রকমারি ভিডিও দেখার জন্য ইউটিউব খুবই জনপ্রিয়। ইউটিউবে ভিডিও দেখতে হলে ডিভাইসে ইন্টারনেটে সংযুক্ত থাকতে হবে। বিমানে ভ্রমণকালীন কিংবা এমন জায়গায় অবস্থান করছেন, যেখানে ঠিকমতো ইন্টারনেট সংযোগ পাওয়া যায় না। তবে চাইলে ডাটা খরচ ছাড়াই অফলাইনে দেখা যায় ইউটিউব ভিডিও। সাধারণত ইউটিউব প্রিমিয়ার সেবা সাবস্ট্ক্রাইব করে অফলাইনে ভিডিও দেখা যায়। তবে প্রিমিয়ার সার্ভিস ব্যবহার না করলেও অফলাইনে ভিডিও দেখা সম্ভব।

কম্পিউটারে
পিসি, ম্যাক কিংবা ল্যাপটপে অফলাইনে ভিডিও দেখতে হলে সংশ্নিষ্ট ডিভাইসে ইউটিউবের ওয়েব অ্যাপ ডাউনলোড করতে হবে। প্রিমিয়াম সাবস্ট্ক্রাইবার হলে এখন যে ভিডিও অফলাইনে দেখতে চান, সেটি চালু করুন। এবার ভিডিও প্লেয়ারের নিচের দিকে থাকা ডাউনলোড বাটন চাপুন। এখন ইউটিউব অফলাইন ভিডিও অপেন করলে আপনি ডাউনলোড অপশন দেখতে পাবেন। ডাউনলোড ভিডিও ৩০ দিন পর্যন্ত অফলাইনে দেখা যাবে। প্রিমিয়াম সাবস্ট্ক্রাইবার না হলেও নির্দিষ্ট ভিডিও অফলাইনে দেখা যাবে।

স্মার্টফোনে
আইওএস কিংবা অ্যান্ড্রয়েড- উভয় প্ল্যাটফর্মের ডিভাইসেই অফলাইনে ইউটিউব ভিডিও দেখা সম্ভব। সব ভিডিও কিন্তু অফলাইনে দেখা যাবে না। নির্দিষ্ট দেশের কিংবা অঞ্চলের জন্য অফলাইন ভিডিও নির্দিষ্ট করে দেওয়া আছে। অফলাইনে ভিডিও সেভ করার জন্য প্রথমে স্মার্টফোনে কিংবা ট্যাবলেট পিসিতে সংশ্নিষ্ট ভিডিও অপেন করতে হবে। এ সময় অবশ্যই ডিভাইসে ইন্টারনেট সংযুক্ত থাকতে হবে। পছন্দের ভিডিও যদি অফলাইনে সংরক্ষণের জন্য উপযুক্ত থাকে, তবে ভিডিওর নিচের দিকে থাকা অফলাইন আইকনে ক্লিক করতে হবে। মেন্যু বাটন থেকেও 'অ্যাড টু অফলাইন' সিলেক্ট করে দেওয়া যাবে। ইউটিউব ভিডিও পছন্দমতো হাই, মিডিয়াম কিংবা লো রেজ্যুলেশনে ডাউনলোড করা যাবে। ডাউনলোড ভিডিও নির্দিষ্ট দিন পর্যন্ত অফলাইনে দেখা যাবে।

তৃতীয় পক্ষের অ্যাপ
ইউটিউব ভিডিও ডাউনলোডের জন্য তৃতীয় পক্ষের বিভিন্ন অ্যাপ রয়েছে। এসব অ্যাপের কোনোটি বিনামূল্যে, কোনোটি অর্থ খরচ করে ব্যবহার করা যায়। জনপ্রিয় অ্যাপগুলোর মধ্যে রয়েছে- ভিএলসি মিডিয়া প্লেয়ার, ওয়াইটি স্ট্ক্রাইব, ইন্সটিউব, ভিডিও ডাউনলোড হেলপার, ইউটিউব ভিডিও ডাউনলোডার, ফাইভকে প্লেয়ার, ফোরকে ভিডিও ডাউনলোডার প্রভৃতি।