স্মার্টফোন ব্যবহারকারীদের সবচেয়ে চিন্তার বিষয় ব্যাটারির সক্ষমতা। ব্যবহারকারীর প্রয়োজনীয়তার দিকটি মাথায় রেখে সময়ের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে নির্মাতারা বাড়িয়েছেন ব্যাটারির সক্ষমতা। তবে স্মার্টফোনের ব্যাটারির অন্যতম সমস্যা হচ্ছে চার্জিং হতে সময়ক্ষেপণ। জরুরি কাজে দ্রুত প্রয়োজন হলেও অনেক সময় কাঙ্ক্ষিত চার্জ হতে সময় লেগে যায়। তবে চাইলে আপনার অ্যান্ড্রয়েড ফোনটিও অপেক্ষাকৃত দ্রুত চার্জ করিয়ে নিতে পারেন।

ফাস্ট চার্জার :অ্যান্ড্রয়েড ফোন চার্জ করতে চাইলে দ্রুত চার্জ হয় এমন ভালো মানের চার্জার কিনুন। তবে এ ক্ষেত্রে কেনার সময় অবশ্যই ফোনের সঙ্গে চার্জারের সামঞ্জস্যপূর্ণ কিনা, তা পরীক্ষা করে নিন। আপনার ফোন কত ওয়াট পর্যন্ত চার্জ নিতে সক্ষম এবং এটি ফোনের কোনো ক্ষতি করবে কিনা, তাও দেখে নিন।

চার্জিংয়ে লোকেশন, ওয়াই-ফাই, ব্লুটুথ বন্ধ :স্মার্টফোনের ব্যাটারির ক্ষমতা উল্লেখযোগ্য হারে কমিয়ে দেয় লোকেশন, ওয়াই-ফাই, ব্লুটুথের মতো গুরুত্বপূর্ণ পরিষেবা। তাই ডিভাইস চার্জের সময় এসব পরিষেবা বন্ধ রাখলে চার্জিং গতি বেড়ে যাবে।

ওয়াল সকেটে চার্জ :গাড়ি, ল্যাপটপ এবং অন্যান্য ডিভাইসে ইউএসবি পোর্ট থাকে। এতে সাধারণত ভালো চার্জিং অভিজ্ঞতা পাওয়া যায় না। এ ক্ষেত্রে ওয়াল সকেট ভালো গতির সঙ্গে নির্ভরযোগ্য চার্জিং প্রদান করে। তাই সম্ভব হলে ওয়াল সকেটের মাধ্যমে ব্যাটারি চার্জ করুন।

আসল কেবল :সব ফোনের নির্দেশনায় আসলে কবল ও অ্যাডাপ্টার দিয়ে চার্জ দেওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়ে থাকে। ভিন্ন ব্র্যান্ডের চার্জার ব্যবহার করলে ডিভাইসের ব্যাটারির ক্ষতি হতে পারে এবং এটি চার্জিং গতিকেও ব্যাহত করতে পারে। তাই স্মার্টফোনে চার্জের জন্য সঠিক কেবল ব্যবহার করুন।
ব্যাকগ্রাউন্ড অ্যাপ ডিসঅ্যাবল :ব্যাকগ্রাউন্ড প্রসেসিং অ্যাপগুলো ব্যবহূত না হলেও ডিভাইসের ব্যাটারি ব্যবহার করে। স্মার্টফোন সাধারণত ধীরে চার্জ হয় যখন নির্দিষ্ট পরিমাণ ব্যাটারি ব্যবহার চলতে থাকে। এই অ্যাপগুলো ডিসঅ্যাবল রাখলে দ্রুত চার্জ হবে।

ঘন ঘন চার্জিং নয় :যে কোনো স্মার্টফোনের ব্যাটারি একটি নির্দিষ্ট সংখ্যক চার্জিং সাইকেলের সঙ্গে আসে। বারবার অল্প সময়ের জন্য চার্জ দেওয়া ও খুলে ফেলার মাধ্যমে আমরা ব্যাটারির সামগ্রিক জীবনকে প্রভাবিত করি, যা একটি ব্যাটারি দীর্ঘ মেয়াদে চার্জিংয়ের গতিও কমিয়ে দেয়।

সারারাত চার্জিং নয় :রাতভর ফোন চার্জিংয়ে রাখলে দীর্ঘ মেয়াদে ব্যাটারির সক্ষমতা কমিয়ে দেয়। শুরুতে হয়তো তেমন কোনো সমস্যা ধরা পড়বে না। তবে দীর্ঘ সময়ের মধ্যে এটি ব্যাটারির ক্ষতি করবে এবং চার্জিংয়ের গতি উল্লেখযোগ্য হারে কমিয়ে দিতে পারে।

চার্জিংয়ের সময় ফোন ব্যবহার নয় :ফোন চার্জ করার সময় ব্যবহার করা এড়িয়ে চলা উচিত। ডিভাইস চার্জ করার সময় ফোনকলের উত্তর দেওয়া বা গেম খেললে স্মার্টফোন নানা ক্ষতির সম্মুখীন হতে পারে। এটি চার্জিংয়ের গতিও কমিয়ে দেয়।