফোন ওয়াইফাই নেটওয়ার্কে থাকবে তখন অ্যাপসহ ওএস আপডেট হবে। এভাবে মোবাইলের অ্যাপ আপডেট নিয়ন্ত্রণ করে বা তা ওয়াইফাইয়ে সুনির্দিষ্ট করে ডাটা বাঁচানো সম্ভব। সুবিধাটি চালু করতে গুগল প্লে স্টোরে গিয়ে সেটিং অপশনে যান এবং অটো আপডেট অ্যাপ বাছাই করুন। এরপর ডোন্ট অটো আপডেট অ্যাপ বা ওভার ওয়াইফাই অনলি সিলেক্ট করে ডাটা সেভার এনাবল করুন।

অটো সিংক ডিজঅ্যাবল করুন
আপনার ফোনটির অটো সিংক ডিজঅ্যাবল করতে পারেন। এতে সব অ্যাপ সিংক বন্ধ থাকবে এবং তাতে ব্যাটারির পাশাপাশি ডাটা খরচ অনেকটাই বাঁচবে। এটি করতে হলে ফোনের সেটিংসে গিয়ে অ্যাকাউন্টস ওপেন করুন। স্ট্ক্রল ডাউন করে অটোমেটিক সিংক ডাটা ডিজঅ্যাবল করতে হবে। এ ছাড়া নোটিফিকেশন বারের কুইক সেটিংস টগল থেকেও বন্ধ করা যায়। পরে ওয়াইফাই সংযোগে গেলে সিংক এনাবল করে নিলেই হবে। এভাবে ফোনের অনেক ডাটা বাঁচানো সম্ভব।

ইউটিউবের ডাটা সেভিং
ইউটিউবে ভিডিও দেখলে ব্যাপক পরিমাণ ডাটা খরচ হয়ে থাকে। এই অ্যাপে থাকা বিশেষ ফিচার ব্যবহার করে ডাটা বাঁচানো সম্ভব। এ ক্ষেত্রে ইউটিউব অ্যাপের সেটিংসে গিয়ে জেনারেল ট্যাব ওপেন করুন এবং লিমিট মোবাইল ডাটা নির্বাচন করুন। এর ফলে ডাটা ব্যবহারের সময় অপচয় বন্ধ হবে। আবার ওয়াইফাই সংযোগে গেলে ডাটা সেভিং সুবিধা বন্ধ করতে ইউটিউব স্ট্রিম করলেই চলবে।