সহানুভুতিশীল সুষমা স্বরাজ টুইটারে ছিলেন জনপ্রিয়

প্রকাশ: ০৭ আগস্ট ২০১৯      

অনলাইন ডেস্ক

ভারতের সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ ছিলেন এমন একজন মন্ত্রী যার কাছে সবচেয়ে সহজে যোগাযোগ করা যেতো। মঙ্গলবার রাতে প্রয়াত এই সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী টুইটারে ছিলেন সবচেয়ে সক্রিয় ভারতীয় নাগরিক এবং তার ফলোয়ারের সংখ্যা ছিল অনেক। বিদেশ বিপদে পড়া বহু ভারতীয় ও তাদের সাহায্য চেয়ে আবেদনে তার উত্তর ছিল প্রশংসনীয়। 

সাহায্যপূর্ণ হস্তক্ষেপের জন্য পরিচিত ছিলেন সুষমা স্বরাজ। চিকিৎসার প্রয়োজনে বিদেশিদের জরুরি ভিসার ক্ষেত্রে ভারতের জটিল অবস্থানেও তিনি সাহায্য করতেন। এমনকি সামান্য কোনও বিষয়েও টুইট করলে তার উত্তর মিলত। খবর এনডিটিভির

এমনকি তিনি যখন অসুস্থ ছিলেন, ২০১৬-এ যখন কিডনি প্রতিস্থাপন করেন, তখনও মানুষের প্রশ্নের জবাব দিয়েছেন। চিকিৎসার জন্য লন্ডনের এক ব্যক্তির ভিসার আবেদনের প্রেক্ষিতে তাকে উত্তর দেন।

পাকিস্তানের সঙ্গে যখন উত্তেজনা বাড়ে, সেখান থেকে ভারতে চিকিৎসার প্রয়োজনে ভিসার আবেদনেও সাহায্যের হাত বাড়িয়েছেন সুষমা স্বরাজ। বছর দুয়েক আগে, এক টুইটাকারির কৌতুকের জবাবে, তিনি বলেন, যদি সত্যই প্রয়োজন হয়, ভারতীয় দূতাবাস তাদের ‘মঙ্গলগ্রহে আটকে পড়া’ থেকেও উদ্ধার করবে।

চলতি বছরের মে মাসে সুষমা স্বরাজের পরিবর্তে পররাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের দায়িত্বভার পান এস জয়শঙ্কর। সুষমা স্বরাজের পদাঙ্ক অনুসরণ করতে তিনি কতটা গর্বিত ছিলেন, তা লেখেন তিনি।

টুইটারে মানুষকে সাহায্য করা ছাড়াও পাসপোর্ট পরিকাঠামো এবং পূর্বের সঙ্গে যোগাযোগ উন্নত করার জন্যও স্মরণীয় সুষমা স্বরাজ। ইন্দিরা গান্ধীর পর তিনি ভারতের দ্বিতীয় নারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী। প্রধানমন্ত্রী থাকাকালীন একইসঙ্গে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ও সামলেছিলেন ইন্দিরা গান্ধী।