প্রাইভেসি পলিসি সংক্রান্ত পরিবর্তন নিয়ে এসেছে হোয়াটসঅ্যাপ। অ্যাপটির ডেটা শেয়ারিং সংক্রান্ত আপডেট গ্রহণের শেষ সময়সীমা ছিল ৮ ফেব্রুয়ারি। এই সময়সীমা এখন বাড়িয়ে ১৫ মে করা হয়েছে। 

এদিকে হোয়াটসঅ্যাপের পরিবর্তন নিয়ে বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছে সারাবিশ্বে। অনেক ব্যবহারকারী ইতোমধ্যেই এই অ্যাপ ছেড়েছেন। খবর বিবিসির

এ বিষয়ে হোয়াটসঅ্যাপ তাদের নিজস্ব ব্লগে জানিয়েছে, প্রাইভেসি পলিসি সংক্রান্ত পরিবর্তন নিয়ে অনেকেই বিভ্রান্ত হয়েছেন।এই আপডেটের মাধ্যমে ফেসবুকের সঙ্গে তথ্য শেয়ার করা হচ্ছে না।

১৫ মে নতুন অপশন আসার আগে এই পলিসি নিয়ে ধীরে ধীরে ব্যবহারকারীদের কাছে যাওয়ার পরিকল্পনা করেছে হোয়াটসঅ্যাপ কর্তৃপক্ষ।

এর আগে হোয়াটসঅ্যাপের পক্ষ থেকে জানানো হয়, অ্যাপটি তাদের প্রাইভেসি পলিসি সংক্রান্ত পরিবর্তন নিয়ে আসছে। এরপর থেকে বিভ্রান্তি ছড়ায়-ব্যবহারকারীর চ্যাট সংক্রান্ত যাবতীয় তথ্য ফেসবুকের সঙ্গে শেয়ার করতে পারে হোয়াটসঅ্যাপ।

এই পরিস্থিতিতে হোয়াটসঅ্যাপ ছেড়ে 'সিগন্যাল' ও 'টেলিগ্রাম' অ্যাপ ডাউনলোড করেছেন অনেকে।

কিন্তু এ অভিযোগ মিথ্যা দাবি করে ব্যবহারকারীদের উদ্দেশে হোয়াটসঅ্যাপ ব্লগে লিখেছে, আমরা আপনাদের ব্যক্তিগত মেসেজ দেখতে পারি না, আপনাদের কলও আমরা শুনতে পাই না। আপনার শেয়ার করা লোকেশনও আমরা দেখতে পাই না। ফেসবুকও পায় না।

আপডেট সম্পর্কে হোয়াটসঅ্যাপ জানিয়েছে, এটা একটি ব্যবসায়িক পরিষেবা। এ ক্ষেত্রে ফেসবুক থেকে হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাট ম্যানেজ করতে, তথ্য আদান-প্রদানের সুবিধা করতেই ওই আপডেট আনা হচ্ছে।

মন্তব্য করুন