দেশের বিভিন্ন জেলার আইসিটি শিক্ষক ও শেখ রাসেল ডিজিটাল ল্যাব কো-অর্ডিনেটরদের প্রশিক্ষণ প্রদান শেষে এবার আনুষ্ঠানিক ভাবে জেলা পর্যায়ে শুরু হলো জাতীয় শিশু-কিশোর প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতার কার্যক্রম।

ইয়ং বাংলা এবং বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিলের যৌথ আয়োজনে হওয়া এই প্রতিযোগিতার মাধ্যমে দেশব্যাপী প্রোগ্রামিংয়ে শিক্ষার্থীদের আগ্রহী করে তোলা হচ্ছে।

গত ১৬-১৭ এপ্রিল প্রশিক্ষকদের জন্য দুই দিনব্যাপী একটি প্রশিক্ষণ ও সেমিনারের আয়োজন করা হয় বাংলাদেশ কৃষিবিদ ইন্সটিটিউটে। সেখানে দেশের প্রতিটি জেলা থেকে মোট ৩৬০ জন আইসিটি শিক্ষক এবং শেখ রাসেল ডিজিটাল ল্যাবের কো-অর্ডিনেটরেরা প্রশিক্ষণ নেন।

এরপর মে মাসের ১২ তারিখ থেকে ৩০ তারিখ পর্যন্ত এই আইসিটি শিক্ষক ও শেখ রাসেল ডিজিটাল ল্যাবের কো-অর্ডিনেটরেরা সারা দেশে স্কুলগুলো থেকে শিক্ষার্থী বাছাই শেষে শেখ রাসেল ডিজিটাল ল্যাবে পাইথন ও স্ক্র্যাচের প্রশিক্ষণ প্রদান করে। শিক্ষার্থীদের ল্যাব  প্রশিক্ষণ শেষে এবার শুরু হচ্ছে জেলা পর্যায়ের প্রতিযোগিতা।

২ জুন স্ক্র‍্যাচ এবং ৩ জুন পাইথন  প্রতিযোগিতার মাধ্যমে প্রতিটি জেলা হতে স্ক্র‍্যাচ ও পাইথনের বিজয়ী দলের নাম ঘোষণা করা হবে। পরবর্তীতে এই জেলা ভিত্তিক বিজয়ীদের নিয়ে ঢাকায় দুই দিনব্যাপী ‘পাইথন ভিত্তিক জাতীয় ক্যাম্প’ এবং দুই দিনের ‘স্ক্র্যাচ ভিত্তিক জাতীয় ক্যাম্প‘ আয়োজন করা হবে। এই জাতীয় প্রতিযোগিতায় প্রাপ্ত প্রকল্পগুলোর মধ্যে থেকে সেরা প্রকল্পগুলোকে সমাপনী এবং পুরষ্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে উপস্থাপন করা হবে।

সম্প্রতি ঢাকায় অনুষ্ঠিত বিজনেস প্রসেস আউটসোর্সিং (বিপিও) সামিটে প্রধানমন্ত্রীর তথ্য-প্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয় প্রাথমিক স্তর থেকেই দেশের শিক্ষার্থীদের আইসিটি প্রশিক্ষণের ঘোষণা দেন। এরপর দেশব্যাপী এই প্রতিযোগিতা হতে চলেছে।

ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেন, 'মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অগ্রাধিকার প্রদানের ভিত্তিতে তথ্যপ্রযুক্তিতে দক্ষ আগামীর জাতি গড়ার লক্ষ্যে ও শিশুকিশোরদের প্রোগ্রামিংয়ে অনুপ্রেরিত করতে এই প্রতিযোগিতা।'

সিআরআই-এর সহকারী সমন্বয়ক তন্ময় আহমেদ বলেন, 'প্রথমবারের মতো এবারই এই প্রতিযোগিতায় তৃতীয়-পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের জন্য ‘স্ক্র্যাচ’ এবং ষষ্ঠ-দশম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের জন্য ‘পাইথন’ রাখা হয়েছে। সাধারণত প্রতি বছর হাই স্কুল প্রোগ্রামিং কন্টেস্টে ‘সি’  ও ‘সি++’ ভিত্তিক কিছু কুইজ এবং কিছু প্রবলেম সলভ করার জন্য দেওয়া হয়ে থাকে।'

জাতীয় এই প্রতিযোগিতা সম্পর্কে আরো বিস্তারিত জানতে ক্লিক করুন ফেসবুক পেজ: জাতীয় শিশুকিশোর প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতা

মন্তব্য করুন