বিশ্ব বাণিজ্য আরও সহজ করে তুলতে দুই দিনব্যাপী ভার্চুয়াল ইভেন্ট আয়োজন করেছে এইচএসবিসি মাধ্যমে পরিচালিত ডিজিটাল বিটুবি প্ল্যাটফর্ম সেরাই। এর মাধ্যমে বিশ্বজুড়ে ক্রেতাদের কাছে নিজেদের নতুন প্রযুক্তি এবং পণ্যসামগ্রী প্রদর্শন করার সুযোগ পেয়েছেন বাংলাদেশি আরএমজি উৎপাদনকারীরা।

‘ইয়োর নিউ সোর্সিং ডেসটিনেশন, বাংলাদেশ’ শীর্ষক ইভেন্টটিতে এশিয়া, ইউরোপ, অস্ট্রেলিয়া এবং উত্তর আমেরিকার ৩০টিরও বেশি আন্তর্জাতিক ক্রেতা ও ব্র্যান্ডের কাছে নিজেদের পণ্যসামগ্রী তুলে ধরেছেন ১৪ জন দেশীয় সরবরাহকারী।

সেরাই প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) বিবেক রামাচন্দ্র বলেন, সেরাইয়ের জন্য বাংলাদেশ একটি প্রধান মার্কেট এবং এ দেশের আরএমজি সেক্টর নিয়ে আমরা আশাবাদী। কভিড-১৯ এর ফলে আন্তর্জাতিক ক্রেতাদের সঙ্গে স্থানীয় সরবরাহকারীদের যোগাযোগ কঠিন হয়ে পড়েছে। তাই আমরা ব্যবসায় আগ্রহী ক্রেতাদের কাছে নতুন নতুন পণ্যসামগ্রী তুলে ধরতে বাংলাদেশি সরবরাহকারীদের একটি প্ল্যাটফর্ম করে দিয়েছি।

নতুন মার্কেট থেকে সেরা পণ্যের উৎস পেতে অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ড, দক্ষিণ কোরিয়া, হংকং, যুক্তরাজ্য, জার্মানি, যুক্তরাষ্ট্র, পেরুর মতো দেশগুলো থেকে সেরাই নিবন্ধিত ক্রেতারা এ ইভেন্টে অংশগ্রহণ নিয়েছেন।

চট্টগ্রাম এক্সপোর্ট প্রোসেসিং জোনের (সিইপিজেড) বোনা-পোশাক শিল্পের উৎপাদনকারী ফারকান্টেক্সের ম্যানেজিং ডিরেক্টর খাজা মাইনুদ্দীন ফরহাদ বলেন, আন্তর্জাতিক ক্রেতারা আমাদের মতো প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে যোগাযোগ স্থাপনে আগ্রহী। এসব ব্র্যান্ডকে আমাদের পণ্যসামগ্রী দেখাতে পেরে এবং সম্ভাব্য মূল্য নির্ধারণ করে আমরা আরও এক ধাপ এগিয়ে গেলাম।

অংশগ্রহণকারী ক্রেতাদের মধ্যে একজন ছিলেন যুক্তরাজ্যের কন্টিনেন্টাল টেক্সটাইলের ডিরেক্টর লিন্ডা এলিস। তিনি বলেন, পোশাকের পরিসর ও গুণগত মানের দিক থেকে সম্ভাবনাময় দেশ বাংলাদেশ। আমরা ইতোমধ্যে ইভেন্টে অংশগ্রহণকারী কয়েকজন সরবরাহকারীদের সঙ্গে যোগাযোগ করেছি। এছাড়া আগামীতেও বাংলাদেশি শিল্পকারখানাগুলোর সঙ্গে সম্পর্ক বজায় রাখতে আমরা আশাবাদী।

মন্তব্য করুন